chandpur report 1239

মতলবে রোগী টানাটানি নিয়ে মালিক ও দালালের মধ্যে হাতাহাতি

ইমরান নাজির, মতলব দক্ষিণ প্রতিনিধি :
মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী টানাটানি নিয়ে মালিক ও দালালের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার( ১৮ নভেম্বর) দুপুর ১টায় হাসপাতালের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে জানা যায়, মতলব উত্তর উপজেলার হাতিকাটা গ্রামের হেলাল সরকারের মেয়ে শাকিলা ডাক্তার দেখানোর জন্য হাসপাতালের বহির্বিভাগে আসে। বহির্বিভাগে টিকেট কাউন্টারে প্রচুর ভীড় থাকায় সে টিকিটের জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। ওই সময় হাসপাতালের সম্মুখে দি ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মহিলা দালাল জাহানারা এগিয়ে এসে শাকিলা ও অপর এক রোগীর কাছ থেকে ডাক্তার দেখানোর সিরিয়াল আগে করিয়ে দিবে বলে দুই জনের কাছ থেকে দেড়শ টাকা হাতিয়ে নেয়। টাকা নেওয়ার পর জাহানারা কৌশলে টিকেট কাউন্টারের কাছ থেকে সরে যায়। পরবর্তীতে শাকিলা হাসপাতালের চিকিৎসক ডাক্তার মেহেলিনা হোসেন এর কক্ষে গিয়ে চিকিৎসা সেবা নিতে যান। চিকিৎসক তার সমস্যার কথা শুনে রক্ত পরীক্ষা দেন এবং রক্ত পরীক্ষার কাগজটি হাসপাতালে সম্মুখে আরেক প্যাথলজি হযরত শাহাজালাল ( র.) ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের এক মহিলা দালালের হাতে তুলে দেন।

শাকিলা তার রক্ত পরীক্ষা করার জন্য শাহজালাল ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে এসে জাহানারা কে দেখতে পান এবং ডাক্তার দেখানোর সিরিয়াল আগে করিয়ে দিবে বলে টাকা নেওয়ার বিষয়টি শাহজালাল ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক শাহজালালকে অবহিত করেন।

টাকা নেওয়ার বিষয়টি শাহজালাল, জাহানারা কে ডেকে জিজ্ঞেস করার সময় উভয়ের মাঝে তর্ক বাধে। তর্কের একপর্যায়ে শাহজালাল ক্ষিপ্ত হয়ে জাহানারা কে লাথি, চড়-থাপ্পড় ও কিল ঘুষি মারতে থাকে। মারধরের ঘটনায় উপস্থিত লোকজন তাদের উভয়কে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করলেও জাহানারা ক্ষিপ্ত হয়ে শাহজালালের গায়ে হাত তুলে।

তাদের উভয়ের মাঝে মারধরের বিষয়টি হাসপাতালে সম্মুখে আরেক প্যাথলজি দি নোভা মেডিকেল সেন্টারে কর্মরত জাহানারার মেয়ে ইভা তার মাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাকেও শাহজালাল মারধর করে।

হাসপাতালে সম্মুখে মারধরের বিষয়টি মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশ অবহিত হলে তাৎক্ষণিক থানার এএসআই ফরহাদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হন এবং উভয় পক্ষকে বিবৃত করেন। রোগী নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে মারামারি বিষয়ে পরস্পর বিরোধী বক্তব্যের জেরে থানার এসআই উভয়পক্ষকে অভিযোগ করার জন্য বলেন।

ডাক্তার দেখিয়ে দিবে বলে টাকা নেওয়ার বিষয়টি জাহানারা অস্বীকার করে বলেন, আমি তো ওই মেয়েকে কখনো দেখিনি। তার কাছ থেকে কোন টাকা নেওয়ার প্রশ্নই আসে না।

ভুক্তভোগী রোগী শাকিলা বলেন, ডাক্তার আগে দেখিয়ে দিবে বলে ওই মহিলাই আমার কাছ থেকে এবং অন্য আরেক রোগীর কাছ থেকে মোট ১৫০ টাকা হাতিয়ে নিয়ে চলে যায়। পরীক্ষা করার জন্য আমি হাসপাতালের বাইরে আসলে তাকে দেখে চিনতে পারি এবং প্যাথলজির মালিক কে জানাই।

এদিকে মারামারির ঘটনা জাহানারা মতলব দক্ষিণ থানায় মৌখিক ভাবে নালিশ করেছে।তবে জাহানারা ও তার মেয়েকে মারধরের বিষয়টি নিয়ে সমঝোতার জন্য চেষ্টা চলছে বলে জানা যায়।

হাসপাতালে ভিতর এবং বাহিরে রোগী টানাটানি নিয়ে দালালদের মধ্যে হাতাহাতি ও রোগী হয়রানির বিষয়ে হাসপাতাল প্রশাসন কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ না নেয়ার কারণেই হয়রানি শিকার হচ্ছে সেবা নিতে আসা সাধারণ জনগণ। এই নিয়ে হাসপাতাল সড়কে ব্যবসায়ী, পথচারী এবং সেবা নিতে আসা রোগীর স্বজনদের তীব্র ক্ষোভ জন্ম নিচ্ছে বলে অনেকেই অভিমত প্রকাশ করেন।

আমরা সংবাদের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, পাঠকের আস্থাই আমাদের মূলধন

আপডেট সময় : ০৭:৩৪ পিএম

১৮ নভেম্বর ২০২০ খ্রি. ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ০২ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরি, বুধবার

 

শেয়ার করুন