ফরিদগঞ্জে এক চোর আটক তিন চোরের পলায়ন

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

ফরিদগঞ্জ উপজেলার ঈদগাহ এলাকায় এক চোরকে আটক করা হয়েছে। চোরচক্র চুরি করতে গেলে বাড়ির মালিক টের পেয়ে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আফজাল (৪০) নামে এক চোরকে আটক করে। এ সময় তার সাথে থাকা চোর চক্রের অপর ৩ সদস্য কৌশলে পালিয়ে যায় বলে পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ফরিদগঞ্জ উপজেলার সদরের কাচিয়াপাড়া ঈদগাহ এলাকার মোঃ হারুনুর রশিদের বাড়িতে।

পুলিশ জানায়, আটক চোরের কাছ থেকে সিটি গোল্ডের ২টি রুলি ও নগদ ১৭ হাজার টাকা জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় ফরিদগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রকিব।

gif maker

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ফরিদগঞ্জ উপজেলার ঈদগাহ এলাকাস্থ হাজী বাড়ির প্রবাসী মোঃ হারুনুর রশিদের স্ত্রী শারমিন আক্তার রান্না ঘর থেকে দেখেন চোর ঘরের ভেতরে ঘুরাফেরা করছে। তিনি রান্না ঘরের পেছন দিয়ে এসে দেখেন ঘরের তালা ভেঙ্গে এক চোর ঘরে প্রবেশ করেছে। তিনি বাহির থেকে বুঝতে পেরে ঘরের বাইরে তালা লাগিয়ে চোর আফজালকে বন্দী করে ফেলে।

তাৎক্ষণিক এলাকাবাসী বিষয়টি জানতে পারে। এরই মধ্যে চোর চক্রের অপর ৩ সদস্য ঘটনাস্থল থেকে কৌশলে পালিয়ে যায়। আটককৃত চোরের কাছ থেকে এলাকাবাসী ২টি সিটি গোল্ডের রুলি, ২ জোড়া কানের দুল ও নগদ ১৭ হাজার টাকা পায় বলে জানা গেছে। এলাকাবাসী বিষয়টি তাৎক্ষণিক ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রকিবকে জানালে তিনি থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ নাজমুল ইসলাম সুজনকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে চোর আফজালকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

এ ব্যাপারে থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ নাজমুল ইসলাম সুজন জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে বন্দী চোরকে আটক করে নিয়ে আসি। তার সাথে থাকা অপর ৩ চোরকে আটক করতে গ্রেফতারকৃত আফজালের কথা অনুযায়ী বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু ব্যাপক চেষ্টা চালিয়েও তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি।

চোর চক্রের বাড়ি মাদারীপুর জেলায়। তারা চাঁদপুর শহরের আবাসিক হোটেলে ভাড়া থেকে জেলার বিভিন্ন স্থানে চুরি ও ছিনতাই করে বলে চোর আফজল জানিয়েছে। এ সব চোরের সাথে ফরিদগঞ্জের কেউ জড়িত থাকতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন ফরিদগঞ্জের কেউ ঘটনার সাথে জড়িত নেই। তারা নিজেরা এখানে এসে চুরি করছে।

এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রকিব জানান, ঘটনা শোনার সাথে থানার অফিসারকে পাঠিয়ে চোরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ব্যাপারে যে বাড়িতে চোর প্রবেশ করেছে, তারা মামলা দিলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ৬/৭ মাস পূর্বে প্রবাসীর স্ত্রী শারমিন আক্তারের এ বাড়িতে বড় ধরনের চুরি সংঘটিত হয়। এলাকাবাসী জানান, সে ঘটনায় কোনো মামলা নেয়া হয়নি।

প্রকাশিত : ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার :

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর

166 জন পড়েছেন

Recommended For You

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়