যৌন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের গুরুত্বপূর্ণ ২০০টি প্রশ্ন উত্তর ✅

 

লজ্জা বা আড়ষ্ঠতার কারণে অনেকেই সেক্স নিয়ে খুব একটা ভাল ধারণা রাখেন না। ফলে ব্যক্তিগত যৌনজীবন হয়ে পড়ে একঘেঁয়েমীপূর্ণ এবং বৈচিত্র্যহীন। আবার অজ্ঞতার কারণে বিভিন্ন রকম যৌন সমস্যায় পতিত হবার সম্ভাবনাও থাকে।

এসব সমস্যা থেকে উত্তীর্ণ হতে সেক্স সিক্রেট জানাটা গুরুত্বপূর্ণ। তাই আজকের এই প্রতিবেদনে আমরা জানাবো যৌন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের উত্তর ও হাদিসের আলোকে বাসররাতে প্রশ্ন উত্তর।

২০০টিও বেশি প্রশ্ন উত্তর শেষে কিছু বিশেষ টিপস সহ সাজানো হয়েছে। আশাকরি আপনার যৌন বিষয়ক সকল প্রশ্নের উত্তর এই প্রতিবেদন থেকে পেয়ে যাবেন।

সহবাসের শুরু করার সময় দোয়া কি?

بِسْمِ اللّهِ اللّهُمَّ جَنِّبْنَا الشَّيْطَانَ وَ جَنِّبِ الشَّيْطَانَ مَا رَزَقْتَنَا
‘আল্লাহর নামে শুরু করছি, হে আল্লাহ! আমাদেরকে তুমি শয়তান থেকে দূরে রাখ এবং আমাদেরকে তুমি যা দান করবে (মিলনের ফলে যে সন্তান দান করবে) তা থেকে শয়তানকে দূরে রাখ।’

রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, এরপরে যদি তাদের দু’জনের মাঝে কিছু ফল দেয়া হয় অথবা বাচ্চা পয়দা হয়, তাকে শয়তান কখনো ক্ষতি করতে পারবে না। (বুখারী ৪৭৮৭)

. প্রশ্ন : সংগম শুরু করার পূর্বে সর্বপ্রথম কি করতে হবে?

gif maker

উত্তর : সংগম শুরু করার পূর্বে সর্ব প্রথম নিয়ত সহীহ করে নেয়া; অর্থাৎ, এই নিয়ত করা যে, এই হালাল পন্থায় যৌন চাহিদা পূর্ণ করার দ্বারা হারামে পতিত হওয়া থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

তৃপ্তি লাভ হবে এবং তার দ্বারা কষ্ট সহিষ্ণু হওয়া যাবে, ছওয়াব হাছেল হবে এবং সন্তান লাভ হবে। (সুত্র:- আহকামে জিন্দেগী, আহকামুল ইসলাম)

প্রশ্ন : বাসর ঘরে প্রবেশ করে কোন নামাজ পড়বে কি না?

উত্তর : পুরুষ বাসর ঘরে প্রবেশ করতঃ নববধুকে সহ দুই রাকআত (শুকরানা) নামায পড়বে। (সুত্র: – শিরআতুল ইসলাম, আহকামুল ইসলাম)

প্রশ্ন : নামায পড়ার পর কি করবে?

উত্তর : অতঃপর স্ত্রীর কপালের উপরিস্থিত চুল ধরে বিসমিল্লাহ বলে এই দুআ পাঠ করা সুন্নাত-

(বাংলা উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকা খাইরাহা ওয়া খাইরা মা যুবিলাত আলাইহি, ওয়া আউযুবিকা মিন শাররি হা ওয়া শাররি মা যুবিলাত আলাইহি)। (সুত্র: – ইমাদাদুল ফাতওয়া, আহকামুল ইসলাম)

প্রশ্ন : বাসর ঘরে ঢুকে নামায ও দোয়া পড়ার পর আর কোন আমল আছে কি না?

উত্তর : বিভিন্ন ইসলামী কিতাবে বাসরঘরে ঢুকে উপরোক্ত আমলগুলো করতে বলা হয়েছে। এরপর স্বামী-স্ত্রী নিজেদের মত নিজেরা পরিচিত হতে থাকবে।

তবে প্রথমে স্বামী মহর বিষয়ক আলোচনা করে নিবে। তা পূর্ণ আদায় না করে থাকলে স্ত্রী থেকে সময় চেয়ে নিবে। (সূত্র- আহকামুল ইসলাম)

প্রশ্ন: মলদ্বারে সহবাস করা কি হারাম?
মলদ্বারে সহবাস হারাম। কেননা, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,

gif maker

لا يَنْظُرُ اللهُ عَزَّ وَجَلَّ إِلَى رَجُلٍ جَامَعَ امْرَأَتَهُ فِي دُبُرِهَا

যে ব্যক্তি তার স্ত্রীর মলদ্বারে সঙ্গম করে, আল্লাহ্ তার দিকে (দয়ার দৃষ্টিতে) তাকান না। (ইবন মাজাহ ১৯২৩)

প্রশ্ন: ঋতুবতী অবস্থায় সহবাস করা কি হারাম?
ঋতুবতী অবস্থায় সহবাস হারাম। কেননা, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,

مَنْ أَتَى حَائِضًا أَوِ امْرَأَةً فِي دُبُرِهَا أَوْ كَاهِنًا فَصَدَّقَهُ بِمَا يَقُولُ فَقَدْ كَفَرَ بِمَا أُنْزِلَ عَلَى مُحَمَّدٍ

যে ব্যাক্তি ঋতুবতী স্ত্রীর সাথে সহবাস করলো অথবা স্ত্রীর মলদ্বারে সঙ্গম করলো অথবা গণকের নিকট গেলো এবং সে যা বললো তা বিশ্বাস করলো, সে অবশ্যই মুহাম্মাদ ﷺ -এর উপর নাযিলকৃত জিনিসের (আল্লাহ্‌র কিতাবের) বিরুদ্ধাচরণ করলো। (তিরমিযী ১৩৫ আবূ দাঊদ ৩৯০৪)

প্রশ্ন : দাঁড়িয়ে সহবাস করা যাবে কি না?

উত্তর : হ্যাঁ, দাঁড়িয়েও সহবাস করা যাবে। যারা বলে দাঁড়িয়ে সহবাস করা যায় না তাদের কথা ঠিক নয়। তাই ঐ কথায় কান দেয়া যাবে না। (ইতহাফুস সাদাতিল মাত্তাকীন, আল কাউসার, আহকামে জিন্দেগী)

প্রশ্ন : বাসর রাতে নববধূ কিভাবে সজ্জিত হবে?
উত্তর : নববধূ মেহেদি ব্যবহার করবে, অলংকার পরবে এবং সাধ্যমত শরিয়ত সম্মত উপায়ে সেজেগুজে উত্তম পোশাক-পরিচ্ছেদে সজ্জিত হবে।

প্রশ্ন : বাসর ঘরে কোনো নামাজ পড়বে কি না?
উত্তর : হ্যাঁ, বাসর ঘরে স্বামী-স্ত্রী দুই রাকাত (শুকরানা) নামাজ পড়বে।

প্রশ্ন : নামাজ পড়ার পর কী করবে?
উত্তর : নামাজ শেষে স্ত্রীর কপালের দিকে সামনের চুল ধরে দোয়া পড়া সুন্নত। দোয়াটি হলো

‘আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকা খাইরাহা ওয়া খাইরা মা যুবিলাত আলাইহি, ওয়া আউযুবিকা মিন শাররিহা ওয়া শাররি মা যুবিলাত আলাইহি’

অর্থ : হে আল্লাহ, আমি আপনার কাছে তার (স্ত্রী) কল্যাণের প্রার্থনা করছি এবং প্রার্থনা জানাই তার সেই কল্যাণময় স্বভাবের যার ওপর আপনি তাকে সৃষ্টি করেছেন।

আর আমি আপনার আশ্রয় চাচ্ছি তার অনিষ্ট থেকে এবং তার সেই অকল্যাণময় স্বভাবের অনিষ্ট থেকে যার ওপর আপনি তাকে সৃষ্টি কছেন।

প্রশ্ন : নামাজ ও দোয়া পড়ার পর অন্য কোনো আমল আছে কি?
উত্তর : বিভিন্ন ইসলামি গ্রন্থে বাসর ঘরে উপরোক্ত আমলগুলো করতে বলা হয়েছে।

এরপর স্বামী-স্ত্রী নিজেদের মতো পরস্পর পরিচিত হবে। তবে প্রথমে স্বামী মহর বিষয়ক আলোচনা করে নিবে। তখন পূর্ণ মহর আদায় না করতে পারলে স্ত্রী থেকে সময় চেয়ে নিবে।

প্রশ্ন : অনেকে বলে, বাসর রাতে স্ত্রীর সাথে সহবাস করা অনুচিত, কথাটি ঠিক কি?
উত্তর : না, এধরনের কথা ঠিক নয়। এ সময় যে কোনো উপভোগের জন্য স্বামী-স্ত্রী পূর্ণ স্বাধীন। তারা সন্তুষ্টচিত্তে যা ইচ্ছা করতে পারে।

তবে প্রথমরাত হিসেবে একে অপরের চাহিদার প্রতি লক্ষ রাখা উচিত। অবশ্য বাসর রাতে স্ত্রী মাসিক স্রাবে আক্রান্ত থাকলে সুস্থ না পওয়া পর্যন্ত সহবাস করা যাবে না।

প্রশ্ন : সংগম অবস্থায় স্ত্রীর যোনীর দিকে নজর দেয়া যাবে কি না?

উত্তর : সংগম অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে নজর না দেয়া। তবে হযরত ইবনে ওমর (রা.) সংগম, অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে দৃষ্টি দয়া উত্তেজনা বৃদ্ধির সহায়ক বিধায় এটাকে উত্তম বলতেন। (সূত্র – শরহুন নুকায়া ও হিদায়া)

প্রশ্ন : বীর্যপাতের সময় কোন দোয়া পড়বে?

উত্তর : বীর্যপাতের সময় নিম্নোক্ত দুআটি পড়বে- বাংলা উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা লা তাজআল লিশ্শাইতানি ফিমা রাযাকতানী নাসীবান।

অর্থ : হে আল্লাহ, যে সন্তান তুমি আমাদেরকে দান করবে তার মধ্যে শয়তানের কোন অংশ রেখ না। (আহকামে জিন্দেগী)

প্রশ্ন : সংগম অবস্থায় স্ত্রীর যোনী স্বামী চোষতে পারবে কি না? এবং স্বামীর লিঙ্গ স্ত্রী চোষতে পারবে কি না?

উত্তর : সংগম অবস্থায় স্বামী স্ত্রী একে অপরের লজ্জাস্থানকে চোষা এবং মুখে নেওয়া সম্পূর্ণ নিষেধ, এবং মাকরুহ ও গুনাহের কাজ। এটা কুকুর, গরু, বকরী ইত্যাদি প্রানীর স্বভাবের মত। তাই এ কাজ থেকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে।

চিন্তা করে দেখুন যে মুখে পবিত্র কালিীমা পড়া হল, কুরআন শরীফ তিলাওয়াত করা হয়, দরুদ শরীফ পড়া হয়, তাকে এমন নিকৃষ্ট কজে ব্যবহার করতে মন কিভাবে চায়। তাই এ কাজ মুমিনের কাজ হতে পারে না। (সুত্র: ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়া ও ফাতাওয়ায়ে রহীমিয়া, আহকামে জিন্দেগী)

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

 হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)

(শতভাগ বিশ্বস্ত ও প্রতারণামুক্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান)

ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার

হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।

যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত)

+88 01762240650, +88 01834880825

+88 01777988889 (Imo-whatsApp)

শ্বেতী রোগ, যৌন রোগ, ডায়াবেটিস,অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা),

ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর , আলসার, টিউমার

ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

প্রশ্ন : সংগমের বিশেষ কিছু আদব ও বিধি-নিষেধ জানতে চাই?

উত্তর : সংগমের কিছু আদব ও নিয়ম নিন্মরূপ- কোন শিশু বা পশুর সামনে সংগমে রত না হওয়া, পর্দা ঘেরা স্থানে সংগম করা, সংগম শুরু করার পূর্বে শৃঙ্গার (চুম্বন, স্তন মর্দন ইত্যাদি) করবে।

বীর্য, যৌনাঙ্গের রস ইত্যাদি মোছার জন্য এক টুকরা কাপড় রাখা, সংগম অবস্থায় বেশী কথা না বলা, বীর্যের ও স্ত্রীর যৌনাঙ্গের প্রতি দৃষ্টি না করা, সংগম শেষে পেশাব করে নেয়া, এক সংগমের পর পুনর্বার সংগমে লিপ্ত হতে চাইলে যৌনাঙ্গ এবং হাত ধুয়ে নিতে হবে।

বীর্যপাতের পরই স্বামীর নেমে না যাওয়া বরং স্ত্রীর উপর অপেক্ষা করা, যেন স্ত্রীও তার খাহেশ পূর্ণ মাত্রায় মিটিয়ে নিতে পারে, সংগমের পর অন্ততঃ বিছুক্ষণ ঘুমানো উত্তম, জুমুআর দিনে সংগম করা মুস্তাহাব, সংগমের বিষয় কারও নিকট প্রকাশ করা নিষেধ।

এটা একদিকে নির্লজ্জতা, অন্যদিকে স্বামী/স্ত্রীর হক নষ্ট করা, সংগম অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে নজর না দেয়া, তবে হযরত ইবনে ওমর (রা.) সংগম, অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে দৃষ্টি দয়া উত্তেজনা বৃদ্ধির সহায়ক বিধায় এটাকে উত্তম বলতেন। (সুত্র:- আহকামে জিন্দেগী)

প্রশ্ন : কোন কোন অবস্থায় স্ত্রীর সাথে সংগম করা যাবে না?

উত্তর : নিম্নোক্ত অবস্থায় স্ত্রীর সাথে সংগম করা যাবে না। স্ত্রীর মাসিক বা প্রসবকালীন স্রাব চলা কালে। এতেকাফ অবস্থায়। রোজার দিনের বেলায়। এহরাম অবস্থায়।

প্রশ্ন : অনেকে বলে বাসর রাতে স্ত্রীর সাথে সহবাস করা অনুচিত, কথাটি ঠিক কি না?

উত্তর : না, এধরণের কথা ঠিক নয়, এ সময় যে কোন উপভোগের জন্য স্বামী-স্ত্রী পূর্ণ স্বাধীন। তারা সন্তুষ্টচিত্তে যে কোন কাজ করতে পারে। তবে অবশ্যই প্রথমরাত হিসেবে একে অপরের চাহিদার প্রতি লক্ষ রাখা উচিত। (সূত্র- আহকামুল ইসলাম, আহমাকে জিন্দেগী)

প্রশ্ন : অনেকে বলে, বাসর রাতে স্ত্রীর সাথে সহবাস করা অনুচিত, কথাটি ঠিক কি?
উত্তর : না, এধরনের কথা ঠিক নয়। এ সময় যে কোনো উপভোগের জন্য স্বামী-স্ত্রী পূর্ণ স্বাধীন। তারা সন্তুষ্টচিত্তে যা ইচ্ছা করতে পারে।

তবে প্রথমরাত হিসেবে একে অপরের চাহিদার প্রতি লক্ষ রাখা উচিত। অবশ্য বাসর রাতে স্ত্রী মাসিক স্রাবেআক্রান্ত থাকলে সুস্থ না পওয়া পর্যন্ত সহবাস করা যাবে না।

প্রশ্ন : সংগম অবস্থায় স্ত্রীর যোনীর দিকে নজর দেয়া যাবে কি না?

উত্তর : সংগম অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে নজর না দেয়া। তবে হযরত ইবনে ওমর (রা.) সংগম, অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে দৃষ্টি দয়া উত্তেজনা বৃদ্ধির সহায়ক বিধায় এটাকে উত্তম বলতেন। (সূত্র – শরহুন নুকায়া ও হিদায়া)

প্রশ্ন : বীর্যপাতের সময় কোন দোয়া পড়বে?

উত্তর : বীর্যপাতের সময় নিম্নোক্ত দুআটি পড়বে- বাংলা উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা লা তাজআল লিশ্শাইতানি ফিমা রাযাকতানী নাসীবান।

অর্থ : হে আল্লাহ, যে সন্তান তুমি আমাদেরকে দান করবে তার মধ্যে শয়তানের কোন অংশ রেখ না। (আহকামে জিন্দেগী)

বাসর ঘর প্রশ্ন
প্রশ্ন : সংগম অবস্থায় স্ত্রীর যোনী স্বামী চোষতে পারবে কি না? এবং স্বামীর লিঙ্গ স্ত্রী চোষতে পারবে কি না?

উত্তর : সংগম অবস্থায় স্বামী স্ত্রী একে অপরের লজ্জাস্থানকে চোষা এবং মুখে নেওয়া সম্পূর্ণ নিষেধ, এবং মাকরুহ ও গুনাহের কাজ। এটা কুকুর, গরু, বকরী ইত্যাদি প্রানীর স্বভাবের মত। তাই এ কাজ থেকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে।

চিন্তা করে দেখুন যে মুখে পবিত্র কালিীমা পড়া হল, কুরআন শরীফ তিলাওয়াত করা হয়, দরুদ শরীফ পড়া হয়, তাকে এমন নিকৃষ্ট কজে ব্যবহার করতে মন কিভাবে চায়। তাই এ কাজ মুমিনের কাজ হতে পারে না।
(সুত্র: ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়া ও ফাতাওয়ায়ে রহীমিয়া, আহকামে জিন্দেগী)

প্রশ্ন : সংগমের বিশেষ কিছু আদব ও বিধি-নিষেধ জানতে চাই?

উত্তর : সংগমের কিছু আদব ও নিয়ম নিন্মরূপ- কোন শিশু বা পশুর সামনে সংগমে রত না হওয়া, পর্দা ঘেরা স্থানে সংগম করা, সংগম শুরু করার পূর্বে শৃঙ্গার (চুম্বন, স্তন মর্দন ইত্যাদি) করবে।

বীর্য, যৌনাঙ্গের রস ইত্যাদি মোছার জন্য এক টুকরা কাপড় রাখা, সংগম অবস্থায় বেশী কথা না বলা, বীর্যের ও স্ত্রীর যৌনাঙ্গের প্রতি দৃষ্টি না করা, সংগম শেষে পেশাব করে নেয়া, এক সংগমের পর পুনর্বার সংগমে লিপ্ত হতে চাইলে যৌনাঙ্গ এবং হাত ধুয়ে নিতে হবে।

বীর্যপাতের পরই স্বামীর নেমে না যাওয়া বরং স্ত্রীর উপর অপেক্ষা করা, যেন স্ত্রীও তার খাহেশ পূর্ণ মাত্রায় মিটিয়ে নিতে পারে, সংগমের পর অন্ততঃ বিছুক্ষণ ঘুমানো উত্তম, জুমুআর দিনে সংগম করা মুস্তাহাব, সংগমের বিষয় কারও নিকট প্রকাশ করা নিষেধ।

এটা একদিকে নির্লজ্জতা, অন্যদিকে স্বামী/স্ত্রীর হক নষ্ট করা, সংগম অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে নজর না দেয়া, তবে হযরত ইবনে ওমর (রা.) সংগম, অবস্থায় স্ত্রী-যোনীর দিকে দৃষ্টি দয়া উত্তেজনা বৃদ্ধির সহায়ক বিধায় এটাকে উত্তম বলতেন। (সুত্র:- আহকামে জিন্দেগী)

প্রশ্ন : কোন কোন অবস্থায় স্ত্রীর সাথে সংগম করা যাবে না?

উত্তর : নিম্নোক্ত অবস্থায় স্ত্রীর সাথে সংগম করা যাবে না। স্ত্রীর মাসিক বা প্রসবকালীন স্রাব চলা কালে। এতেকাফ অবস্থায়। রোজার দিনের বেলায়। এহরাম অবস্থায়।

প্রশ্ন : অনেকে বলে বাসর রাতে স্ত্রীর সাথে সহবাস করা অনুচিত, কথাটি ঠিক কি না?

উত্তর : না, এধরণের কথা ঠিক নয়, এ সময় যে কোন উপভোগের জন্য স্বামী-স্ত্রী পূর্ণ স্বাধীন। তারা সন্তুষ্টচিত্তে যে কোন কাজ করতে পারে। তবে অবশ্যই প্রথমরাত হিসেবে একে অপরের চাহিদার প্রতি লক্ষ রাখা উচিত। (সূত্র- আহকামুল ইসলাম, আহমাকে জিন্দেগী)

এবার সংখিপ্তকারে যৌন প্রশ্ন ও উত্তর
১) কারো শরীর দেখে কি সেক্সচুয়াল সক্ষমতা বোঝা সম্ভব?
✅ না।

২) অনেক দূরে থাকা প্রিয়জনের সাথে ফোন সেক্স করতে চান অথচ বলতে লজ্জা পাচ্ছেন, লজ্জা ভাঙ্গবেন কীভাবে?

✅ প্রথমে তাকে মজার এসএমএস পাঠান। দেখবেন ইজি হয়ে যাবেন তার সাথে।

৩) পানির নিচে কনডম কতটা কার্যকর?
✅ তা এখনো পরীক্ষা করা হয়নি তাই বিশ্বস্ততার সার্থে সতর্ক হওয়া উচিত।

৪) পছন্দের ব্যক্তির কাছে নিজেকে বিশ্বস্ত করার জন্য সবচেয়ে ভালো গান কি হতে পারে।
✅ জাস্টিফাই মাই লাভ বাই ম্যাডোনা।

৫) যদি পার্টনার আপনার চেয়ে অনেক বেশি লম্বা হয় তবে শারীরিক সম্পর্ক করার ক্ষেত্রে কি করবেন।
✅ এমন স্থান এবং আসন নির্বাচন করা উচিত যেখানে আপনি সিক্সড কন্ট্রোল করতে পারবেন। যেমন মেয়ে পার্টনার উপরে থাকা।

৬) বো জব এর সময় অনেকেই দাঁত ব্যবহার করে, আপনি কতটা জানেন।
✅ খুব কম সংখ্যক যুগলই এমনটা করে থাকে। তবে বো জবের সময় এটা করতে চাইলে অবশ্যই পার্টনারকে জিজ্ঞাস করে নিবেন।

৭) প্রিয়জনের সঙ্গে যখন যৌন উত্তেজনা চরমে তখন সে আপনাকে কিছুই করতে দেয়না। এখানে কি ভুলবোঝাবুঝির অবকাশ আছে?
✅ এটা সকলের ক্ষেত্রে হয়না ।

৮) পুরুষের কমন ফ্যান্টাসি কী?
✅ একাধিক নারীর সঙ্গে সমানতালে সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়া।

৯) উত্তেজনার সময় পুরুষের বিশেষ অঙ্গ কিছুটা বেঁকে যায, এতে কি উদ্বিগ্ন হবার কারণ আছে?
✅ মাঝে মাঝে বেঁকে যাওয়া সাধারণ ঘটনা। তবে আঘাত জনিত কারণে ঘটলে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া উচিত।

১০) পিরিয়ড এর সময় রুক্ষম এবং শুষ্ক অনুভূতি হবার কারণ কী?
✅ কারণ ঐ সময় গর্ভ সঞ্চার হবার সম্ভাবনা অনেক কম থাকে।

১১) সেক্স নিয়ে ভাবলে কি মেয়েদের অরগাজম হয়?
✅ এটা মাত্র ২ শতাংশ নারীর হয় এবং তারা অবশ্যই ভাগ্যবান।

১২) ছত্রাক জাতীয় ইনফেকশনে আক্রান্ত হলে কি সেক্স করা উচিত?
✅ পার্টনারও এই ছত্রাক জাতীয় রোগে আক্রান্ত হতে পারে তাই অধিক সচেতন হওয়া বাঞ্ছনীয়।

১৩) প্রত্যেকেরই কি জি-সক্সট থাকে?
✅ হুম। এটা প্রত্যেক স্তন্যপায়ী প্রানীরই থাকে।

১৪) শুষ্ক অবস্থায় সেক্সের ভালো উপায় কি হতে পারে?
✅ এন্টিহিস্টামিন জাতীয় ঔষধ গ্রহণ করলে এমনটি হতে পারে। তাই এটি গ্রহণ না করে এবং ওয়াটার বেস লুব ব্যবহার করে সমস্যা সমাধান হতে পারে।

১৫) সেক্সুয়ালি টেন্সমিটেড ডিজিজ পরীক্ষা কি ঘরেই করা সম্ভব, না ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া উচিত?

✅ ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিশ্চিত হওয়াই উত্তম।

১৬) কীভাবে পেরিনিয়ামকে সর্বোচ্চ উত্তেজিত করা যায ?
✅ আলতোভাবে দুই আঙ্গুল দিয়ে চাপ দেয়া যেতে পারে।

১৭) বু বল কি সত্যিকারে আছে?
✅ দীর্ঘস্থায়ী মিলনের কারণে অন্ডকোষ এবং পেরিনিয়ামে অস্বস্তির সৃষ্টি হতে পারে তবে কোন ব্যথা অনুভূত হয় না ।

১৮) সেক্সের সময় ভাইব্রেটর ইউস করার উত্তম পদ্ধতি কি?
✅ সেক্সের ক্ষেত্রে ভাইব্রেটর ইউস করার সময় সচেতনতা অবলম্বন করা উচিত।

১৯) পার্টনারকে আরো বেশি কাছে পাবার জন্য কি ধরনের ভাষা ব্যবহার করা যেতে পারে?

✅ আমি তোমাকে সব সময়ই অনুভব করি যা তুমি নিজেও কর আমার প্রতি। তুমি সব সময়ই সব অবস্থাতে অনেক বেশি উত্তম।

২০) আপনি যা করতে চান সে বিষয়ে পার্টনারের ইতিবাচক সাড়া পাবার উপায় কী?

✅ পেট কিংবা তার বুকে সেক্সের দৃষ্টিতে তাকান। যদি তাতেও না হয় তবে তাকে বলতে পারেন আপনার অনুভূতির কথা।

২১) ছোট্ট ভগঙ্কুর সমস্যা আছে। এটা কি অর্গাজমের ক্ষেত্রে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে?
✅ এক্ষেত্রে কখনোই অতিরিক্ত উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে না যাওয়াই ভাল।

২২) পার্টনারের সঙ্গে অরগাজম উপভোগ করতে পারছি না। এটা কি কোন সমস্যা?
✅ না, এটা কোন সমস্যা না।

২৩) যদি পার্টনার এবং নিজে একই ধরনের যৌন রোগে আক্রান্ত হয় এক্ষেত্রে কি কনডম ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক?

✅ না, এক্ষেত্রে দু’জনের একই চিকিৎসা নেয়া যেতে পারে। এন্টিবায়োটিক বেশি ফল দিবে।

২৪) সেক্সের ক্ষেত্রে পুরুষের লং লাস্টিং কীভাবে সম্ভব?
✅ বেশির ভাগ সময়ই পার্টনারকে সুইস অবস্থায় রাখতে হবে। এতে করে লং লাস্টিং সম্ভব হবে।

২৫) সেক্সে পরিপূর্ণ তৃপ্তির জন্যর জন্য কোন ধরনের খাবার গ্রহণ করা যেতে পারে কি?
✅ রসুন এবং এসপারাগাস এবং বেশি করে আনারস খেতে পারেন।

২৬) সক্সর্শ করা আগেই কি পরিপক্ক ব্যক্তি তার পার্টনারের সেক্সচুয়াল সক্ষমতা জানতে পারে?
✅ নিশ্চয়ই সেক্স জুয়া খেলা কিংবা প্রজাপতির মত নয়।

২৭) সুইস অবস্থায় পার্টনার অমনোযোগী হওয়াটা কি কোন ভুল?
✅ না, তবে তাকে এ অবস্থায় থাকার জন্য পুরুষকে সহযোগিতা করা উচিত।

২৮) নারীরা কি সেক্সের সময় নিপলকেও সমানে সমানে চালাতে পছন্দ করে।

✅ কেউ কেউ করতে চায়, আবার ব্যতিক্রমও আছে। এক্ষেত্রে পার্টনারকে মূল্যায়ন করুন।

২৯) একই সময়ে একজন নারীর কতবার অরগাজম হতে পারে?

✅ এটা নিশ্চিতভাবে বলা যাবে না, তবে নিজের অবস্থার রেকর্ড করলে হয়ত জানা যাবে।

৩০) নারীর অরগাজম যদি দ্রুত হয় তবে নারী এবং পুরুষের অরগাজম কি একই সময়ে ঘটানো সম্ভব?

✅ নিজের বিরতির সময়ই আরগাজম নিজ গতিতে চলতে থাকে। তাই প্রথম বার না হলেও ২য় বার চেষ্টা করা যেতে পারে।

৩১) অ্যানল করার চেষ্টা করার সময় ভয় হয়, কোন আঘাত লাগে কি না, এটাকে আনন্দদায়ক করার জন্য কি করা যেতে পারে?

✅ প্রথমত পরিপূর্ণ লুব ব্যবহার করুণ এবং আঙ্গুল দিয়ে প্রথমে পরীক্ষা করুন তারপর ধীরে ধীরে প্রবেশ করান।

৩২) কি করলে খুব সহজে যৌন কামনা সৃষ্টি করা যায়?
✅ মনে মনে সেক্সি ভাবনায় তা অনেক সহজ হয়।

৩৩) যদি দীর্ঘ সময় যাবত ভায়াগ্রা ব্যবহার করা হয় তবে তা কি কোন সমস্যার সৃষ্টি করবে?
✅ এটা এখনো জানা সম্ভব হয়নি, তবে দীর্ঘ দিন ব্যবহার করলে শারীরিকভাবে এর প্রতি নির্ভরশীল হবার সম্ভাবনা আছে।

৩৪) কোন সিরিয়াল কিসারের সাথে ডেটিং করলে কি বুঝতে হবে তার চুষার অভ্যাস খুব বেশি?
✅ হতেও পারে।

৩৫) আমি কিভাবে পার্টনারকে অনেক বেশি আকর্ষণীয় ভাবে পেতে পারি?
✅ পার্টনারকে একাজে প্রলুব্ধ করতে হবে, তার শরীরে আলতোভাবে স্পর্শ করা যেতে পারে, যা অনেক বেশি আকর্ষণ করবে।

হাদীসের আলোকে স্বামী স্ত্রীর মিলন; সহবাসের নিয়ম ও পদ্ধতি

৩৬) সেক্স করার পর কেন পার্টনার অনেক বেশি দূরে চলে যায়?
✅ তখন ঐসব চিন্তা তার মাথায় না থাকায় দূরে সরতে চায়।

৩৭) মিলিত হবার পর কি মুখের স্পর্শ প্রয়োজন হয়?
✅ না, এটা শুধু মিলিত হবার আগেই স্পর্শকাতর স্থানে করা যেতে পারে।

৩৮) একজনের পক্ষে কি অনেক বেশি মাস্টারবেশন করা সম্ভব?
✅ এটা নিজের মনোযোগের ব্যাপার।

৩৯) ইজিকুলেট ছাড়াই কি অরগাজম হতে পারে?
✅ হ্যাঁ

৪০) সেক্সের সময় কিভাবে পিউবোকক্কিজিয়াস মাসেল ব্যবহার করা যায়?
✅ মিলনরত অবস্থায় নমনীয় হতে হবে এবং প্রকাশ করতে হবে। বিভিন্নভাবেই এটা করা যেতে পারে।

৪১) সেক্সের সময় এমন কিছু কি আছে যা অধিক আদ্র করে?
✅ না

৪২) কখন দ্রুত ইজিকুলেট হয়?
✅ যদি অধিক সময় আশা না করে বা মিলনের সময় বাজে চিন্তা করে।

৩) আপনি হয়ত নিয়ম মানেন কিন্তু করলেন ভিন্ন যেমন ছাত্রী শিক্ষক প্রেমের সম্পর্ক, এছাড়াও বেডরুমে ফেন্টাসি আর কি হতে পারে?
✅ চোর – পুলিশ, ব্রেড – অ্যানজেলিনা।

৪৪) সেক্সের সময় প্রস্রাব বোধ হয় কেন?
✅ কারণ মুত্রথলির কাছাকছি যৌনাঙ্গ চলে আসে। এটা সত্যিকার অর্থেই হতে পারে।

৪৫) নারীদের কি সেক্সচ্যুয়াল সক্ষমতা বেশি?
✅ এটা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

৪৬) জঠর নিয়ে সচেতন কিন্তু ঢেকে রাখতে না চাইলে সেক্সের সময় কি করা উচিত?
✅ এটাকে ডগিং স্টাইলে করলে ভাল ফল পাওয়া যাবে।

৪৭) স্পাঙ্ক করতে চান,কিভাবে পার্টনারকে বুঝাবেন?
✅ প্রথমেই স্পাঙ্ক করুন।

৪৮) ভাইব্রেটর ইউস করলে কি উত্তেজনা কমে?
✅ সাময়িকভাবে এটা হতে পারে।

৪৯) হ্যান্ড জব করার সময় কিভাবে উত্তেজনা ধরে রাখা যায়?
✅ চিন্তা করুন কি ধরনের শক্ত জিনিস ব্যবহার করে করতে সক্ষম হবেন।

৫০) সেক্সের পরের ব্যথা হলে কি করতে হবে?
✅ ভালো লুব ব্যবহার করা যেতে পারে, আঘাত পেলে ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করা উচিত।

৫১) সেক্স টয় কিভাবে পরিস্কার করতে হয়?
✅ গরম পানিতে মিল্ড সাবান দিয়ে ধুতে হবে।

৫২) কনডম লাগানো উত্তম পদ্ধতি কি?
✅ মুখ এবং হাতের স্পর্শে মাথা থেকে লাগাতে হয়।

৫৩) পুরুষাঙ্গ যদি ছোট হয় তবে কিভাবে তা বড় অনুভব সম্বব?
✅ ডগি স্টাইল সেক্স।

৫৪) দীর্ঘপুচ্ছ না হলে কি করা উচিত?
✅ হাতের কাছে সব সময় টিস্যু রাখতে হবে এবং আলতোভাবে মুখে ঘষতে হবে।

৫৫) পার্টনারকে না জানিয়েও কিভাবে তার যৌন সমস্যা (এসটিডি) পরীক্ষা করা যায়?
✅ পার্টনারকে আদর করার সময় সতর্কতার সাথে তা পরীক্ষা যেতে পারে।

৫৬) পিছন থেকে চাইলে কিভাবে করতে হবে?
✅ হাত দিয়ে আলতো ভাবে ঘষতে হবে তারপর আস্তে আস্তে প্রবেশ করা যাবে।

৫৭) বিশেষ মুহুর্তে যদি কনডম ছিদ্র হয়ে যায় তবে কি করা উচিত?
✅ যদি পিল নেয়া অবস্থায় না থাকে তবে এসটিডি টেষ্ট করা দরকার।

৫৮) কনডম না ফুঁটা হবার কোন নির্দিষ্ট পদ্ধতি আছে কি?
✅ না, নিজের প্রচেষ্টায় এটা সম্ভব।

৫৯) গরম টিউবে করা কি উচিত হবে?
✅ না

৬০) প্রিয়জনকে বন্ধনে রাখার জন্য কি করা যেতে পারে?
✅ নিজের অতি নিকটে বয় ফ্রেন্ডকে রাখা এবং নিজের প্রতি তাকে নির্ভরশীল করে নিতে হবে।

কিভাবে চিনবেন অধিক চাহিদার যৌন আবেদনময়ী মেয়ে?

৬১) পার্টনারকে সেক্সের আগে পরিস্কার হয়ে আসার কথা বলা উচিত?
✅ না, তবে সেপ্টির জন্য তাকে বলতে পারেন।

৬২) সেক্সের সময় গর্ভাশয়ের সংকীর্ণ অংশে আঘাতে সন্তান মারা যাবার সম্ভাবনা থাকে, এ অবস্থায় কি করা উচিত?
✅ এঅবস্থায় সতর্কতার সাথে আলতোভাবে প্রবেশ করানো উচিত।

৬৩) ক্লিটোরাল উত্তেজনায় উত্তম পদ্ধতি কি?
✅ পুরুষ উপরে থাকলে ভাল।

৬৪) সিএটি পজিশন বলতে কি বুঝায়?
✅ কইটাল ইলিগমেন্ট পদ্ধতি।

৬৫) মরনিং উড মানে কি সকালে সেক্স বুঝায়?
✅ না, তবে ঐসময় সে খুশি থাকে।

৬৬) সহবাস না করেও ফেন্টাসি আছে এটা কিভাবে বলা উচিত?
✅ পার্টনারকে বলুন আপনার একটা যৌন স্বপ্ন আছে, সে শুনতে চায় কিনা জিজ্ঞাস করাই উত্তম।

৬৭) বেশি বেশি মিলিত হবার ইচ্ছে কীভাবে বাস্তবায়ন করা যায়?
✅ এক্ষেত্রে পার্টনারের ফিটনেস এবং ইচ্ছেটা তৈরি করা জরুরি।

৬৮) মিলিত হবার সময় কাতুকুতু লাগলে কি করা উচিত?
✅ পেশিকে আরামে রাখতে হবে। যা করছেন তার প্রতি পূর্ন মনোযোগ দিন।

৬৯) পুরুষ ও নারীর অরগাজমের অমিল কেন?
✅ কারণ পুরুষ ব্যাটারির পাওয়ারে চলেন না।

৭০) পিরিয়ডের সময় পরিচ্ছন্ন সেক্স কীভাবে করা যায়?
✅ ঝরনার নিচে কিংবা নিজের নিচে তোয়ালে দিয়ে।

৭১) ৬৯ পদ্ধতির জন্য ভাল পদ্ধতি কি?
✅ নিজে উপরে থাকা অথবা সাইড বাই সাইড।

৭২) পাবলিক স্থানে কিন্তু অধিক পাবলিক স্থানে নয় এমন জায়গা কি হতে পারে?
✅ শান্ত রাস্তার পাশে প্রাইভেট কারে করা যেতে পারে।

৭৩) পার্টনার ড্রিংক করা অবস্থায় যৌনতা ভুলে যায়, কি করা উচিত?
✅ বেশি পরিমাণ ড্রিংক বন্ধ করতে হবে।

৭৪) মাত্রাতিরিক্ত সেক্স করা কি সম্ভব?
✅ না

৭৫) শরীরের কোন কোন অঙ্গ অজানা যৌন উত্তেজক?
✅ মাথার ত্বক এবং নাসারন্ধ্র।

৭৬) উত্তেজিত অবস্থায় পুরুষাঙ্গের দৈর্ঘ্য কত ?
✅ ৫.৫ থেকে ৬.২ ইঞ্চি

৭৭) বয়ফ্রেন্ড নিজের থেকে প্রায় ১ ফুট লম্বা এবং বেডরুমে সব সময় লাইনআপ করা যায় না । ভাল পজিশন কি হতে পারে?
✅ পা ফাঁক করে ভাল পজিশন তৈরি করা যেতে পারে।

৭৮) পুরুষের এসটিডি টেস্ট করার ভাল পদ্ধতি কি হতে পারে?
✅ দুজনে একসাথে এসটিডি করা।

৭৯) ওরাল করার পর বিরতিতে কি করা উচিত?
✅ নিজের হাত চাটা এবং তার উরু এবং পেটে কিস করা যেতে পারে।

৮০) অপ্রকাশিত অনলাইন সেক্স কি চ্যাটিং হিসাবে গণ্য হবে?
✅ যদি সে না প্রকাশ করে তবে তার জন্য হ্যাঁ হবে।

আরো পড়ুন: বিশ্ববিস্মিত সেরা ২০টি উদ্ভট ও অবাক করা রেষ্টুরেন্ট!

৮১) সেক্সের সময় যদি অরগাজম না হয় তার মানে কি বুঝতে হবে?
✅ সে মনকষ্টে ভুগতে পারে। তাই তার মনকষ্ট লাগবে তার সাথে কথা বলা উচিত।

৮২) বয়ফ্রেন্ডের সাথে যৌন দৃশ্যের ভিডিওতে অংশ নেয়ার সময় কি মনে রাখা উচিত?
✅ ওয়াইড শর্ট এবং শর্ট লাইটিং ব্যবহার করা দরকার।

৮৩) কনডম সাইজ কি আসলেই একটা বড় ব্যাপার?
✅ বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সকল পুরুষের জন্য কনডম সাইজ একই হয় ,তবে কম্ফোর্ট ফিল করার জন্য বড় সাইজ ব্যবহার করা যেতে পারে।

৮৪) সেক্স করার পর পুরুষের ঝাকুনি মারার কারণ কি?
✅ এটা অরগাজমের কারণে হয়।

৮৫) ফিমেল কনডম এবং মেল কনডম কি একই ভাবে নিরাপদ?
✅ ফিমেল অপেক্ষাকৃত কম ইফেকটিভ এবং অনেক বেশি ঝুকিপূর্ণ ।

এমন ২০টি খাবার, যা আপনার যৌনশক্তিকে দ্বিগুণ করবে!

৮৬) কনডমের সেপটি না জেনে ব্যবহার করা উচিত হবে কিনা ?
✅ ইনফেকশন তৈরী করতে পারে এবং সেই সাথে নানা ধরনের রোগে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা থাকে।

৮৭) পার্টনারের পুরুষাঙ্গ অনেক বড় এরকম অনুভব করা কি কল্পনা ?
✅ হতে পারে।

৮৮) দুজনেই সেক্স টয় ব্যবহার করে কি পার্টনারকে আরাম দেয়া যায়?
✅ পার্টনারের উপর নির্ভর করবে।

৮৯) মাঝে মাঝে সেক্সের সময় কুইফ হতে হয়। শুরুতে করা কি উত্তম?
✅ এক্ষেত্রে অনেক বেশি সতর্ক হওয়া উচিত।

৯০) মেয়েদের গোপন অঙ্গের সাইজটা কোন ফ্যাক্ট কিনা?
✅ টাইটনেসে কিছু ভিন্নতা থাকতে পারে,তবে এটা কোন ফ্যাক্ট না।

৯১) খৎনা না করা পুরুষাঙ্গ কিভাবে পরিচালনা করতে হয়?
✅ কেউ কেউ বিষয়টিকে অনেক বেশি সেনসেটিভ ভাবে ।

৯২) হ্যান্ড জবে পূর্ব অভিজ্ঞরা কি মাঝে মাঝে তা করে?
✅ হ্যাঁ

৯৩) কনডম ব্যবহার সত্ত্বেও নিজেকে নিরাপদ মনে হয়না। পার্টনারকে এটা কিভাবে বোঝাতে হবে?
✅ পার্টনারের চরম যৌন উত্তেজনা না আসার আগেই তাকে বলতে হবে।

৯৪) পুরুষাঙ্গ কি ভাঙ্গতে পারে?
এটা মেরুদন্ডের মত ভাঙ্গবে না তবে আঘাতের ফলে থেতলে যেতে পারে। মেডিক্যাল চিকিৎসায় সমাধান সম্ভব।

৯৫) একই সাথে একাধিক নারীর সাথে ঘুমানো অস্বাস্থ্যকর কিনা?
যদি দুজনের সাথে সেফ সেক্স করা হয় তবে অস্বাস্থ্যকর নয়।

৯৬) অনেকের মতে কনডম উত্তেজনা কমিয়ে দেয় কি করা উচিত?
অনেক বেশি পাতলা কনডম ব্যবহার করলে সমাধান পাওয়া যাবে।

৯৭) বেশির ভাগ লুব বিরক্তিকর। প্রাকৃতিক কোন ভিন্ন পদ্ধতি আছে কিনা?
কৃত্তিমতামুক্ত ফায়ার ফ্লাই এবং সিল্ক ব্যবহার করা যেতে পারে।

৯৮) ওরাল সেক্সের পর যদি কিস করতে না চায় তবে কি করা উচিত?
তার বুক থেকে নিচ পর্যন্ত কিস করা যেতে পারে।

৯৯) সেক্সের সময় কি পরিমাণ ক্যালোরি ক্ষয় হয়?
১২০ পাউন্ড ওজনের একজন মহিলা প্রতি ৩০ মিনিটে ১১৫ ক্যালরি ক্ষয় করে।

১০০) বেশির ভাগ পুরুষ নারীর মাষ্টারবেশন অথবা অশ্লীল দেখতে চায় কি না?
হ্যাঁ।

সেক্স নিয়ে সাত প্রশ্ন
পোশাক খুলতেই অস্বস্তি হয়। কীভাবে স্বচ্ছন্দ হব?

এটা খুবই কমন একটা প্রশ্ন। নিজের শরীর নিয়ে পুরোপুরি স্বচ্ছন্দ অনেকেই নানা কারণে হতে পারেন না। এ ক্ষেত্রে সবার আগে দরকার পার্টনারের সঙ্গে স্বচ্ছন্দ হওয়া এবং সেটা শুধু বেডরুমে নয়, বরং বেডরুমের বাইরেও।

নিজের কোনও ব্যাপারে আপনি যদি স্বচ্ছন্দ না হন, সেটা নিয়ে সরাসরি পার্টনারের সঙ্গে কথা বলুন। তাতে পার্টনারের সঙ্গে আপনার সম্পর্কও আরও মজবুত হবে, সেক্স জীবনেও নতুন এনার্জি পাবেন।

বিছানায় যদি ঠিকঠাক পারফর্ম করতে না পারি?

সেক্স নিয়ে যে সব সংশয়ে সাধারণত মেয়েরা ভোগেন, সেই তালিকার প্রথমদিকেই রয়েছে এই প্রশ্নটি। আসলে যৌনতার সঙ্গে আমরা অনেকরকম প্রত্যাশা জড়িয়ে ফেলি, ফলে প্রত্যাশা পূরণ না হওয়ার ভয়টা থেকেই যায়।

এ ক্ষেত্রে প্রথমত বুঝতে হবে, সেক্সটা কোনওরকম পারফরম্যান্স নয়, ফলে এই পারফরম্যান্সটা ভালো বা ওটা খারাপ, এরকম কোনও তকমা দেগে দেওয়া যায় না। সেক্স থেকে প্রতিবার আপনি নতুন নতুন অভিজ্ঞতা পেতে পারেন, এটুকুই।

এর সঙ্গে ভালো বা খারাপের কোনও যোগ নেই। সংশয় কাটিয়ে উঠতে পার্টনারের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। তাতেও কাজ না হলে কাউন্সেলরের পরামর্শ নিন।

আমার শরীরের গঠনটা কি স্বাভাবিক?

কোনও দু’জন মানুষ এক নন, ফলে তাঁদের শারীরিক গঠনের মধ্যে তফাৎ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। ফলে আপনার শরীরের গঠন, স্তন বা যোনির আকার বা শেপ যেমনই হোক না কেন, আপনি ইউনিক।

আর চিকিত্সকেরা বলেন, স্তন বা যোনির আকার আয়তনের উপর শারীরিক সুখ আদৌ নির্ভর করে না, কাজেই ও সব নিয়ে চিন্তা করবেন না। সব সময় ভাবুন আপনি স্পেশাল, দেখবেন বাকিটা সহজ হয়ে গেছে!

আমার আর আমার পার্টনারের শারীরিক চাহিদা এক নয়। এটা কি স্বাভাবিক?

একশোবার! দু’জন মানুষ আলাদা, কাজেই তাঁদের লিবিডোও আলাদা হওয়াটাই স্বাভাবিক! সত্যি বলতে, দু’জনেরই শারীরিক চাহিদা পরস্পরের সঙ্গে একদম খাপে খাপে মানানসই, এমন সম্পর্ক খুবই বিরল!

আপনার সঙ্গী যত ঘন ঘন শারীরিক সম্পর্ক চান, আপনি তা চান না, এমনটা হতেই পারে। অথবা উলটোটাও হতে পারে। এই মিসম্যাচগুলো নিজেদের মধ্যে কথা বলেই সমাধান করা যায় কারণ সেক্সই শুধু একটা সম্পর্কের শেষ কথা নয়।

আর প্রয়োজন মনে করলে কাউন্সেলর বা চিকিত্সকের সাহায্য তো নেওয়াই যায়!

আমারও কি এসটিডি হতে পারে? এর হাত থেকে বাঁচব কী করে?

এসটিডি অর্থাৎ সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিজ়িজ়। এইচআইভি বা এডস কিন্তু একমাত্র এসটিডি নয়। ক্ল্যামাইডিয়া, গনোরিয়া, জেনিটাল হারপিসের মতো নানাধরনের এসটিডি রয়েছে, যা ছোঁয়াচে।

এ সব রোগ থেকে বাঁচতে পার্টনারকে কন্ডোম ব্যবহার করতে বলুন, কারণ কন্ডোমই সবচেয়ে নিরাপদ। ইন্টারকোর্সের পর জল দিয়ে ভ্যাজাইনা ধুয়ে ফেলুন, তাতে ব্যাকটেরিয়া ধুয়ে বেরিয়ে যাবে।

এ ছাড়া প্রচুর জল খান। ইউরিনের সঙ্গেও ব্যাকটেরিয়া শরীর থেকে বেরিয়ে যায়।

লুব্রিক্যান্ট ব্যবহার করা কি ভালো?

ইন্টারকোর্সের সময় ভ্যাজাইনা স্বাভাবিকভাবেই লুব্রিকেটেড হয়। কিন্তু অনেক সময় মানসিক চাপ, ফোরপ্লে-র অভাব অথবা কোনও ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে ভ্যাজাইনা শুকনো থাকতে পারে।

সে ক্ষেত্রে লুব্রিক্যান্টই হবে আপনার সবচেয়ে কাছের বন্ধু। ওয়াটার অথবা সিলিকোন-বেসড লুব্রিক্যান্ট ব্যবহার করুন। অয়েল-বেসড লুব্রিক্যান্ট এড়িয়ে যাওয়াই ভালো কারণ তাতে ল্যাটেক্স কন্ডোম নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

তা ছাড়া অয়েল-বেসড লুব্রিক্যান্ট যোনির পিএইচ ভারসাম্য নষ্ট করে দেয় যা থেকে ইনফেকশন হওয়া অস্বাভাবিক নয়।

আমার অর্গ্যাজ়ম হতে সমস্যা হয় কেন?

প্রতিবার শারীরিক সম্পর্কেই যে অর্গ্যাজ়ম হতে হবে তেমন কোনও কথা নেই। সেক্স মানে শুধু পেনিট্রেশন নয়। মাসাজ, ফোরপ্লে, ওরাল সেক্সও অর্গ্যাজ়ম হওয়ার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ক্লিটোরিস স্টিমুলেশন করলে আকাঙ্ক্ষা পূর্ণ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তাড়াহুড়ো না করে সময় নিন। অর্গ্যাজ়মের কথা ভুলে গিয়ে মুহূর্তগুলো উপভোগ করুন। বাকিটা স্বাভাবিকভাবেই হবে।

যৌন স্বাস্থ্য বিষয়ক সাধারণ প্রশ্নসমূহ

তরল স্রাব
প্রঃ আমার তরল স্রাব হচ্ছে যার গন্ধ খুবই অস্বস্তিকর ও আঁশটে। আমি ডাক্তারের কাছে যেতে ভয় পাচ্ছি কারণ তিনি আমার মা’কে চিনেন। এ সমস্যা কী হতে পারে? এটা কি নিজ থেকেই দূর হয়ে যাবে?

উঃ তরল স্রাব হওয়া যদিও স্বাভাবিক হতে পারে, তবে এর সাথে আঁশটে গন্ধ এর মতো অন্যান্য উপসর্গ যদি দেখা যায় তাহলে ডাক্তার দেখানো অত্যাবশ্যক। এ জাতীয় সমস্যার পিছনে ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস (বিভি) নামক একটি অত্যান্ত সাধারণ সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে।

এ সমস্যা যৌনবাহিত নয়, এবং এটির পরীক্ষা ও চিকিৎসা গ্রহণ সহজ। আপনার গাইনাকোলোজিস্ট বা নিকটস্থ পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রে যান, সেখানে তারা সমস্যা সম্পর্কে বলতে পারবে এবং চিকিৎসা প্রদান করতে পারবে।

এমনকি আপনার ডাক্তার আপনার মাকে চিনে থাকলেও আপনি ডাক্তারের কাছে কখনো পরামর্শ বা চিকিৎসা গ্রহণের জন্য গেলে আপনার গোপনীয়তার অধিকার রক্ষা করা উনার দায়িত্ব বা কর্তব্য।

যোনিস্রাব
প্রঃ গত সপ্তাহ থেকে আমি যোনি দিয়ে হালকা ধরনের পদার্থ নির্গমন হতে লক্ষ্য করছি। এটার বাজে গন্ধ নেই, তবে এটি সাধারণত হয়ে থাকে না। এটি দূর করার জন্য কোনো ক্রীম বা মলম ব্যবহারের পরামর্শ কি আপনি দিতে পারেন?

উঃ নারীদের ক্ষেত্রে যোনিপথে তরল জাতীয় পদার্থ বের হয়ে আসা (; ভ্যাজাইনাল ডিসচার্জ) স্বাভাবিক এবং এ তরল যোনির স্বাভাবিক পদার্থ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তবে এ সমস্যা যদি নতুন হতে দেখা যায়, তাহলে আপনি হয়ত যোনির সংক্রমণে আক্রান্ত।

এ সমস্যার পিছনে দায়ী সবচেয়ে সাধারণ সংক্রমণসমূহ যৌনবাহিত নয়, তবে ডাক্তার বা যৌন রোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেয়া ভাল।

যৌনমিলন কোন বয়সে হওয়া খুব বেশি জরুরী?

কনডম ব্যবহারের মাধ্যমে কি এইচআইভি হয়?
প্রঃ সম্প্রতি আমি আমার ছেলেবন্ধুর (বয়ফ্রেন্ডের) সাথে প্রথমবার যৌন মিলন করেছি। আমরা কনডম ব্যবহার করেছি, তবে তা এইচআইভি প্রতিরোধে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা প্রদান করবে কি না সে সম্পর্কে আমি নিশ্চিত নই।

আমার একজন বন্ধু বলেছে যে রাবারের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ছিদ্রের মাধ্যমে এইচআইভি ছড়িয়ে পড়তে পারে। এ কথা কী সঠিক?

উঃ অনেক বন্ধুদের মতোই আপনার বন্ধুর মতামতও এক্ষেত্রে ভুল। সঠিকভাবে ব্যবহার করলে কনডম এইচআইভি প্রতিরোধে সর্বোত্তম প্রতিরক্ষা প্রদান করে। সেই সাথে এটি অন্যান্য যৌনবাহিত সংক্রমণ (এসটিআই) প্রতিরোধ করে ।

অযাচিত গর্ভাবস্থা রোধ করতেও কনডম সহায়তা করে, যদিও অধিকাংশ নারী অনিচ্ছায় গর্ভবতী হওয়া ও যৌনবাহিত রোগ উভয় থেকে নিরাপদ থাকার জন্য কনডমের পাশাপাশি জন্মবিরতির অন্যান্য নির্ভরযোগ্য পদ্ধতিও গ্রহণ করেন। কনডমের মধ্যে কোনো ক্ষুদ্র ছিদ্র উপস্থিত থাকে না।

প্রঃ সকালে যে জন্মনিরোধ পিল (বড়ি) গ্রহণ করতে হয় তা কোথায় পাওয়া যায়?

গতরাতে আমি আমার বয়ফ্রেন্ডের (ছেলেবন্ধু) সাথে শারীরিকভাবে মিলিত হয়েছি এবং আমরা কোনো কনডম ব্যবহার করিনি। আজকে যদি আমি পিল খাই তাহলে কি কাজ হবে?

উঃ হ্যাঁ, কোনো সমস্যা ছাড়াই আপনি আজই পিল গ্রহন পারেন। যেকোন ফার্মেসি থেকে আপনি জরুরী হরমোনাল (হরমোন মিশ্রিত) পিল সংগ্রহ করতে পারবেন। জরুরী জন্মনিরোধ পদ্ধতি (সকালে গৃহীত পিল) অনিরাপদ যৌন মিলনের পরবর্তী ৭২ ঘন্টা পর্যন্ত কাজ করে।

তবে তা যত শীঘ্র আপনি গ্রহণ করবেন, তা ততোই কার্যকর হবে। কিন্তু মনে রাখতে হবে যে, কনডম ফেটে যাওয়া, পিল গ্রহণে ভুলে যাওয়া, ধর্ষণ প্রভৃতি জরুরী সময়ে সকালে খাওয়ার পিল গ্রহণ করতে হয়। জন্মবিরতির একটি নিয়মিত পদ্ধতি হিসেবে এটি গ্রহণ করা উচিৎ হবে না।

বহু বছর পূর্বের শারীরিক মিলনে কি যৌনবাহিত সংক্রমণ হয়?
প্রঃ ২০ বছর বয়সের শুরুতে আমি অনিরাপদ যৌন মিলন করেছি। এর ফলে কি আমি অজান্তে সংক্রমিত হতে পারি?

উঃ এইচআইভি, এইচবিভি প্রভৃতি সংক্রমণের সংক্রমিত হওয়া সম্ভব এবং এসব সংক্রমণের লক্ষণ প্রকাশিত হতে বহু বছর সময় লেগে যায়।

ক্ল্যামিডিয়া আক্রান্ত হলে প্রায়ই উপসর্গ অপ্রকাশিত থাকে, তবে চিকিৎসা গ্রহণ না করলে তা গর্ভধারণের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। কোনো সন্দেহ থাকলে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়ার ব্যবস্থা করুন।

কিভাবে চিনবেন অধিক চাহিদার যৌন আবেদনময়ী মেয়ে?

পূর্বে সংক্রমিত হলে তা কি গর্ভধারণে সমস্যা সৃষ্টি করবে?
প্রঃ তরুণ বয়সে আমি একটি সংক্রমণে আক্রান্ত ছিলাম এবং তার চিকিৎসাও গ্রহণ করেছি। এখন আমি সন্তান গ্রহণের কথা চিন্তা করছি। গর্ভধারণের ক্ষেত্রে কোন কোন সংক্রমণ বাধা হয়ে দাঁড়াবে?

উঃ চিকিৎসা গ্রহণ না করা হয়ে থাকলে ক্ল্যামিডিয়া এবং গনোরিয়ার কারনে বন্ধ্যাত্ব সৃষ্টি হতে পারে, যদিও এ সংক্রমণে আক্রান্ত অধিকাংশ ব্যক্তির মধ্যে কোনো স্থায়ী সমস্যা পরিলক্ষিত হয় না।

একবার শনাক্ত করা হয়ে গেলে ক্ল্যামিডিয়ার চিকিৎসা সহজেই প্রদান করা যায়, কিন্তু সংক্রমণে আক্রান্তদের অধিকাংশের মধ্যে কোনো লক্ষণ প্রকাশিত হয় না এবং আক্রান্তরাও সংক্রমিত হওয়া সম্পর্কে অবগত থাকেন না।

আপনি যদি এ সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছেন বলে মনে করেন, তাহলে তা চেক আপ ও পরীক্ষা করান। ক্ল্যামিডিয়ার পরীক্ষার জন্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মূত্র পরীক্ষা করানো হয়।

অতীতে যৌনবাহিত সংক্রমণে আক্রান্ত হলে
প্রঃ কয়েক বছর পূর্বে আমি একটি সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ায় চিকিৎসা গ্রহণ করেছিলাম। আমার নতুন মেয়েবন্ধুকে (গার্লফ্রেন্ড) কি এ বিষয়ে বলা প্রয়োজন?

উঃ এ প্রশ্নের উত্তর নির্ভর করে আপনি কোন ধরনের সংক্রমণে আক্রান্ত ছিলেন তার উপর। অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধ গ্রহণে কয়েক ধরনের সংক্রমণে সম্পূর্ণরূপে নিরাময় হয়ে যায়, তবে কিছু কিছু সংক্রমণ চিকিৎসা গ্রহণের পরও আবার ফিরে আসে অথবা কোন উপসর্গের সৃষ্টি করে না।

আপনার যৌন ইতিহাস নিয়ে নতুন সঙ্গীঁর সাথে খোলামেলা আলোচনা করা সাধারণত ভালো এবং নিরাপদ শারীরিক মিলনের জন্য সবসময় কনডম ব্যবহার করুন। যদি আপনি নিশ্চিত না হন, তাহলে ডাক্তারের সাথে কথা বলুন।

হস্তমৈথুন বাদ দিলে ঘন ঘন স্বপ্নদোষ হয়?

যৌনবাহিত সংক্রমণ
প্রঃ কোন রোগে আক্রান্ত না হয়ে কেউ কেউ উক্ত রোগের জীবাণু বহন করতে পারে বলে আমি শুনেছি। এমন সংক্রমণ কি রয়েছে যাতে শুধু পুরুষ অথবা শুধু নারীরাই সংক্রমিত হোন?

উঃ না, আক্রান্ত না হয়ে কোনো রোগের জীবাণু বহন করা সম্ভব নয়। তবে লক্ষণ দেখা না দিলেও যৌন সংক্রমণে আক্রান্ত হতে দেখা যায়, তবে শারীরিক মিলনের মাধ্যমেই তা অন্য ব্যক্তিতে ছড়িয়ে পড়ে।

যদি সঙ্গী যৌনবাহিত সংক্রমনে আক্রান্ত হয়ে থাকেন, তাহলে আমাকেও কি চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে?
প্রঃ আমার মেয়েবন্ধু (গার্লফ্রেন্ড) ক্ল্যামিডিয়াতে আক্রান্ত এবং তার জন্য আমাকে চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে। কিন্তু আমার মধ্যে কোনো উপসর্গ দেখা দেয়নি, তাহলে আমি কেন চিকিৎসা গ্রহণ করব?

উঃ যদি আপনার সঙ্গীনি এ রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন, তাহলে লক্ষণ প্রকাশিত না হলেও চিকিৎসা গ্রহণ করা আপনার জন্য খুবই প্রয়োজন, কেননা ক্ল্যামিডিয়ায় আক্রান্তদের অধিকাংশের ক্ষেত্রে কোনো লক্ষণ দেখা যায় না ।

যদি চিকিৎসা গ্রহণ না করেন, তাহলে এ সংক্রমণ আপনার মাধ্যমে পুনরায় আপনার সঙ্গীঁনির কাছে চলে যাবে। বিশেষ করে মহিলাদের ক্ষেত্রে ক্ল্যামিডিয়া অত্যন্ত জটিল একটি সমস্যা, এবং চিকিৎসা গ্রহণ না করলে তা বন্ধ্যাত্বের সৃষ্টি করে।

প্রথম সেক্স করার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ১০টি টিপস ✅

আমার কি যৌনবাহিত সংক্রমণ বা STI (sexually transmitted infection) পরীক্ষা করানো উচিত?
প্রঃ আমার কি নিয়মিত একটি ক্লিনিকে ডাক্তার দেখানো বা চেক-আপ করানো উচিত বলে মনে করেন? যৌনকর্মে সক্রিয় হওয়ার পর থেকে আমার অসংখ্য সঙ্গী ছিলো।

উঃ অবশ্যই চেক-আপ করানো একটি ভালো চিন্তা হবে। অধিকাংশ সংক্রমণের কোনো উপসর্গ প্রকাশিত হয় না এবং চেক-আপ করানোর মাধ্যমে তা বেশ সহজে ধরা পড়ে।

আপনি আপনার সঙ্গীকে যতই বিশ্বাস করুন না কেন, তাদের অতীতের ইতিহাস নিশ্চিতরূপে আপনি জানতে পারবেন না এবং সেজন্য চেক-আপ করানোই উত্তম।

প্রঃ STI- এর চিকিৎসা প্রদানের কোর্স বা ক্রমধারায় সাধারণত কত দিন লাগে?

উঃ এটার কোনো গড় হিসাব নেই, কারন একেক ধরনের STI একেক রকম হয়। অনেক যৌনবাহিত সংক্রমণের চিকিৎসা একটি ডোজের মাধ্যমে করা হয়। তবে, কয়েকটি চিকিৎসার পর কোর্সের মেয়াদ ১ থেকে ২ সপ্তাহ বা তার থেকেও দীর্ঘ হতে পারে।

প্রঃ আমার র‌্যাশ (ফুসকুড়ি) হয়েছে এবং আমি তা নিয়ে ভয়ে আছি এবং যদি আমি ক্লিনিকে যাই তাহলে কি হবে তা নিয়েও আমি ভীত। এতে আমি ব্যথা পাব?

উঃ না, এতে আপনি ব্যথা পাবেন না, সাধারণত একজন ডাক্তার আপনার যৌন ইতিহাস নিয়ে জানতে চাইবেন এবং আপনার কোন পরীক্ষাটি করা প্রয়োজন তা নিয়ে পরামর্শ দিবেন।

সাধারণত, এইচআইভি ও সিফিলিস নির্ণয়ের জন্য আপনাকে শুধুমাত্র রক্ত পরীক্ষা এবং ক্লাইমিডিয়া ও গনোরিয়ার জন্য মূত্র পরীক্ষা করাতে হবে।

কিছু কিছু মহিলাদের ক্ষেত্রে তুলা দ্বারা যোনির অভ্যন্তরীণ পদার্থ পরীক্ষা করা হয়। কিছু কিছু পুরুষদের ক্ষেত্রে লিঙ্গের অগ্রভাগ থেকে সামান্য কিছু নমুনা তুলা দ্বারা সংগ্রহ করা হয়।

কর্মরত পরীক্ষক চিকিৎসা পদ্ধতির বিস্তারিত আপনাকে বলবেন। আপনার হাতেই পুরো নিয়ন্ত্রণ থাকবে, তাই পরামর্শকৃত কোনো পরীক্ষা আপনার পছন্দ না হলে সে সম্পর্কে তাদের বলুন।

গাইনোকোলোজিস্টের পরামর্শ নেয়া সম্পর্কে জানুন এখানেঃ ।

কনডম ক্রয়ের আগে যে জিনিসগুলো জানা খুবই জরুরী!

শারীরিক মিলন ব্যতীত এইচআইভি সংক্রমিত হওয়া কী সম্ভব?

প্রঃ বিদেশ গমনে এইচআইভিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি সৃষ্টি হয় বলে আমি শুনেছি। অবকাশ যাপনকালে কারো সাথে শয়নের পরিবর্তে অন্যান্য যৌনকর্মের কারণে কী এইচআইভি হওয়ার ঝুঁকি থাকে?

উঃ আপনার প্রশ্ন অনুসারে যদি আপনি অনিরাপদ (কনডম বিহীন) যোনিগত অথবা অ্যানাল সেক্স না করে থাকেন, তাহলে এইচআইভি’তে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা আপনার ক্ষেত্রে কম থাকবে।

চুম্বন অথবা স্পর্শ করার মাধ্যমে এইচআইভি সংক্রমণের ঝুঁকি থাকে না। যদি আপনি কোনো পুরুষকে ওরাল সেক্স প্রদান করেন, তাহলে সেক্ষেত্রে এইচআইভি’তে আক্রান্ত হওয়ার স্বল্প ঝুঁকি থাকে, বিশেষ করে তিনি যদি আপনার মুখের সংস্পর্শে আসেন।

ওরাল সেক্সের জন্য কিছু সংখ্যক ব্যক্তি কনডম (আপনি ফ্লেভার্‌ড বা স্বাদযুক্ত কনডম নিতে পারেন) ব্যবহার করেন। যদি কোনো পুরুষ আপনাকে ওরাল সেক্স প্রদান করে, তাহলে সেক্ষেত্রে এইচআইভি’র কোনো ঝুঁকি থাকে না।

পরকীয়াতে মহিলারাই বেশি উপভোগ করেন, দাবি সমীক্ষায়!

প্রঃ আমি ছাত্রদের সাথে একটি বাথরুম বা গোসলখানা ভাগাভাগি করে ব্যবহার করছি এবং গোসল করার পূর্বে বাথ টাব (গোসলের জন্য ব্যবহৃত গামলা বিশেষ) সম্পূর্ণরূপে জীবাণুমুক্ত করা উচিত এরকম আমি শুনেছি।

কেননা এই বাথ টাব ব্যবহারকারী অন্য কোন ব্যক্তি যৌনবাহিত রোগে সংক্রমিত কি না তা সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে না।

একই বাথ টাব ব্যবহারের মাধ্যমে সংক্রমিত ব্যক্তি থেকে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা কতটুকু?

এসটিআই এ আক্রান্ত কারো সাথে একই সাথে গোসল করার ফলাফল কি হতে পারে? আমার কি পরীক্ষা করানো উচিত?

উঃ অন্য ব্যক্তি বাথ টাব ব্যবহারের পর পরই তা পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নেয়া একটি ভালো চিন্তা, কেননা আপনি নিশ্চয় অন্যের ময়লা যুক্ত স্থানে গোসল করতে চাইবেন না।

তবে, বাথটাব জীবাণুমুক্ত করার প্রয়োজন হয় না, কারন এটি এসটিআই ছড়িয়ে পড়ার পদ্ধতিসমূহের অন্তর্ভূক্ত নয়।

প্রঃ প্রতিবার মুত্রত্যাগের সময় আমার সঙ্গীর যৌনাঙ্গে অনেক যন্ত্রণা হয়। এ সমস্যায় দীর্ঘকাল ধরে চলছে, তবে সম্প্রতি এটি খারাপ অবস্থা ধারণ করেছে। দই গ্রহণের মাধ্যমে এ ধরণের সমস্যা দূর হয় বলে আমি শুনেছিলাম। সে আজ সকালে প্রচুর পরিমাণে দই খেয়েছে, কিন্তু সমস্যা এখনো কমেনি।

উঃ আপনার সঙ্গীর পুরুষাঙ্গের অগ্রভাগে কি র‌্যাশ (ফুসকুড়ি) দেখা যাচ্ছে? অথবা মুত্রত্যাগের সময় তিনি কি ব্যথা বা যন্ত্রণাবোধ করছেন? যদি র‌্যাশ হয়, তাহলে তিনি পুরুষাঙ্গের ক্ষত বা ঘায়ের সমস্যায় ভুগছেন। এটি একটি সাধারন সংক্রমণ যা ফাংগাস যা ছত্রাক সৃষ্ট এবং এটি যৌনবাহিত নয়। ফার্মেসিতে প্রাপ্ত ক্লোট্রিমাজল ক্রীম এ সমস্যা দূর করতে পারে। যদি এতে কাজ না হয়, তাহলে চেকআপ বা পরীক্ষা করান।

মূত্রত্যাগের সময় তিনি যদি ব্যথা অনুভব করেন, তাহলে পুরুষাঙ্গের নালী যৌনবাহিত সংক্রমণে আক্রান্ত হতে পারে। ডাক্তারের পরামর্শ নিন অথবা চেকআপ বা পরীক্ষা করান এবং এর চিকিৎসা গ্রহণ করুন। যদি আপনার সঙ্গীর পুরুষাঙ্গে ক্ষত থাকে, তাহলে আপনাকেও চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে।

দই গ্রহণের মাধ্যমে সংক্রমণ নিরাময় হয় এমন কোনো প্রমাণ নেই। ক্ষত বা ঘা এর উপসর্গে দই গ্রহণে উপকার পাওয়া যায় বলে কিছু সংখ্যক মহিলা মনে করেন, তবে সেক্ষেত্রে দই না খেয়ে বরং আক্রান্ত স্থানে লাগাতে হয়।

বাসর রাতে আপনার স্ত্রীকে নিয়ে কিছু প্রশ্ন
বাসর ঘর
১) তুমি আমাকে কেনো ভালোবাসো?

এই প্রশ্নটা বলতে গেলে কেউই করেন না। কিন্তু এটাই সবচাইতে জরুরী। কেনো ভালোবাসেন তিনি আপনাকে? প্রথম জবাব যদি হয়- “তুমি অনেক সুন্দর”… তাহলে দ্বিতীয়বার ভাবুন।

একজন মানুষ অনেক সুন্দর বলে তাকে ভালোবাসা আর যাই হোক সততার পর্যায়ে পড়ে না। তাহলে সময়ের সাথে সৌন্দর্য চলে গেলে ভালোবাসাও তখন ফুরিয়ে যাবে।

২) তুমি আমার সাথেই পুরো জীবনটা কাটাতে চাও কেনো?

সেই সাথে নিজেকেও প্রশ্ন করুন- আপনি তার সাথে পুরো জীবন কাটাতে চান কেনো? এবং তারপর মিলিয়ে দেখুন পরস্পরের জবাব। মানসিকতা মিলছে কি?

৩) সন্তানের বিষয়ে তোমার ভাবনা কি?

তিনি সন্তান সম্পর্কে কী ভাবেন, ভালোবাসার ফসল নাকি বংশ বৃদ্ধির হাতিয়ার? তাহার আজকাল সন্তান না হওয়াটাও খুব সাধারণ ব্যাপার।

যদি সন্তান না হয় আপনাদের কোন কারণে, যদি কারণ অক্ষমতা থাকে, সেক্ষেত্রে তার মনোভাব কী হবে সেটা জেনে রাখা অত্যন্ত জরুরী।

৪) তোমার জীবনের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারটা কী?

এই ব্যাপারটাও জেনে রাখাটা খুব বেশি জরুরী। তাহলে আপনি জানতে পারবেন কোন বিষয়গুলোকে তিনি গুরুত্ব দেন আর কোথায় কখনো আপনার উচিত হবে না হস্তক্ষেপ করা।

৫) একদিন আমি এমন থাকবো না দেখতে, তখন কী হবে?

বয়সের ছাপ সবার চেহারাতেই পড়ে। এবং মেয়েদের ক্ষেত্রে অনেকটা আগে পড়ে। এই প্রশ্নের সৎ উত্তর পাবেন কিনা জানা নেই, তবে প্রশ্নটা অবশ্যই করুন।

৬) যদি কখনো আমার বড় অসুখ হয় তখন তুমি কী করবে?

এই প্রশ্নের জবাব আপনাকে সাহায্য করবে তাকে আরও ভালোভাবে বুঝতে। কোন ভুল ধারণা থাকবে না মনে।

৭) তুমি কি ওয়াদা করতে পারো যে দাম্পত্যে প্রতারণা করবে না?

এই ওয়াদা কেউ রক্ষা করতে পারবে কি পারবে না, সেটা ভবিষ্যতই বলে দেবে। কিন্তু কেউ যদি জীবনের শুরুতেই এই ওয়াদা করতে গড়িমসি করেন, বাকিটা আপনি নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পারছেন।

৮) জীবনের চড়াই উৎরাইতে আমি কোন ভুল করে ফেললেও কি পাশে থাকবে?

পুরো পৃথিবী যদি কখনো বিপক্ষে চলে যায়, একজন মানুষ অন্ধভাবে বিশ্বাস করে ও ভালোবেসে পাশে থাকবে আপনার, পৃথিবীতে এর চাইতে সুন্দর আর কিছুই হতে পারে না। এর চাইতে বেশি নিরাপদও না।

৯) বিয়ের পরও কি আমরা নিজ নিজ স্বপ্ন ও উদ্দেশ্য পূরণের জন্য কাজ করতে পারব?

বিয়ে মানেই জীবন ফুরিয়ে যাওয়া নয়। বিয়ে মানে নতুন একটি অধ্যায়ের শুরু। একটাই জীবন, সকলেরই আজন্ম লালিত কিছু স্বপ্ন থাকে। সেই স্বপ্নগুলোর কী হবে সেটা আগেই জেনে রাখা ভালো।

১০) আমাদের দাম্পত্যের ভবিষ্যৎ নিয়ে তুমি কী ভেবেছো?

একটু আগেই বললাম, দাম্পত্য মানে একটা নতুন অধ্যায়। আর জীবনের এই অধ্যায়ে চাই প্রচুর পরিকল্পনা।

কোন অগ্রিম পরিকল্পনা ছাড়া দাম্পত্য কখনোই সফল হতে পারে না। আপনারও নিশ্চয়ই কিছু প্ল্যান আছে? তাহলে আগেই জেনে রাখুন হবু স্বামীর পরিকল্পনা।

যৌনসঙ্গম আগে কি কি জানতে হবে?
১। আপনি প্রথমবার যৌনসঙ্গম করে গর্ভবতী হতে পারেন। অনেকে মনে করেন প্রথমবার যৌনসঙ্গম করলে গর্ভবতী হবার কেনা সম্ভাবনা নেই । এটি একদমই ভুল একটা ধারণা।

একজন ছেলে এবং মেয়ে যদি গর্ভনিরোধক ব্যবহার না করে যৌনসঙ্গম করে তবে মেয়েটির গর্ভবতী হবার যথেষ্ঠ সম্ভাবনা রয়েছে। সেটা প্রথমবার হোক অথবা দিত্বীয় বা তৃতীয় বার।

একটা মেয়ের শরীরে মাসের যে সময়টিতে ডিম্ব নিঃসরণ হয় তখন যদি কোন রকম নিরোধ ছাড়াই সে যৌনসঙ্গম করে তাহলে সে খুব স্বাভাবিক ভাবেই গর্ভবতী হবে। এমনকি এটি মেয়েটির প্রথম মাসিকের আগে আগেও হতে পারে।

এজন্য জন্ম নিয়ন্ত্রণে আপনি কন্ট্রাসেপটিভ পিল অথবা কনডম ব্যবহার করতে পারেন। এগুলো আপনাকে গর্ভবতী হওয়া থেকে সুরক্ষিত করবে। অবশ্য কনডম ব্যবহারের একটি বাড়তি সুবিধা হল এটি আপনাকে সব ধরনের যৌন সংক্রামক রোগ থেকেও সুরক্ষিত রাখে।

আপনি যৌনসঙ্গম করার আগে আপনার সঙ্গীর সাথে আলাপ করে নিন যে জন্ম নিয়ন্ত্রণ এর কোন পদ্ধতি আপনারা ব্যবহার করতে চান, সেটি পিল না কনডম । এর পাশাপাশি এর ব্যবহারের নিয়মগুলোও ভালো করে জেনে নিন। কেননা সঠিক নিয়মে ব্যবহার না করলে জন্মনিয়ন্ত্রকগুলো কখনই আপনাকে প্রত্যাশিত ফল দেবে না।
বিশ্বের অবাক করা ২০টি স্থাপত্য ও দর্শনীয় স্থানসমূহ!

২। আপনার সঙ্গী যদি তার পুরুষাঙ্গ বীর্যপাত হবার আগেও বের করে নেয় তারপরও আপনার গর্ভধারনের সম্ভাবনা আছে।

কারণ অনেকের বীর্য পাতের পূর্বেও কিছু বীর্য/স্পার্ম ভিতরে পরতে পারে এবং যৌন সংক্রামক রোগ হতে পারে। তাছাড়া সকল পুরুষ এভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনা। তাই অবশ্যই কনডম ব্যবহার করতে বলুন।
৩। মাসিকের সময় যৌনসঙ্গম করলেও গর্ভবতী হতে পারেন। অনেকে ভাবেন মাসিকের সময় অথবা তার আগে পরে নিরাপদ সময় বেছে যৌনসঙ্গম করলে গর্ভবতী হবার কোন সম্ভাবন নাই। তবে অনেক শুক্রাণু রয়েছে যেগুলা অনেকদিন বাঁচে এবং সেগুলা আপনাকে গর্ভবতী করতে সক্ষম।
৪. আপনি দাড়িয়ে বা বসে অথবা যেকোন অবস্থায় যৌনসঙ্গম করলেই গর্ভবতী হতে পারেন। আপনি হয়তোবা শুনে থাকবেন একটি মেয়ে দাড়িয়ে যৌনসঙ্গম করলে কখনো গর্ভবতী হবে না।

কিন্তু চিকিৎসা শাস্ত্র বলে এমন কোন কথার ভিত্তি নেই। যৌনসঙ্গমের এমন কোন অবস্থান নেই অথবা এমন কোন জায়গা নেই ( বাথরুম,গোসলের সময় ) যেখানে যৌনসঙ্গম করলে কেউ গর্ভবতী হবেনা।
আপনার শারীরিক দুর্বলতার মূল কারণগুলো জানেন কি?

৫. তবে আপনি ওরাল যৌনসঙ্গম করে গর্ভবতী হবেন না। কেননা গর্ভবতী হতে হলে শুক্রাণু আপনার জরায়ুতে পৌছাতে হবে।

এমনকি আপনি স্পার্ম গিলে ফেললেও প্রেগ্ন্যান্ট হবার সম্ভাবনা নেই । তবে আপনি গনোরিয়া, ক্লামাইডিয়া ইত্যাদি রোগে আক্রান্ত হতে পারেন । তাই কনডম ব্যবহার করা উত্তম।

৬। মাদক সেবন আপনাকে মিলনে পারদর্শী করেনা। মাদক সেবন করলে মানুষ সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। তাই তারা এমন কিছু করতে পারেন যৌনসঙ্গম করার সময় যেটির জন্য পরে অনুশোচনা বোধ করতে হতে পারে।
৭. আপনি পায়জামা, প্লাস্টিক ব্যাগ , আন্ডারওয়্যার , চিপস এর প্যাকেট কনডম এর পরিবর্তে ব্যবহার করতে পারবেন না। শুধুমাত্র কনডমই পারবে আপনাকে গর্ভধারন এবং যৌন সংক্রামক অসুখের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা দিতে।
৮ অনেকে মনে করেন যৌনসঙ্গম না করলে ছেলেদের পুরুষাংগ ফেটে যেতে পারে।এমন কথার কোন ভিত্তি নাই । কেননা যৌনসঙ্গম না করলে কোন ছেলের কোন ক্ষতি হয়না। শুক্রাণু সবসময় তৈরি হয় এবং তা শরীরের মাঝে এবজর্ব হয়ে যায় ।

৯। কনডম কখনো ধুয়ে পুণ:ব্যবহার করা যায়না। কনডম কখনো একবারের বেশি দুইবার ব্যবহার করা যায়না। কনডম ব্যবহার করে সেটি ফেলে দিবেন । এটি ছেলে এবং মেয়েদের উভয় ধরণের কনডমের ক্ষেত্রে সত্য। ৩০ মিনিট পরই কনডম পরিবর্তন করা উচিত কেননা কনডম দুর্বল হয়ে যায়।
১০। একবার যৌনসঙ্গম করাই গর্ভধারন হবার জন্য যথেষ্ট। অনেকে মনে করেন গর্ভধারন হবার জন্য অনেকবার যৌনসঙ্গম করতে হয় । তবে সঠিক সময়ে জন্ম নিয়ন্ত্রণ ছাড়া একবার যৌনসঙ্গম করাই যথেষ্ট ।
১১। যৌন সংক্রামক রোগে সবসময় লক্ষণ প্রকাশ পায়না। অনেকে মনে করেন প্রস্রাবের সময় জালা পোড়া করলে, যৌনাঙ্গ থেকে কোন কিছু বের হলে অথবা কোন বাজে গন্ধ বের হলে বুঝা যায় যে তার যৌন সংক্রামক রোগ আছে, তবে আসলে তা নয় ।

অনেক সময় তেমন কোন লক্ষণ নাও দেখা যেতে পারে এবং দেখা দিলেও আপনি সেটি খেয়াল নাও করতে পারেন । আপনি যদি মনে করেন আনার এমন হতে পারে তবে ডাক্তারের সাথে আলাপ করুন।

১২। মেয়েদের প্রথম মাসিক হলেই সে যৌনসঙ্গম করবার জন্য যোগ্য নয়। মাসিক শুরু হওয়া মানে এই নয় যে আপনি যৌনসঙ্গম করবার জন্য যোগ্য।

একেকজন একেক সময় যৌনসঙ্গম করতে আগ্রহী হয় । যদি আপনার বন্ধুরা যৌনসঙ্গম করে তবে আর মানে এই নয় যে আপনাকে ও করতে হবে। যৌনসঙ্গম করবার আগে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানা উচিত।

শেয়ার করুন

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়