মতলবে মেঘনা ধনাগোদা নদীতে অবৈধভাবে জাক পেতে ডিমওয়ালা ও গুড়া মাছ নিধন

0
10

গোলাম নবী খোকন :
চাঁদপুরের মেঘনা ধনাগোদা নদীর চর্তুদিকে অসংখ্যক অসাধু মাছ চাষীরা অবৈধভাবে জাক পেতে ডিমওয়ালয়া মাছ ও গুড়া মাছ নিধন করছে।

জাক ছাড়াও বেহেন্দী জাল, বেড় জাল, খড়া জাল, কারেন্ট জাল, গচি জাল সহ আর ও ছোট পাওয়ার জাল দিয়ে অবাধে মাছ নিধন করছে। যে সমস্হ জালের কথা বলা হয়েছে মৎস্য আইনে এ সমস্ত জাল বা জাক পাতা সম্পূন্ন বে-আইনি।

http://picasion.com/

আর এ ব্যবপারে আইন থাকলেও এর নাই কোন প্রয়োগ। আর এই যে জাক, এটা ১২ মাস নদীতে দেখা যায়। এ জাকের প্রভাবটা বেশী ধনাগোদা নদীর কালীপুর, কালীর বাজার, ধনাগোদা,গালিম খাঁ, দূর্গাপুর, নন্দলালপুর, তিতার কান্দি,নায়েঁর গাঁও, শীবপুর,শাহপুর, মাছুয়া খাল, আমুয়া কান্দা,টরকী, লক্ষীপুর, এনায়েত নগর, সিপাই কান্দি,বাইপুর,মতলব, কদম তলী, গাজীপুর, চরমাছুয়া, আমিরাবাদ সহ আর ও অনেক এলাকায় নদীতে জাক জুড়ে আছে।

এর কারণে নদীতে মাছ পূর্বের তুলনায় একেবারে কম। এবং কি জাক পাতার কারণে নদীর নাব্যতা দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। নদীতে পলি জমে নদীর অনেকংশেই চর পড়ে আছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে অনেক জাক পাতা জেলেরা বলেন, আমরা মানতি দিয়ে নদীতে জাক দেই।

মতলব উত্তর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা বলেন, নদীর সম্পূন্ন জাক উঠাইয়া ফেলতে হবে, জাক পাতা, গুড়া মাছ, ডিমওয়ালা মাছ এবং অনেক প্রকার জাল আছে যা ব্যবহার করলে দন্ডনীয় অপরাধ। এগুলির ব্যfপারে কোন ছাড় দেওয়া হবে না।

প্রকাশিত : ২৫ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার :

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
191 জন পড়েছেন
http://picasion.com/