chandpur report 1232

কচুয়ায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অবস্থান

স্টাফ রিপোর্টার :
কচুয়া উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়নের বড়-হায়াতপুর গ্রামের সরকার বাড়িতে বিয়ের দাবিতে প্রেমিক শম্ভু সরকারের বাড়িতে প্রেমিকা অন্তরা সরকার অবস্থান নিয়েছে।

১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় নারায়নগঞ্জের চাষারা এলাকার লিটন সরকারের কলেজ পড়–য়া মেয়ে অন্তরা সরকার পরিবারের কাইকে না বলে বিয়ের দাবিতে নারায়ণগঞ্জ থেকে তার প্রেমিক কচুয়া উপজেলার বড়-হায়াতপুর গ্রামের সরকার বাড়ির পরেশ সরকারের ছেলে শম্ভু সরকারের বাড়িতে চলে আসে।

এসময় শম্ভুর ঘরে লোকজন না থাকায় স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. মানিক হোসেন একই বাড়ির গ্রাম পুলিশ সুনীল সরকারের গৃহে মেয়েটিকে আশ্রয় দেয়। এসময় উৎসুক জনতা মেয়েটিকে একনজর দেখার জন্য ছেলের বাড়িতে ভীড় জমায়।

অন্তরা সরকার সাংবাদিকদের জানান, আমাকে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘ চার বছর ধরে শম্ভু সরকার আমার সাথে সম্পর্ক করে আসছে। সম্প্রতি আমি শম্ভুকে বেশ কয়েকবার ফোন দিলে সে আমাকে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করে এবং সে আমার সাথে যোগাযোগ বিছিন্ন করে দেয়। শম্ভুর কোন প্রকার খোঁজ খবর না পেয়ে আমি বিয়ের দাবীতে তার বাড়িতে অবস্থান করছি। এসময় মেয়েটির হাত ব্যাগে কিছু ঘুমের ওষুদের খালি পাতা এবং তার পরিবারকে লেখা একটি চিঠি পাওয়া যায়।

এসময় শম্ভু সরকারকে তার বাড়িতে খুঁজে পাওয়া যায়নি এবং তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে তার মা সাংবাদিকদের জানান, অন্তরার সাথে আমার ছেলের দীর্ঘদিনের সম্পর্ক রয়েছে বিষয়টি আমরা জেনেছি। বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমার বড় ছেলে ঢাকা থেকে বাড়ি রওনা হয়েছে।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপায়ন দাস শুভ জানান, বিষয়টি আমি অবগত আছি এবং মেয়েটিকে একজন মহিলা গ্রাম পুলিশের হেফাজতে রাখার জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যকে নির্দেশ প্রদান করেছি।

কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মহিউদ্দিন জানান, সংবাদ পেয়ে ছেলের বাড়িতে পুলিশ ফোর্স পাঠানো হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।
ছবি: কচুয়ায় বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকা অন্তরা অবস্থানের একাংশ।

শেয়ার করুন