matlab6

এক রাতে পাঁচ বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় সিআইডির জালে মতলব উত্তরের আদনান

সফিকুল ইসলাম রানা, মতলব উত্তর করেসপন্ডেন্ট :

বন্দরের এক রাতে পাঁচ বাড়িতে গণডাকাতি ও গুলিবর্ষণ করে ৩ জনকে আহত করার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় মাহফুজুর রহমান আদনান (২৮) নামে এক ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে নারায়ণগঞ্জ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি।

১০ ফেব্রæয়ারি রাতে চাঁদপুরের মতলব উত্তর থেকে তাকে আটক করা হয়। মতলব উত্তরের সুগন্ধি এলাকার আবদুল হামিদের ছেলে। তার বিরুদ্ধে অন্তত ১৫টি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে সিআইডি।

এদিকে গ্রেপ্তারকৃত মাহফুজুর রহমান আদনানকে মঙ্গলবার (১১ ফেব্রæয়ারি) নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউসার আলমের আদালতে হাজির করা হলে সে তার দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

সে বিচারকের কাছে জানিয়েছেন, ডাকাতি জলদস্যুতা চাঁদাবাজি মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাÐের সাথে জড়িত রয়েছেন। সিআইডির ইন্সপেক্টর গাজী মিজানুর রহমান গণমাধ্যমের কাছে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ৭ জানুয়ারি বন্দর থানার দায়ের করা একটি মামলা সিআইডিকে হস্তান্তর করা হয়। পরে এই মামলা তদন্তে নামে সিআইডি।

তদন্তকালে মামলায় আদনানের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত হয়ে চাঁদপুরের মতলব উত্তরে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। তিনি আরো বলেন, আদনানরা সংঘবদ্ধ একটি ডাকাত দল।

তারা ট্রলারযোগে নদীর উপক‚লীয় এলাকায় বসতবাড়িতে ডাকাতি করে থাকে। অনুরূপভাবে চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি বন্দর উপজেলাতেও তাদের দল এক রাতে পাঁচ বাড়িতে ডাকাতি সংগঠিত করে। আদনানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১০ থেকে ১৫ টি মামলা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে উপজেলার চর ধলেশ্বরী গ্রামের জুনায়েদ মিয়ার বাড়িতে ২০ থেকে ২৫ জনের একটি ডাকাত দল হানা দেয়।

এ সময় ডাকাতরা বাড়ির লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে জুনায়েদ, সিরাজুল আলম, আনোয়ার হোসেনের ঘর থেকে নগদ ১ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা, আড়াই ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ডাকাতরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে ছুড়তে মেঘনা নদী দিয়ে ট্রলার নিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় শিশুসহ ৩ জন গুলিবিদ্ধ হয়, তারা হলেন শিশু সাহেলা (১১), পিপন (৩২) ও নূর মোহাম্মদ (৫৫)।

325 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন