৬ দিন ধর্ষণের পর রাস্তায় ফেলে গেল মাদ্রাসাছাত্রীকে

নিউজ ডেস্ক :

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের এক মাদ্রাসাছাত্রীকে অপহরণের পর ছয়দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় উপজেলার বড়হিতর ইউনিয়নের চর্ডীপুর গ্রামের আ. রাজ্জাকের ছেলে আতিক মিয়া (২৭) ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন নির্যাতিতার ভাই।

পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত আতিক বিভিন্ন সময় ওই মাদ্রাসাছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করত। গত ৩০ ডিসেম্বর রাতে ঘরের বাইরে গেলে আগে থেকে ওত পেতে থাকা আতিক ও তার সহযোগীরা ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরদিন ৩১ ডিসেম্বর আতিক ফোন করে জানায় বিয়ে দিলে ওই ছাত্রীকে ফেরত দেওয়া হবে। এ অবস্থায় দুইদিন পর মাদ্রাসাছাত্রীর ভাই ঈশ্বরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়।

পরে অপহৃত ওই ছাত্রী বাড়িতে ফোন করে জানায়, তাকে নির্যাতনের পর আতিক গাজীপুরের একটি সড়কে ফেলে রেখে পালিয়ে গেছে। সেখান থেকে সে তার ভাইয়ের বাসায় আশ্রয় নিয়েছে। খবর পেয়ে মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশ ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয় ওই ছাত্রী। তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেলে নেওয়া হলেও শারীরিক অসুস্থতার জন্য ফরেনসিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়নি।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদির মিয়া জানান, এ ঘটনায় এখনো কাউকে আটক করা যায়নি। অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়