ফরিদগঞ্জে ৩জনকে কুপিয়ে জখম : ঘরবাড়ি লুট

0
171

গোলাম মোস্তফা, বিশেষ প্রতিনিধি :

চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের রামদাসেরবাগ গ্রামে সফিক বাহিনীর দাবীকৃত চাঁদা না দেওয়ায় একই পরিবারের ৩ জনকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আহত পরিবারের পক্ষ থেকে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

http://picasion.com/

অভিযোগের সুএে জানা যায়, ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের কয়েকটি মামলার আসামি মোঃ সফিক হাজী রামদাসের বাগ গ্রামের বাসিন্দা মোঃ দুলাল হোসেন পিতাঃ আঃ জলিলের নিকট জমিজমা বিষয়ে চাঁদা দাবি করে। এ দাবীকৃত চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় চিহ্নিত সন্তাসী সফিক হাজীর নিদেশে তার বাহিনীর সদস্য এবং সফিক হাজীর ছেলে মামুন তাঁর ভাতিজা মাসুম ও নয়নের নেতৃত্বে আরো ৮/১০ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল গত ১নভেম্বর শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে দুলাল হোসেনের বসত ঘরে হামলা চালিয়ে লুটপাট করে ঘরের আসবাবপত্র, স্বনলংকার এবং নগদ অথ নিয়ে যায়। এগুলো নেওয়ায় বাঁধা দেওয়ায় তারা দুলাল হোসেন, তাঁর স্ত্রী খালেদা আক্তার এবং ছেলে রোকন হোসেন কে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে।

gif maker এসময় তাদের ডাক চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে তাদের রক্ষা করে।

অপরদিকে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসা দেখে হামলাকারীরা  পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী তাদের কে রক্তাক্ত অবস্থায় দ্রুত ফরিদগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঐ হাসপাতাল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে রেফার করে। বতমানে তারা এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত দুলাল হোসেন জানান, শুক্রবার জুমার নামাজের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি, এমন সময় তারা অতকিত হামলা করে আমার ঘর লুট করে সব নিয়ে গেছে। আমার ঘরে থাকা সব কিছু তারা নিয়ে গেছে।

তিনি আরো বলেন, আমার ঘরে থাকা আমার স্ত্রী স্বন লংকার এবং নগদ টাকা তারা লুট করেছে। আমাদের এলাকায় কোনো জমি ভরাট, নতুন বাড়ি ঘর করা হলে এবং জমিজমা ক্রয় বিক্রয়ে তাকে চাঁদা দিতে হয়। না দিলে চলে অত্যাচার। সে (সফিক হাজী) অএ অঋলের একজন চিহ্নিত সন্তাসী, সে বিএনপি জামাত ঘরনার লোক। এরপর ও সে শুধু আমাদের ইউনিয়নে নয়, ঐ অঋলে সে তাঁর বাহিনীর দ্বারা সন্তাসী কাযক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। কিছু দিন পূর্বে তার ভাতিজা নয়ন অস্ত্র ও মাদক সহ ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ আটক করে। যা স্হানীয় ও জাতীয় পএিকায় সংবাদ ছাপানো হয়।

এ ঘটনার বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবদুর রকিবের সাথে কথা হলে, ঘটনার বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে জেনে আমি তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি, এ সংক্রান্ত বিষয়ে এখন মামলা প্রক্রিয়াধীন।

প্রকাশিত : ০২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর/

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
175 জন পড়েছেন
http://picasion.com/