কচুয়ায় ২ দিন আটকে রেখে ১৫ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার :

চাঁদপুরের কচুয়ায় ২ দিন আটকে রেখে ১৫ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, গত ২ আগষ্ট রবিবার বিকালে কচুয়া উপজেলার সাচার ইউনিয়নের সুয়ারুল গ্রামের গিয়াসউদ্দিন এর মেয়ে তার নানার বাড়ি দাউদকান্দি উপজেলার ধোলেশ্বর গ্রামে বেড়াতে যাওয়ার পথে সাচার ফুয়েল স্টেশন সংলগ্ন সড়কে তার পূর্বপরিচিত পাশ্ববর্তী আটমোড় গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে আবদুল্লাহ ওই কিশোরীকে তার নানার বাড়ি পোছে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে একটি অটোরিক্সায় তুলে।

 

পরবর্তীতে বায়েকের মোড় পার হওয়ার পর আবদুল্লাহ তাকে চেতনানাশক ওষুধ মিশ্রিত পানি পান করায়। ফলে কিশোরী জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এসময় আব্দুল্লাহ ওই কিশোরীকে দাউদকান্দি উপজেলার জিংলাতলী গ্রামের এক মাছে প্রজেক্টে নিয়ে যায়। এবং ২ আগষ্ট রবিবার থেকে ৪ আগষ্ট মঙ্গলবার পর্যন্ত ওই কিশোরীকে টানা কয়েকবার জোরপূর্বক ধর্ষন করে বলে ভুক্তভোগী কিশোরী অভিযোগ করেন।

ওই কিশোরী আরো জানান, মঙ্গলবার দুপুরে আব্দুল্লাহ গোসল করতে গেলে তিনি মৎস্য প্রজেক্ট থেকে পালিয়ে যায়। এবং পালিয়ে গৌরিপুর চলে আসে। গোরিপুর আসার পর গৌরিপুর ফুটওভার ব্রিজ এর কাছে আকস্মিকভাবে তার এক খালার সাথে দেখা হলে সে বিষয়টি তার খালাকে জানায়।

 

এবং তার খালা পরিবারের লোকজনকে বিষয়টি অবহিত করলে তারা এসে কিশোরীকে বাড়িতে নিয়া যায়। ৫ আগষ্ট বুধবার সকালে কিশোরীর অবস্থার অবনতি দেখা দিলে তার পরিবারের লোকজন তাকে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে আসে। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালে রেফার করে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর পরিবারের লোকজন কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।এবিষয়ে উপযুক্ত বিচারের দাবী ভুক্তভোগী পরিবারের।

 

65 জন পড়েছেন

Recommended For You

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়