দক্ষিণ 2

১৬ বছর পর মতলব দক্ষিণ সম্মেলন : আ’লীগ নেতাদের দৌড়ঝাঁপ

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

অবশেষে ১৬ বছর পর চাঁদপুরের বৃহৎ উপজেলা মতলব দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। আগামী ১৩ ডিসেম্বর দীর্ঘ প্রতীক্ষার সেই কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।

এরই মধ্যে নেতাকর্মীরা নিজের অস্তিত্বের জানান দিতে পোস্টার, ব্যানার এবং তোরণ নির্মাণ করে সমর্থকদের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা চালাচ্ছেন।

আলোচনা হচ্ছে নতুন-পুরনো নেতাদের আমলনামা নিয়েও। কে বর্তমান সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুলের কাছের ও পছন্দের লোক আবার কে সাবেক মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার পকেটের লোক এ নিয়ে চলছে নানা বিশ্লেষণ ও হিসাব-নিকাশ। পছন্দের পদটি পেতে লবিং-তদবিরে ব্যস্ত সময় পার করছেন পদপ্রত্যাশীরা।

২০০৩ সালে সর্বশেষ মতলব দক্ষিণ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সময় কাউন্সিলের মাধ্যমে হোসেন পাটোয়ারীকে সভাপতি এবং বিএইচএম কবির আহমেদকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। দীর্ঘ সময়ে দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক সম্মেলন না হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা ছিল। তাই এবারের সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত।

২০১০ সালে কমিটির সভাপতি হোসেন পাটোয়ারীর মৃত্যুর পর সিনিয়র সহ-সভাপতি এএইচএম গিয়াস ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব নেন। এছাড়াও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান বজলুর রহমান, সদস্য আলহাজ কাজী সুলতানসহ ১৫ জন নেতাকর্মী মারা যান। দীর্ঘ সময়ে এসব নেতাকর্মীর শূন্য পদ পূরণ করাও সম্ভব হয়নি। আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের যেসব নেতাকর্মী বয়সের কারণে মূল দলে কাজ করার আকাক্সক্ষা করছিলেন তাদের মধ্যে অনেকেই আশাহত হয়েছেন। আবার দেরিতে হলেও সম্মেলনকে ঘিরে অনেকেই নেতৃত্বে আসার জন্য জোর প্রচেষ্টা ও তদবির-লবিং করে যাচ্ছেন।

বিশেষ করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে চলছে জোর লবিং ও গ্রুপিং। এবার সভাপতি পদে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হচ্ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান এএইচএম গিয়াস, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি জয়নাল আবেদীন প্রধান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিএইচএম কবির আহমেদ, সহ-সভাপতি দেওয়ান রেজাউল করিম, লিয়াকত হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুখ বিন জামান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন লিটন, পৌর কাউন্সিলর ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক সিরাজুল মোস্তফা তালুকদার প্রমুখ। সভাপতি প্রার্থী ফারুখ বিন জামান ফেস্টুন ব্যানারের মাধ্যমে ভূমিদস্যু, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ ও মাদক ব্যবসায়ীদের বর্জনের আহ্বান জানিয়েছেন। সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মোফাজ্জল হোসেন জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরালো করতে ১৩ ডিসেম্বরের সম্মেলন গুরুত্বপূর্ণ। ১৬ বছর পর সম্মেলন নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনার কমতি নেই। নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা কাউন্সিলের মাধ্যমে যোগ্য নেতৃত্ব সৃষ্টি করা হবে।

সূত্র : যুগান্তর

প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার :

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর

 

1,315 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন