d

ইসলামের ফলিত দর্শন ও মূল নির্যাসই হচ্ছে সুফিবাদ : সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আলহাসানী

গোলাম নবী খোকন, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট :

আন্তর্জাতিক সংগঠন ইন্টারন্যাশনাল এসোসিয়েশন অব সুফিস স্কলারের আয়োজনে তুরস্কের ইস্তাম্বুল ইয়ালোভার আর মোদিস হোটেলে ৯ম আন্তর্জাতিক ইসলামী সম্মেলনে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্ব থেকে যাওয়া শতাধিক সুফি ব্যক্তিত্বের অংশগ্রহণে ১৫ ফেব্রুয়ারি শনিবার শুরু হয়েছে।

এতে বাংলাদেশ থেকে বিশেষ অতিথি ও আলোচক হিসেবে বর্তমান সময়ে মুসলমানদের তাসাউফের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা করেন সুফি ব্যক্তিত্ব, ওয়ার্ল্ড সুফি ফোরাম বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও মাইজভা-ার দরবার শরীফের বর্তমান ইমাম শাহ সুফি মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী। তিনি বলেন, ইসলামের ফলিত দর্শন ও মূল নির্যাসই হচ্ছে সুফিবাদ।

বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় সুফিবাদি মানবিক ইসলাম চর্চাকে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে হবে। মুসলিম বিশ্বে সংঘাত সহিংসতার জন্য শাসকদের গণবিমুখতা ও স্বেচ্ছাচারিতাই বেশি দায়ী। শাসকরা দায়িত্বশীল ও গণমুখী হলেই চলমান বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে উত্তরণ সম্ভব।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন সৈয়দ মো. আল হোসাইনী (তুর্কি)। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ড. মো. উজ্জান আল হাদীদ আমিন। আন্তর্জাতিক ইসলামী সম্মেলনে বিভিন্ন দেশের সুফি ব্যক্তিত্বদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন প্রফেসর ড. হাসান বাশিশ (তুর্কি), ড. মাজেন শরীফ (তিউনিসিয়া), শেখ আহমদ তিজানী বিন ওমর (ঘানা), সালমান চিশতী (ইন্ডিয়া), শেখ বাজু (লেবানন), আব্দুল্লাহ শরীফ আল-উজানী (মরক্কো), ড. সোলাইমান তিজানী (নাইজেরিয়া), শায়খ ড. আব্দুল বারী (সোমালিয়া), ড. মাসউদ আহমদ রেযা (বৃটেন), ড. মো. মতিউল্লাহ নহর কারীজি (আফগানিস্তান), ড. সাইয়েদী আলী মাউন আইনাইনসহ (মরক্কো), সৌদি আরব, ইরান, ইরাক, বাহরাইন, কাতার, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, সিরিয়াসহ বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিগণ। আজ সোমবার পর্যন্ত চলবে এ আন্তর্জাতিক ইসলামী সম্মেলন।

235 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন