editorial

আমাদের বিবেকবোধ মরে গেছে?

সম্পাদকীয়…

৯৯৯ নম্বরের ব্যবহার বেড়েই চলেছে
‘নির্লজ্জতা কাহাকে বলে!’ ধর্ষণের মতো জঘন্য ঘটনাগুলো আমাদের আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়। নারীর অসহায়তার সুযোগে হিংস্র হায়েনার মতো ঝাঁপিয়ে পড়ে কিছু নরপশু। যাকে বিশ্বাস করে তার কাছাকাছি অবস্থান করা হয়, তার মাধ্যমেই ধর্ষিত হয় নারীরা। এসব ঘটনা মেনে নেয়া যায় না। সমাজ কোনোভাবেই মেনে নিতে পারে না।

নিজের শ্যালিকাকে ধর্ষণের মাধ্যমে নির্লজ্জতার প্রমাণ দিয়েছে শেরপুরের এক জঘন্য নরপশু। প্রিয় সময়ে ‘শেরপুরে শ্যালিকাকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, ভগ্নিপতি গ্রেফতার’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছি সেই নরপশুর কুরুচিপূর্ণ কার্যক্রমের ঘটনাটি।

সেই লোক শুধু ধর্ষণ করেই ক্ষান্ত হয়নি, সেই ধর্ষণের চিত্র ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করার হুমকিও দিয়েছে। উক্ত ঘটনায় ‘শেরপুরে শ্যালিকাকে (১৯) ধর্ষণ ও ধর্ষণের চিত্র ভিডিও ধারণের অভিযোগে মুন্না খান (২৮) নামে এক সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।’

প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছি, ‘ধর্ষক মুন্না খানের শ্বশুরবাড়ি ফরিদপুর। তার স্ত্রীর সিজারে বাচ্চা হয়। বোনের দেখাশোনা করার জন্য মুন্না তার বিবাহিত ঐ শ্যালিকাকে সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নের সাপমারী গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসে। দু’দিন থাকার পর শ্যালিকা ফরিদপুরে চলে যেতে চাইলে মুন্না তাকে ঢাকা পর্যন্ত ছেড়ে দেবে বলে সকালে গাড়িতে করে শেরপুর শহরের রাজবল্লভপুরের বাসায় নিয়ে যায়।

সেখানে সে সকাল থেকে কয়েক দফায় তাকে ধর্ষণ করে। সবচেয়ে দুঃখজন বিষয় হলো যে, সেই মেয়েকে ধর্ষণের চিত্র কয়েকজনের সহযোগিতায় ভিডিও করা হয়। আর মুন্না ঘটনাটি কাউকে জানালে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হুমকি দেয়। কিন্তু সুযোগ বুঝে রাতে শ্যালিকা ৯৯৯ ফোন করে ঘটনাটি পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে সদর থানার পুলিশ রাজবল্লভপুরের বাসা থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে ও ধর্ষক মুন্নাকে আটক করে। পরে ওই ঘটনায় ভিকটিম বাদী হয়ে ভগ্নিপতি ও তার ৩ সহযোগীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ এবং পর্ণোগ্রাফী আইনে পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করেছে।

এখানে আমরা একটা বিষয় স্পষ্ট জানতে পেরেছি যে, ৯৯৯ নম্বর ব্যবহারের কারণেই মেয়েটি অন্তত নিজের প্রাণকে রক্ষা করতে পেরেছে। এর আগেও আমরা দেখেছি ৯৯৯ নম্বর ব্যবহারের মাধ্যমেই তারা নিজেদের রক্ষা করতে পেরেছে। খুব সহজে যে কোনো ফোন থেকেই ৯৯৯ নম্বর থেকে ফোন করে নিজের সমস্যার কথা বা বিপদের কথা জানানো যায়।

আর দ্রুত গতিতে সেই বিপদ থেকে নিজেকে উদ্ধার করা যায়, তার প্রমাণ আমরা এই মেয়েটির বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে জানতে পেরেছি। শুধু মেয়েদেরই নয়, সকল মানুষকেই ৯৯৯ নম্বরটি মনে রাখা উচিত এবং প্রয়োজনে এই নম্বরটি ব্যবহার করা উচিত ও অন্যকে ব্যবহার করতে উৎসাহিত করা উচিত।

আমরা খবরের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, সঠিক সংবাদ পরিবেশনই আমাদের বৈশিষ্ট্য

২২ অক্টোবর ২০২০ খ্রি. ০৬ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরি, বৃহস্পতিবার

Add piles sex Diabeties all

84 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন