chandpur report 1171

সাবাশ মেয়র! আপনাকেই চায় চাঁদপুরবাসী

সম্পাদকীয় …
মানুষ যেমন তার অন্যায় কর্মের জন্যে নিন্দিত হয়, আবার তার মহৎ কর্মের জন্যে প্রশংসিতও হয়। যিনি অন্যায় করেন, তার যেমন অন্যায় কাজের প্রতিকারে সমাজের সবাইকে দায়বদ্ধ হতে হয়, তেমনি যিনি ন্যায়বান শাসক তাঁর ন্যায়পরতার জন্যে সাধারণ মানুষ গর্ব বোধ করে, প্রশংসা করে।

চাঁদপুরের নবনির্বাচিত মেয়র অ্যাড. জিল্লুর রহমান নির্বাচিত হয়েই পর পর ক’টি চমক দেখালেন। প্রথমত তিনি বকুলতলা, পালবাজারসহ আশেপাশের রাস্তায় এলোমেলোভাবে পড়ে থাকা মালছামানা সরিয়ে দিয়ে, রাস্তা প্রশস্তকরণের কাজে হাত দিয়ে, ডাস্টবিনের নোংরা এলোমেলো পড়ে থাকা থেকে তা সুন্দরভাবে রাস্তা পরিস্কার করে দিয়ে তিনি তার মহৎ কর্মের পরিচয় দিলেন।

শুধু তা-ই নয়, তিনি তার সামনে সাধারণ মানুষকে বসিয়ে তার সুখ-দুঃখ শুনলেন। প্রমাণ করলেন, তিনি সাধারণ মানুষের কাতারের লোক, তাঁদেরই আপনজন।

এরপর তিনি পৌরসভার জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে সাধারণ মানুষের বাহবা কুড়ালেন।

চাঁদপুর রিপোর্টে ১১ নভেম্বর প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, চাঁদপুরে রেললাইনের দু’পাশে থাকা দোকানপাট, ঘরবাড়ি সহ সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চাঁদপুর শহরের বড় স্টেশন থেকে ছায়াাবানী মোড় পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। একই সাথে ছায়াবাণী মোড় এলাকা থেকে সিএসডি গোডাউনের দিকে যে রেললাইনটি বিদ্যমান রয়েছে তার পাশে থাকা অবৈধ স্থাপনাও উচ্ছেদ করা হয়। অভিযানের সময় শত শত উৎসুক জনতা ভিড় জমিয়ে উচ্ছেদ অভিযান উপভোগ করেন।

আমরা মেয়রের ভালো কর্মকাণ্ডে তাকে উৎসাহ দিতে চাই। তার ভালো কাজের প্রশংসা করে তাঁকে সম্মানীত করতে চাই, যাতে তিনি এ ধারা অব্যাহত রেখে মানুষের সুখে-দুঃখে নিজকে সর্বদা নিয়োজিত রাখেন। তবে ভুলে গেলে চলবে না, পথভ্রষ্ট করার জন্যে কিছু সুবিধাবাদী-স্বার্থান্বেষী তার পাশে ঘুরঘুর করবে, তাকে পদস্খলনের ইন্দন জোগাবে, এসব থেকে তিনি সাবধান থেকে অবশ্যই ন্যায় কাজে সর্বদা সচেষ্ট থাকবেন বলে সুধীজন আশা করেন।

আমরা সংবাদের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, পাঠকের আস্থাই আমাদের মূলধন

আপডেট সময় : ১১:২০ এএম

১২ নভেম্বর ২০২০ খ্রি. ২৭ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরি, বৃহস্পতিবার

শেয়ার করুন