Untitled 1 copy 26

হাইমচরে প্রেমের সম্পর্কে বিয়ে ইস্যুতে কলেজ ছাত্রীকে মারধর

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলায় প্রেমের সম্পর্কের জেরে বিয়ে শেষে পারিবারিক কলহের জেরে কলেজ ছাত্রী শামছুন্নাহার মারধর করে গুরুতর আহত হয়েছে। আহত হওয়ার প্রসঙ্গে দু’পরিবারের পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দিয়েছে।

আহত শামছুন্নারকে প্রথমে হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে অবস্থা বেঘতিক দেখে তাকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে রেফার করা হয়। চাঁদপুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ঢাকায় প্রেরণ করে।

আহত শামছুন্নাহার চাঁদপুর সরকারি কলেজের অনার্স ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী ও উপজেলার চরভৈরবী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড সদস্য কাদির হাওলাদারের পুত্রবধূ।

সম্প্রতি ইউপি সদস্যের বড় ছেলে হযরত আলীর সাথে প্রেমের সম্পর্কে শামছুন্নাহারের বিয়ে হয়। আহত শামছুন্নাহারের পিতা মো. মফিজ মৃধ্যা জানান, ‘আমার মেয়ে চাঁদপুর সরকারী কলেজের অনার্স ২য় বর্ষে ছাত্রী। আমার মেয়েকে জুতার দোকানদার কাদির হাওলাদারে ছেলে প্রেমের ফাঁদে ফেলে গোপনে বিয়ে করে। ক’দিন আগে ছেলেটি আমার বাড়িতে আসলে স্থানীয় লোকজন তাকে জিঞ্জাসা করলে সে বিয়ের কথা শিকার করেন। পরে কাদির হাওলাদার স্থানীয় লোকজন নিয়ে তার পুত্রবধূ হিসেবে আমার মেয়েকে তুলে নিবেন বলেন রাজি হয়। আজ (১৭ ডিসেম্বর) বাড়ি থেকে মেয়ে তার শুশুর বাড়িতে গেলে আমার মেয়েকে মারধর করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে গলায় ও হাতে জখম করে। আমার মেয়েটি বাঁচবে কিনা জানি না।

শামছুন্নাহারের শ্বশুর কাদির হাওলাদার বলেন, ‘আমার পুত্রবধূ আমার বাড়িতে এসে পরে বাড়ি থেকে গিয়ে দোকার থেকে ব্লেড কিনে নিজের গলায় নিজেই পোচ দেয়।

হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জরুরি বিভাগের স্বাস্থ্য সহকারী মোঃ সেলিম মিয়া জানান ‘রোগীর গলার আঘাত গভীর। রোগীর অবস্থা ভাল না বলে আমরা সদরের রেফার করি।

প্রকাশিত :১৮ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার :

চাঁদপুর রিপোর্ট : এস এস

274 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন