‘মামলার পুরো বিবরণ পড়লে যে কেউ নিশ্চিত হবে এটি সাজানো’

স্ত্রীর দায়ের করা মামলার বিষয়ে ফরিদগঞ্জ পৌর মেয়রের সংবাদ সম্মেলন

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি:
যৌতুক ও নারী নির্যাতনের দায়ে স্ত্রী সোনিয়া আক্তারের দায়ের করা আদালতে মামলার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. মাহফুজুল হক।

রোববার (২২ নবেশ^র)দুপুরে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এই সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। যখনই তার দলীয় বা নির্বাচন সামনে আসে, তখনই একটি চক্র তাকে নানাভাবে হেনস্তা করার জন্য উঠে পড়ে লাগে। সেই অনুযায়ী আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে তিনি যখন নির্বাচন করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তখনি, তার স্ত্রীকে দাবার ঘুঁিট হিসেবে প্রতিপক্ষরা ব্যবহার করে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করিয়েছেন। মামলার পুরো বিবরণ পড়লে যে কেউ নিশ্চিত হবে এটি সাজানো।

তিনি আরো জানান, প্রেম করে বিয়ে করলেও তিনি কখনো সুখি ছিলেন না। তার স্ত্রীর অর্থ লোভ, সংসারের প্রতি উদাসিনতা এবং পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে অশোভন আচরণের কারণে তিনি সর্বদা ভীত ছিলেন। প্রায়শই তিনি তার স্ত্রীর মারমুখি আচরণের শিকার হতেন। নারী নির্যাতন নয়, তিনি পুরুষ নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এককথায় বলতে হয় তার স্ত্রী সোনিয়া আক্তার মানসিক ভাবে অসুস্থ। প্রায়ই সে তার তিন সন্তানকে ফেলে রেখে ঘর থেকে বেরিয়ে যেত। ফলে বাধ্য হয়ে তিনি তার পরিবারের সদস্যদের সাতে পরামর্শ করে ছোট ছোট তিনটি সন্তানকে পালন করতে দ্বিতীয় বিয়ে করতে বাধ্য হন। তারপরও তার প্রথম স্ত্রী সোনিয়া ফিরে আসতে চাইলে তিনি সন্তানদের দিকে তাকিয়ে তাকে ঘরে তুলে নিবেন।

সংবাদ সম্মেলনে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সম্পাদকসহ চাঁদপুর ও ফরিদগঞ্জ উপজেলার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১৭ নভেম্বর ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহফুজুল হকের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী সোনিয়া আক্তার বাদী হয়ে চাঁদপুর আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলায় প্রথম আসামী পৌর মেয়র মাহফুজুল হক ও দ্বিতীয় আসামী মেয়রের দ্বিতীয় স্ত্রী আলোকে করা হয়।

আমরা খবরের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, সঠিক সংবাদ পরিবেশনই আমাদের বৈশিষ্ট্য

আপডেট সময় : ০৬:১১ পিএম

২২ নভেম্বর ২০২০ খ্রি. ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ০৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরি, রোববার

127 জন পড়েছেন

Recommended For You

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়