‘নদী ভাঙ্গন ও বাঁধ রক্ষায় সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে’

মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের সিকিরচর-সুগন্ধি-মালোপাড়া পরিদর্শনে আলহাজ্ব অ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল এমপি 

গোলাম নবী খোকন :

দেশের অধিকাংশ জেলায় বন্যা, মানুষ কষ্টে জীবন যাপন করছে, চাঁদপুরের মতলবে মেঘনা ধনাগোদা নদীর পানি স্বাভাবিক বর্ষার চেয়েও বৃদ্ধি।

মতলব তথা মতলব উত্তর উপজেলার মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্প বেড়ীবাঁধের বাহিরের কিছু কিছু গ্রাম ও রাস্তা ঘাট জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যায় এবং ভাটায় পানি নেমে যায়।

যেমন গত ৫ আগষ্ট দুপুরে চাঁদপুর -২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এড নুরুল আমিন রুহুল এমপি সিপাই কান্দি , ঠেটালীয়া বেড়ীবাঁধ ও নদী ভাঙ্গন এলাকা একেবারে শুকনা রাস্তা দিয়ে হেটে পরিদর্শন করেন।

দেখা গেছে রাতের বেলায় রাস্তা ঘাট তলিয়ে গ্রামে পানি প্রবেশ করে। এ ছাড়া মাইজ কান্দি সহ লক্ষীপুর, চর লক্ষী পুর, ষাটনল ইউনিয়নের মালো পাড়া গ্রাম তলিয়ে যায়, দিনে শুকনা রাতে বিছানায় পানি, মানুষ আছে আতঙ্কে। আজ দুপুরে মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের সিকিরচর ও সুগন্দি বেড়ীবাঁধ পরিদর্শন করেন এমপি নুরুল আমিন রুহুল।

তিনি নিজেই নৌকায় উঠে বালির বস্তা কয়েকটি গর্তে নিক্ষেপ করেন। এ ছাড়া বাঁধের বাহির নদীর তীরে মালো পাড়া ( জেলে পাড়া) গ্রাম পরিদর্শন করেন, ঐ খানের মানুষের দুঃখ দূর্দশার কথা শোনেন এবং গ্রাম ও বাঁধ রক্ষায় কাজ করার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃ পক্ষের নির্দেশ প্রদান করেন।

তিনি পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীমকে এ বিষয়ে অবহিত করেন। এ বর্ষা মৌসুমে সিপাই কান্দি, ঠেটালীয়া,গাজী পুর, চরমাছুয়া, আমিরাবাদ, জহিরাবাদ, একলাশপুর, মোহনপুর সিকিরচর, সুগন্ধি ও মালো পাড়া পরির্দশন করেন ও জরুরী জিও ব্যাগ বর্তি বালির বস্তা নিক্ষেপ করার জন্য ব্যবস্হা গ্রহনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এ সময় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা, কর্মচারী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এএম জহিরুল হায়াত, স্হানীয় আওয়ামীলীগ ও সহ যোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

217 জন পড়েছেন

Recommended For You

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়