chandpur report 551

সাংবাদিকতায় আমার একুশ বছর : সাইফুল ইসলাম সিফাত

অন্যায়ের সাথে কখনো আপোষ করেনি। শত বাধা-বিপত্তিকে ডিঙিয়ে সামনে এগিয়ে চলেছি বুক ভরা সাহস নিয়ে। লিখে গেছি আপামর জনসাধারণের কল্যাণে। আমার কলমে তুলে ধরেছি নির্যাতিত,নিস্পেষিত মানুষের কথা, ভূমিহীন, অসহায় ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আর্তনাদের কথা।নির্ভয়ে সত্যের পক্ষে কলম চালাতে কখনো অন্যায়ের কাছে আমি মাথা নত করেনি।অর্থ ও ক্ষমতার কাছে নিজের বিবেককে সদা রেখেছি স্বচ্ছ ও সমুন্নত। আধিপত্যবাধী,চাঁদাবাজি,টেন্ডারবাজি, ভূমি দস্যু ও মাদক কারবারিদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশে কোনদিন দ্বিধা করেনি। মানুষের কল্যাণে সংবাদের পিছনে ছুটে চলেছি সর্বাগ্রে।

ছোট বেলা থেকেই ছিলাম বেশ চঞ্চল ও ভাবুক প্রকৃতির।ডাংগুলি আর পুকুরে ডুব দিয়ে পার হওয়া ও সুপারির খোলে চড়াচড়ি করে ৮নং হাটিলা ইউনিয়নের পশ্চিম হাটিলা গ্রামে শৈশব কেটেছে আমার।বাবার কঠোর শাসন ও মায়ের বকুনি আমাকে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে উৎসাহ যোগায়।

১৯৯৯ সালের প্রথম সময়ে লেখাপড়া অবস্থায় সমাজের নির্যাতিত মানুষের কান্না আমার বিবেককে নাড়া দেয়।অসহায়,ভূমিহীন ও জুলুম নির্যাতনের শিকার মানুষের কথা ভাবতে থাকি। এক সময় দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণের কথা ভেবে শুরু করি লেখালেখি।যে কলম শক্ত হাতে ধরেছি সে কলম আর কখনো থামেনি।সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে লিখতে ছিলাম অনঢ় ও অবিচল।

১৯৯৯ সালে সাপ্তাহিক গণতদন্ত পত্রিকায় ক্ষুদে সাংবাদিক হিসেবে কাজ শুরু করি। ২০০০ সালে তৎকালীন সময়ের আলোচিত দৈনিক সমাচার পত্রিকায় সাংবাদিকতা শুরু।অপরাধ বিষয়ক সংবাদ পত্র সাপ্তাহিক ক্রাইম রিপোর্টে কাজ করি দীর্ঘদিন।এই সময়ের মধ্যে আমার লেখা সংবাদ ও হাতে তোলা আলোকচিত্র সমাজে ব্যাপক আলোচিত ও আলোড়িত হয়।ভূমি দস্যুদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করে জনতার প্রশংসা কুড়িয়েছি বেশ কয়েকবার। আমার লেখা সংবাদে সেই সময়ে মাদক কারবারি ও ভূমি দস্যুরা থাকতেন চরম আতংকে।বহুবার হত্যার হুমকির পরও দূর্ণীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে ছিলাম সদা সোচ্চার। তারপর প্রয়াত সাংবাদিক নেতা মরহুম শাহ্ মোহাম্মদ মাকসুদুল আলম ভাইয়ের হাত ধরে চাঁদপুর প্রবাহ, চাঁদপুর দর্পন, চাঁদপুর জমিন, আমার চাঁদপুর, চাঁদপুর দিগন্ত, সাপ্তাহিক হাজীগঞ্জ, সাপ্তাহিক মানব সমাজ পত্রিকায় সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করি। ২০০৫ এর প্রথম দিকে কর্মসুবাধে প্রবাসে পাড়ি। সেখানেও সংবাদ লেখা ও সাহসীকতার ফলস্বরূপ ২০০৬ সালে বাংলাদেশের বৃহত্তর ও জনপ্রিয় দৈনিক আমারদেশ পত্রিকা এবং জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল এনটিভিতে কাজ করার সুযোগ পায়।

পরবর্তীতে প্রবাস থেকে দেশে ফিরে দৈনিক চাঁদপুর পত্রিকার সহ বার্তা সম্পাদক থেকে বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করি প্রায় ৩ বছর। জহুরুল ইসলাম টুকু সম্পাদিত খোলা কাগজ, সেলিম রেজা সম্পাদিত আমার সংবাদেও কয়েক বছর কাজ করার সুযোগ মেলে।

তারপর বিজয় টিভি ও জনপ্রিয় ও বহুল প্রচারিত দৈনিক বাংলাদেশের আলো, চাঁদপুর থেকে নিয়মিত প্রকাশিত দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকায় সুনামের সহিত কাজ করছি।
এছাড়া আমার সম্পাদিত আঞ্চলিক অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্রিয় চাঁদপুর পত্রিকার পাশাপাশি একটি সাপ্তাহিক সকলের কন্ঠ পত্রিকার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছি।

আমার ২১ বছরের সাংবাদিকতা জীবনে কোনদিন পক্ষপাতমূলক ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশের নজির নেই। ২০১২ সালে ভূমি দস্যুদের নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করায় এসেছে বহু প্রাণনাশের হুমকি ও বাধা বিপত্তিও। চলার পথে শত কাঁটাকে সঙ্গী করে নির্বিঘেœ কলম চালিয়েছি গরীব ও মেহনতি মানুষের তরে।

আমার দৃষ্টিতে সাংবাদিকতার পথটি কখনো সহজ ছিলোনা,এ পথ ছিলো কন্টাকাকীর্ণ। আমি মানুষের জন্য সাংবাদিকতা করেছি।মানুষের উপকার করার জন্য লিখেছি। সমাজ তথা রাস্ট্রের উন্নয়নের কথা চিন্তা করে সমাজের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সমস্যা ও দূর্ভোগের কথা তুলে ধরেছি।কখনো অন্যায়কারীদের সাথে আপোষ করিনি। বহুবার সন্ত্রাসীরা আমাকে অর্থ ও ক্ষমতা দিয়ে দমিয়ে রাখতে চেয়েছিলো কিন্তুু আল্লাহর রহমতে, আমার মায়ের দোয়ায় ও মানুষের ভালোবাসায় তাদের কোন অপতৎপরতা আমাকে রুখতে পারেনি।সংবাদ প্রকাশ না করতে অন্যায়কারীরা আমাকে এক টেবিলে বসার প্রস্তাব দিলেও আমি নিঃস্বংকোচে তা প্রত্যাখ্যান করি। ফলে আমাকে মানসিক অত্যাচার ও হয়রানির শিকার হতে হয়েছে বেশ কয়েকবার। সাংবাদিকতা একটি মহৎ ও মর্যাদাপূর্ণ পেশা। এ পেশায় নিয়োজিতদের সবসময় চোখ কান খোলা রাখতে হয়।সাংবাদিকরা সমাজের দর্পণ,জাতির অত্যন্দ্র প্রহরী। দায়িত্বশীলতার জায়গা থেকে দায়িত্ব নিয়ে সবসময় সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে লেখা সকল সাংবাদিকদের নৈতিক দায়িত্ব।

আমি বলবো সাংবাদিকতায় নতুনদের উৎসাহ দেওয়া প্রয়োজন। নবীন ও তরুণের হাতে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়া সম্ভব। তাই কাউকে অনুৎসাহিত না করে সঠিক সাংবাদিকতা শেখানো সিনিয়র সাংবাদিকদের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে।

লেখক পরিচিতি : সম্পাদক ও প্রকাশক, প্রিয় চাঁদপুর।

 

দেশ ও জনগণের সেবার ব্রত নিয়ে কাজ করে যেতে সকলের নিকট দোয়া চাই।

আমরা সংবাদের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, পাঠকের আস্থাই আমাদের মূলধন

০২ নভেম্বর ২০২০ খ্রি. ১৭ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরি, সোমবার

123 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন