chandpur report 957

হাইমচরে আটক ৮ জেলেকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা

হাইমচর প্রতিনিধি :
চাঁদপুর জেলার হাইমচরে কোস্টগার্ড ও মৎস্য বিভাগের যৌথ অভিযানে ইলিশ নিধনকালে মেঘনা নদী থেকে ৮ জেলেকে আটক করা হয়েছে।

আটক প্রত্যেক জেলেকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করে ছেড়ে দেয়া হয়।

১৯ অক্টোবর ২০২০ খ্রি. সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফেরদৌসী বেগম ভ্রাম্যমান আদলত বসিয়ে জেলেদেরকে জরিমানা করেন।

অন্যদিকে হাইমচরের ৮ জেলেকে ১ বছর করে সাজা দেয়া হয় রোববার। আজ হরিনা এবং বহরিয়ার জেলেদেরকে জরিমানা করে ছেড়ে দেয়ায় জেলেদের মাঝে এ বিষয়ে অসন্তোষ ও আলোচনা সমালোচনা চলছে।

সোমবার ভোর ৪টায় হাইমচর কোস্টগার্ড মাস্টার চীফ পেটি অফিসার মো. ইছহাক আলীর নেতৃত্বে কোস্টগার্ড পেটি অফিসার এমদাদের পরিচালনায় কোস্টগার্ড ও উপজেলা মৎস্য বিভাগ মেঘনায় জাতীয় সম্পদ ইলিশ রক্ষায় অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযান চলাকালীন সময়ে মেঘনায় চাঁদপুর সদর উপজেলার বহরিয়া ও হরিনা এলাকার জেলেরা মাছ নিধনকালে ৮ জেলেকে আটক করে। এছাড়া ২লাখ ৫০ হাজার মিটার জালসহ ৭০ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করে। আটক জেলেদের উপজেলা নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট নিকট প্রেরণ করেন। জব্দকৃত জাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। জব্দকৃত মাছ স্থানীয় এতিম খানায় বিতরণ করা হয়।

আটক জেলেদের উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফেরদৌসী বেগম ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৫হাজার টাকা করে জরিমানা করে প্রত্যেককে ছেড়ে দেন।

স্থানীয় ক’জন জেলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, যে জেলেরা বহর নিয়ে হাইমচরের মেঘনায় মাছ নিধন করে। যাদের কাছে প্রশাসন পর্যন্ত অসহায়, আজ তারা আটক হলেও ৫হাজার টাকার বিনিময়ে ছাড় পেয়ে যায়। তারা বুকভরা সাহস নিয়ে মেঘনায় আবার মাছ শিকার করবে আমরা নিশ্চিত। অথচ গতকাল আমাদের এলাকার ৮জন জেলে এই নদীতেই মাছ শিকার করতে গিয়ে আটক হলে তাদেরকে ১ বছর করে সাজা প্রদান করেন। তাহলে আমাদের জন্যই কি মাছ ধরা নিষেধ? তাদের জন্য কি বৈধ? জেলেদের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হলো ইলিশ রক্ষা অভিযান।

আমরা খবরের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, সঠিক সংবাদ পরিবেশনই আমাদের বৈশিষ্ট্য

১৯ অক্টোবর ২০২০ খ্রি. ০৩ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরি, সোমবার

 40 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন