editorial logo

দুষ্টকে দমন করতে আইনের কঠোরতা আরো জোরদার করতে হবে

সম্পাদকীয় …

ধর্ষণের মতো জঘন্য ঘটনা আর কি হতে পারে? অথচ এমন জঘন্য অপরাধ করেও কিছু নরপশু পার পেয়ে যায়। যে কারণেই হয়তো ধর্ষণের পরিমাণ বেড়েই চলেছে অথবা ধর্ষণ ঘটে চলেছে।

প্রিয় সময়ে ‘মাদারীপুর শিবচরে গৃহবধূ গণধর্ষণের অভিযোগ : নারীসহ গ্রেপ্তার ২’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে আমরা জেনেছি ধর্ষণের মর্মান্তিক ঘটনাটি।

এ ধরনের ঘটনা অহরহ ঘটেই চলেছে। জানতে জানতে আমাদের কাছে এসব অস্বাভাবিক ঘটনাও এখন স্বাভাবিক হয়ে গেছে। তবে এ ধরনের ঘটনা যেমন ধর্মীয়ভাবে পাপের; তেমনি সামাজিকভাবে ঘৃণাহ্।

আমরা প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি, এক নারীর পূর্ব শত্রুতার জেরে মাদারীপুর জেলার শিবচরে এক সন্তানের জননী গৃহবধুকে গণধর্ষনের শিকার হতে হয়েছে। এ ঘটনায় (১৩ ডিসেম্বর) রাতে শিবচর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী।

সেই রাতেই পুলিশ ধর্ষণে জড়িত ও সহযোগিতার অভিযোগে অভিযুক্ত ওই নারীসহ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে। তবে সবচেয়ে বেশি আশ্চর্যের বিষয় যে, একজন নারীও এর সাথে জড়িত। যে কিনা সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করেছে বলে আমরা বিবরণের মাধ্যমে জানতে পেরেছি।

কি করে পারলো এখন নারী হয়ে আরেকজন নারীর সর্বনাশে সহযোগিতা করতে। জোরপূর্বক ওই গৃহবধুকে একটি ইজিবাইকে উঠিয়ে নিয়ে যায়। পরে একটি একতলা বাড়িতে নিয়ে গিয়ে সেখানে হাত-পা ও মুখ বেঁধে আটকে রেখে দুই দফায় তাকে ধর্ষণ করে একাধিক ব্যক্তি। এই হলো আমাদের অপরাধ জগতের চিত্র।

আমাদের সমাজে ধর্ষণের চিত্র বিভিন্ন রকমের। টাকার লোভ দেখিয়ে ধর্ষণ, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ, জোরপূর্বক ধর্ষণ-ইত্যাদি। এসব ঘটনা বিশ্লেষণে দেখা গেছে, চেনাজানা মানুষ জনই সবচেয়ে বেশি ধর্ষণের সাথে জড়িত। এসব ঘটনা ঘটে গেলে ধর্ষিতার পরিবার সামাজিকভাবে লজ্জিত থাকে। তারা সমাজে মুখ দেখাতে পারে না। স্বাভাবিকভাবে আর বাঁচতে পারে না। তখন হয়তো এসব লজ্জার হাত থেকে বাঁচার জন্যে যে কোনো ধরনের অঘটন তারা ঘটিয়ে ফেলে। মারমুখী আচরণ তারা করে ফেলতে পারে। অথবা তারা খুন পর্যন্ত করে ফেলতে পারে। এমন ঘটনার কোনো অভাব নেই।

আমরা চাই না এ ধরনের ঘটনা আমাদের সমাজে ঘটুক। আমরা সকলেই চাই, সুন্দরভাবে বেঁচে থাকতে। এজন্যে আমাদের সকলকেই চতুর্দিক থেকে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। শিক্ষার আলো জালাতে হবে। দুষ্টকে দমন করতে আইনের কঠোরতা আরো জোরদার করতে হবে। তাহলেই সমাজে ধর্ষণের মতো জঘন্য ঘটনা ঘটবে না। আমরা চাই আইন আরো কঠোর হোক, তাহলেই আমাদের মা বোন রক্ষা পাবে।

আমরা খবরের বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাসী, সঠিক সংবাদ পরিবেশনই আমাদের বৈশিষ্ট্য

আপডেট সময় : ১২:১৫ পিএম

২০ নভেম্বর ২০২০ খ্রি. ০৫ পৌষ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরি, শনিবার

 

57 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন