chandpur report 565

মতলব উত্তরে আগাম সীম চাষ করে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা

শফিকুল ইসলাম রানা, মতলব উত্তর প্রতিনিধি :

মতলব উত্তরে আগাম শীতরে সবজি চাষ শুরু হয়েছে। অন্যান্য বছররে মতো এবারো চাষিরা বিপুল উৎসাহে মাঠে নেমেছেন।

আগাম শাকসবজি বাজারে তুলতে পারলে অথিক দামে বিক্রি করা সম্ভব। এ চিন্তা করে তারা এখন ব্যস্ত সবজি চাষে। উপজেলা কৃষি অফসি সূত্রে জানা গেছে,একটি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনয়িনরে মধ্যে কমবেশি প্রায় সব গ্রামেই শীতকালীন শাকসবজি আবাদ চলছে।

এর মধ্যে চরকাশেম বোরচর, চরউমদে, বাহেরচর, ছেংগারচর পৌর ঢালী কান্দি,ছেংগারচর, আদুরভিটি,বালুরচর, তালতলী, খাককান্দা, পাঁচগাছিয়ি, ষাটনল, সটাকী, রুহতিারপাড় র্দুগাপুর, লক্ষ্মীপুর, ইসলামাবাদ প্রায় ৫০টি গ্রামে ব্যাপক আবাদ হয়েছে।উপযুক্ত আবহাওয়া ও পরিবেশ অনুকূলে থাকলে এবার সবজরি ফলন লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি হবে বলে কৃষি বভিাগ জানিয়েছে।উপজেলা কৃষি র্কমর্কতা কৃষিবিদ মো. সালাউদ্দনি জানান, মতলব উত্তর উপজলোয় ব্যাপকভাবে মুলা, বগেুন, ফুলকপি, শিম, টমেটো, লালশাক, বাঁধাকপি, পালংশাক ও পুঁইশাকরে চাষ হয়।

ছেংগারচর পৌরসভার ঢারীকান্দি গ্রামরে কৃষক মোহাম্মদ আলী ও আদুরভিটি গ্রামের নূরনবী বলনে, ‘মৌসুমের শুরুতেই বাজারে শাকসবজি তুলতে পারলে চাহিদা বেশি থাকে, দামও বেশি পাওয়া যায়। আগাম সবজি চাষ করতে হলে যেমন অর্থ পাওয়া যায় তমেনি শ্রমও দিতে হয় বেশি।

এ ছাড়া পোকামাকড়রে জন্য অধিক ওষুধ ছিটাতে হয়। আবার বেশি বৃষ্টি হলে সবজি নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে। আদুরভিটি আলম হোসনে জানান, গত বছর দু’ বিঘা জমিতে আগাম ফুলকপি চাষ করেছিলেন। ফলন ভালো হওয়ায় দামও ভালো পয়েছেলিনে। তাই এ বছর ফুলকপির চাষ করছেনে।

ছেংগারচর পৌরসভার মোহাম্মদ আলী বলনে, ‘প্রতি বছরই আগাম শীতকালীন শিম চাষ করে থাকেন। ১৯৯৮ সাল থেকে আগাম শমি চাষ করে আসছেন। পরকিল্পতিভাবে শিম চাষ করলে শীম চাষ করে লাভমান হওয়া সম্ভব।’ এতে আগ্রহী হয়ে এ বছরও ব্যাপকভাবে শিমের চাষ করেছেন। গত দু’ সপ্তাহ আগে থকেইে তিনি বাজারে বিক্রি করছেন ১২০ টাকা কেজি পাইকারি হিসেবে।শিম বিক্রি থেকে এ বছর প্রায় এক লাখ টাকা আয় হতে পারে।

123 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন