৭ দিনেও সুরাহা হয়নি কোড়ালিয়ার ডিস বিচ্ছিন্নের ঘটনা : কয়েক হাজার মানুষ বিপাকে

0
47
 বিদ্যুৎ সংযোগের খামে লাগানো ডিসের সংযোগ এ বাক্স ভেঙে নিয়ে যায় মেশিন গুলো

গোলাম মোস্তফা :

চাঁদপুর শহরের কোড়ালিয়া রোডে রাতের আঁধারে স্হানীয় চিহ্নিত কিছু দূবৃওরা ডিস লাইনের বাক্স খুলে মেশিন ও তাঁর কেটে নিয়ে যাওয়ার ঘটনার ১ সপ্তাহ পার হলেও এ ঘটনার কোনো সুরাহা না হওয়ায় এলাকা বাসীর মাঝে তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

http://picasion.com/

গত ২১ জানুয়ারী দিবাগত রাতে চাঁদপুর ক্যাবল নেটওয়ার্কের শহরের কোড়ালিয়া অংশের ডিস সংযোগের বাক্স ভেঙে সকল মেশিন ও কয়েকটি মহল্লার ডিস লাইনের তাঁর কেটে নিয়ে যায় চিহ্নিত কিছু দূবৃও।

এ ঘটনায় ডিস ব্যবসায়ীর কয়েক লক্ষ টাকার যেমনি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তেমনি এ ঘটনার বিষয়ে এখন পযন্ত কোনো সুরাহা না হওয়ায় এলাকা বাসীর মাঝে তীব্র ক্ষোভের দেখা দিয়েছে।

গত ৭দিনেও সংযোগ বিছিন্ন লাইন গুলোতে পুনরায় সংযোগ না দেওয়ায় কয়েক হাজার গ্রাহক ও স্হানীয় জনগণ সকল খবরা খবর এবং সকল ধরনের বিনোদন মুলক অনুষ্ঠান বা টিভি দেখা থেকে বন্ঞিত রয়েছে। যার ফলে দিন দিন ফুসে উঠছে এলাকাবাসী।

শুধু তাই নয়, এ ঘটনা কে কেন্দ্র করে কোড়ালিয়া এলাকায় যে কোনো মুহুর্তে ঘটে যেতে পারে খুনাখুনি বা রক্ত ক্ষয়ী সংঘষের ঘটনা।

এদিকে বিক্ষুব্ধ এলাকা বাসীর অভিযোগ, স্হানীয় একটি প্রভাবশালী মহলের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ইন্দ্বনে গুটি কয়েক চিহ্নিত সন্তাসী ও চাঁদাবাজ যুবকরা এ এলাকায় দীর্ঘ দিন যাবত বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছে।

এদের বিরুদ্ধে কেউ কোনো কথা বলতে চাইলে, তাকে বিভিন্ন হয়রানি হওয়ার অভিযোগও রয়েছে । এদের অপকর্মের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে সন্তাসী হামলার শিকার হয়ে আহত হওয়ার ঘটনার নজির ও রয়েছে।

তাই যারা এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে যেমনি এলাকা বাসী মুখ খুলছে না। তেমনি ক্ষতি গ্রস্ত ব্যবসায়ী ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে সাহস পাচ্ছে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রত্যক্ষদশীরা জানান , এ ঘটনাটি যখন ঘটছে, তখন কারা এবং কে কে এ ঘটিয়েছে তাদের সকলকে চিনছেন। শুধু তাই নয়, এ ঘটনা চলমান অবস্থায় কমিউনিটি পুলিশ উক্ত অঞ্চলের একজন উদ্বতন কমকর্তা এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি তাৎক্ষণিক চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ কে এ ঘটনার বিষয়ে জানালে, ঘটনার পর পরই ঘটনা স্হলে মডেল থানা পুলিশ উপস্থিত হয় । পুরো ঘটনাস্হল পরিদর্শন ও ঘটনায় কী ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা প্রত্যক্ষ করে।

শুধু ঘটনার পর পরই নয়, ঘটনা স্হলে এর পরও চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ গিয়ে ঘটনার বিষয়ে তদন্ত এবং এলাকা বাসীর সাথে কথা বলে আসে। এরপর ও ঘটনার ৭দিন অতিবাহিত হয়েগেলেও ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে নেওয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা এবং এলাকাবাসী পায়নি পুনরায় ডিস সংযোগ।

এদিকে ঘটনার পর থেকে এ ঘটনার সাথে জড়িতরা যেভাবে বিভিন্ন সময়ে মহড়া দিচ্ছে এবং তাদের পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে চলছে এ অবস্থায় খুনাখুনি বা রক্ত ক্ষয়ী সংঘষের আশংকায় এলাকা বাসী ভীতিকর পরিবেশে দিনযাপন করছে।

এবিষয়ে চাঁদপুর ক্যাবল নেটওয়ার্ক কোড়ালিয়া অংশের মালিক আবুল কালাম আজাদ কালু হাওলাদার কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি। তবে বিশ্বস্ত একটি সুএ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জানান, মালিক আবুল কালাম আজাদ কালু হাওলাদার এবং তাঁর পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তা হীনতায় রয়েছে, বিভিন্ন মাধ্যমে তাকে হুমকি ধমকি দেওয়া হচ্ছে। তাই তিনি এ বিষয়ে কোনো কথা বলতে চাইছেন না।

এ অবস্থায় এলাকাবাসী শান্তি পূর্ণ সহাবস্থানে বসবাস করার স্বাথে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন , পৌরপিত বা পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ নাছির উদ্দীন আহমেদ এবং চাঁদপুর হাইমচর আসনের জনগণের আস্থার প্রতীক মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে দ্রুত এ বিষয়টি শান্তি পূর্ণ সমাধানের আহবান জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য গত ২১ জানুয়ারী রাত সাড়ে ১১টার দিকে চাঁদপুর ক্যাবল নেটওয়ার্কের শহরের কোড়ালিয়া রোড অংশের খামের সাথে লাগানো ডিসের লাইনের সংযোগের ৪ টি বাক্স ভেঙে সকল মেশিন ও ডিস লাইনের পুরো কোড়ালিয়ার কয়েকটি মহল্লার লাইনের তাঁর গুলো কেটে ছোট ছোট টুকরো করে রাস্তায় ফেলে রাখে কিছু চিহ্নিত দূবৃও। এ ঘটনা নিয়ে স্হানীয় পএিকা গুলোতে সংবাদ শিরোনাম হয়। তারপর ও বিষয় ৭ দিন পেরিয়ে গেলেও কোনো সমাধান হয়নি।

বিদ্যুৎ সংযোগের খামে লাগানো ডিসের সংযোগ এ বাক্স ভেঙে নিয়ে যায় মেশিন গুলো

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
144 জন পড়েছেন
http://picasion.com/