শ্বেতপ্রদর ও স্ত্রী যৌনাঙ্গপথে প্রদাহের কারণ ও প্রতিকার

0
99

হাকীম মিজানুর রহমান :

স্ত্রীলোকের যোনিপথে প্রদাহ : একটি যৌনবাহিত রোগ। স্বামী-স্ত্রী মিলনের ফলে অথবা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারণে অথবা অপরিষ্কার অপরিচ্ছন্নতার কারণে স্ত্রীলোকের যোনিপথে প্রদাহ হয়ে থাকে। এ ধরনের প্রদাহের উৎস হচ্ছে : যৌনি পথের অপরিষ্কার অপরিচ্ছন্নতা। চর্মরোগ। মূত্রতন্ত্রের সংক্রমন। পুষ্টির অভাবে। গর্ভাবস্থায়। অপরিষ্কার এবং আটসাট পায়জামা বা প্যান্ট ব্যবহার করলে। জন্ম নিয়ন্ত্রণে যৌনিপথে কোন জেলি বা কপারটি ব্যবহার করলে।
এ ধরনের প্রদাহ দুটি কারণে হয়ে থাকে।

http://picasion.com/

সংক্রমিত প্রদাহ : নির্দিষ্ট ব্যাকটেরিয়া দ্বারা গনোরিয়া, সিফিলিস ইত্যাদি।
নির্দিষ্ট ছত্রাক দ্বারা: ট্রাইকোমোনাল, মনিলিয়াল ইত্যাদি।

লক্ষণ : স্বামী সহবাসে যোনিপথে জ্বালা ও ব্যথা হতে পারে। প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া থাকতে পারে। জ্বর থাকতে পারে। যোনিপথে দুর্গন্ধযুক্ত পাতলা সাদাস্রাব থাকে। যোনিপথে ফোলা ও লাল দেখা যেতে পারে। যোনিপথের স্রাব পরীক্ষা করলে নির্দিষ্ট জীবাণু পাওয়া যাবে।

প্রতিরোধে করণীয় :
ক্স রোগীকে ব্যক্তিগত পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে সচেতন হতে হবে।
ক্স পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে।
ক্স রোগীকে প্রচুর পানি খেতে হবে।
ক্স বিশ্রাম নিতে হবে।
ক্স রোগ মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত স্বামী সহবাস থেকে বিরত থাকতে হবে অথবা স্বামী সহবাসের সময় স্বামীকে কনডম ব্যবহার করতে হবে।
ক্স রোগীর কাপড় চোপড় যাতে অন্য কেউ ব্যবহার না করে সে বিষয়ে রোগীকে সতর্ক থাকতে হবে।

লিউকোরিয়ার লক্ষণ :
ফিজিওলজিক্যাল লিউকোরিয়ার ক্ষেত্রে সাদা শ্লেষ্মার মতো রস নিঃসৃত হয়। পরিমাণে কম হয়। ট্রাইকোমানাস ভ্যাজাইনালিস নামক জীবাণুর কারণে হলে স্রাবের পরিমাণ বেশি হয়। ¯্রাব কখনো সাদা দইয়ের মতো, কখনো কিছুটা ঘন সবুজাভ বা হলুদাভ ক্রিম রঙের হয়। ক্যানডিডা এলবিকানসের কারণে হলে জননাঙ্গে ইচিং হয়। গনোরিয়ার জীবাণু দ্বারা হলে স্রাবে দুর্গন্ধ হয়। সব ক্ষেত্রেই তলপেটে, কোমরে বা পিঠে ব্যথা হতে পারে। শরীর দুর্বল, মাথা ঘোরা, খাবারে অরুচি ইত্যাদি উপসর্গও থাকতে পারে। ঘন ঘন প্র¯্রাবের বেগ ও জ্বালাপোড়া হতে পারে।

পরামর্শ :
ক্স ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে হবে।
ক্স নিয়মিত ধোয়া অন্তর্বাস পরতে হবে।
ক্স ১০০ ভাগ সুতি অন্তর্বাস হতে হবে।
ক্স কুসুম গরম পানি ও কম ক্ষারযুক্ত সাবান ব্যবহার করতে হবে।
ক্স কোনোরকম সুগন্ধি স্প্রে ব্যবহার করবেন না।
ক্স পুষ্টিকর খাবার ও পর্যাপ্ত পানি খাবেন। খাবার তালিকায় যেন রসালো ফল, শাকসবজি থাকে।

এটি জটিল কোনো রোগ নয়, তবে দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা। তাই নিয়মিত চিকিৎসা নিন ও নির্দিষ্ট নিয়ম-কানুন মেনে চলুন।

প্রয়োজনে সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা (নামাজের সময় ব্যতীত) যোগাযোগ করতে পারেন…


হাকীম মুহাম্মদ মিজানুর রহমান (বিএসএস, ডিইউএমএস)

ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার

গাউছিয়া টাওয়ার (৩য়তলা), হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
মুঠোফোন : ০১৭৭৭৯৮৮৮৮৯, ০১৭৬২২৪০৬৫০

শ্বেতী, যৌনরোগ, হাঁপানি, হার্নিয়া, পাইলস, লিকুরিয়া, ব্রেনস্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক, ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, উচ্চ রক্তচাপ, বাত বেদনা, গাউট, পক্ষাঘাত, চর্মরোগ, অ্যালার্জি, জন্ডিস, লিভার সমস্যা, আইবিএস, হার্ট ও শিরার ব্লকেজ, স্ত্রী রোগ, স্বপ্নদোষ নিরাময়-সহ সর্বরোগের চিকিৎসা করা হয়।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
285 জন পড়েছেন
http://picasion.com/