chandpur report 532

ফরিদগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধে হামলার সপ্তাহ পর বৃদ্ধার মৃত্যু

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
ফরিদগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হালিমা খাতুন (৭৫) এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন থাকার পর অবশেষে মারা গেছেন।
এব্যাপারে নিহতের ছেলে জবেদ উল্ল্যা মাস্টার মঙ্গলবার দুপুরে বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে। থানা পুলিশ মঙ্গলবার বিকালে বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। হামলার ঘটনাটি গত ১০ আগস্ট উপজেলার ১২নং চরদুখিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের পশ্চিম চরদুখিয়া গ্রামে ঘটে।
জানা গেছে, পশ্চিম চরদুখিয়া গ্রামের জবেদ উল্ল্যা মাস্টারও আ. আউয়াল কালু গংয়ের সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে।
এই বিরোধকে কেন্দ্র চলতি বছরের ১৮ জুলাই জবেদ উল্ল্যা গংয়ের উপর হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় জবেদ উল্ল্যা ও তার মা হালিমা খাতুনসহ ওই পরিবারের ৭জন আহত হয়। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাশেষে বাড়ি আসলে গত ১০ আগস্ট দুপুরে পুনরায় তাদের উপর হামলা করে প্রতিপক্ষরা।
এই হামলায় জবেদ উল্ল্যা, মা হালিমা খাতুন, ভাই আমিন উল্লাহ, ভাবি সাহিদা বেগম, ভাতিজা মনজুর হোসেন, ভাতিজি শারমিন আক্তার, নাজমিন আক্তার, খালা আলিমেরনেছা আহত হয়। পরে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় ১৮ আগস্ট মঙ্গলবার সকালে হালিমা খাতুন মারা যান। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ বিকালে পোস্ট মর্টেমের জন্য লাশ উদ্ধার করেছে।
এব্যাপারে জবেদ উল্ল্যা মাস্টার বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। জবেদ উল্ল্যা জানান, চলতি বছরের ১৮ জুলাই হামলার ঘটনায় আমরা আদালতে মামলা দায়ের করি। সেই মামলা দায়েরের পর তারা আবারো ক্ষিপ্ত হয়ে হামলা করে। পরে আমার মা গুরুতর আহত হয়ে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় মঙ্গলবার ভোরে মৃত্যু বরণ করেন।
এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিব জানান, লাশ উদ্ধার করে পোস্ট মর্টেমের জন্য চাঁদপুর পাঠানো হয়েছে। মামলা দায়ের হয়েছে।
প্রকাশিত : ১৯ আগস্ট ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ০৪ ভাদ্র ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮ জ্বিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরি, বুধবার
76 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন