ফরিদগঞ্জে ১৪৭ বস্তা চাল নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় ও আলোচনার ঝড়

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
উপজেলার ৮ নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের সাহাপুর গ্রামে ১৪৭ বস্তা চাল দিয়ে ব্যাপক আলোচনার ঝড় উঠেছে। প্রতি বস্তা চাল চাল ৩০কেজি ৮০০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। ইউপি সদস্য এমরান হোসেন তালুকদার ৮শ টাকা দরে চাল বিক্রির কথা স্বীকার করেছে।

সরেজমিনে জানা যায় ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন এর ৪নং ওয়ার্ডে সাহাপুর গ্রামে বিভিন্ন বাড়িতে ১৪৭বস্তা চাল ৮শ টাকা দরে বিক্রি করেন ইউপি সদস্য ইমরান হোসেন তালুকদার।

এই চাল নিয়ে ওই এলাকায় ব্যাপক আলোচনার ঝড় উঠেছে উঠেছে সারাদেশে যখন সরকার চাল চোরদের বিভিন্নভাবে ধরে সাজা দিচ্ছে তখনই এরকম চাল বিক্রির ঘটনায় এলাকায় আলোচনা সমালোচনার অব্যাহত রয়েছে চাল ক্রেতা মোবারক বেপারী বলেন বলেন হতদরিদ্র হাওয়ায় ইমরান মেম্বারের এর কাছ থেকে থেকে এর কাছ থেকে থেকে ৮ শ টাকা দরে তিন বস্তা চাল ক্রয় করেছি।

এটা কিসের চাল আমাদের জানা নেই। নেছার আহমদ এক বস্তা রিয়াদ হোসেন তিন বস্তা ফারুক হোসেন দুই বস্তা কামাল হোসেন দুই বস্তা দিলু তালুকদার দুই বস্তা এইভাবে বাড়ির এবং এলাকার অন্যান্য লোকজন এক বস্তা দুই বস্তা করে দুই বস্তা করে বস্তা করে একশত ১৪৭ রাস্তা চাল বিক্রি করা হয়েছে। ইউপি সদস্য ইমরান হোসেন তালুকদার এর কাছে জানতে চাইলে কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন এগুলো কাবিখার চাল তাকে বেপারী বাড়ী হইতে পাটোয়ারী বাড়ির ব্রীজ পর্যন্ত পর্যন্ত ব্রীজ পর্যন্ত পর্যন্ত কাঁচা রাস্তা মেরামত করার জন্য ৪টন ৪শ কেজি চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। আমি রাস্তা মেরামত করে চাল বিক্রি করে লেবারের টাকা পরিশোধ করেছি। এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান শওকত আলী বিএসসি বিএসসি বলেন এখানে কোন প্রকার অনিয়ম দুর্নীতি হয় নাই।

কাজের বিনিময় খাদ্য কর্মসূচির শ্রমিকরা চাল নিচ্ছে না বিধায় বিধায় না বিধায় বিধায় বিক্রি করে মেম্বার তাদের টাকা পরিশোধ করেছে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিল্টন দস্তিদার প্রথমে তিনি বলেন ওই ইউনিয়নে কোনো বরাদ্দ দেওয়া হয়নি দেওয়া হয়নি হয়নি কিন্তু এ চাল কোথায় থেকে বিক্রি করেছে তা আমার জানা নেই।

তিনি বিষয়টি এড়িয়ে য়াওয়ার চেষ্টা করেন। আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন হ্যাঁ এখানে সাড়ে চার টন চাল বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে তিনি মোবাইল ফোনে বলেন যা কিছু হয়েছে এটা প্রকল্প কমিটির সভাপতি দায়িত্ব তিনি শ্রমিকদেরকে চাল দেওয়ার কথা চাল না না দিয়ে যদি চাল বিক্রি করে টাকা দেয় সেটার দায় দায়িত্ব তার উপরে পড়ে।

183 জন পড়েছেন

Recommended For You

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়