chandpur report 1651

ফরিদগঞ্জের কাটাখালীতে মতিনিয়া এতিমখানা বন্ধের উপক্রম

 

ফরিদগঞ্জ (চাঁদপুর)সংবাদদাতা:
উপজেলার কাটাখালী পীর মতিনিয়া এতিমখানা দীর্ঘদিন যাবৎ ক্যাপিটেশন গ্রান্ড বন্ধ থাকায় এতিম খানাটি বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়ে পড়েছে। এতিম খানাটি অত্যান্ত মনরোম পরিবেশে পাকা সড়কের পাশের্^ অবস্থিত । প্রায় দু‘যুগ অবদি প্রতিষ্ঠানটি কোরআন শিক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির প্রাতিষ্ঠাতা পীর জাদা বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ মাও: তোজাম্মল হোসেন। তোজাম্মল হোসেনের বাবা প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন পীরজাদা আ: মতিনের নামানুসারে এতিম খানাটির নাম করণ করা হয়েছে।

এলাকার মানুষের দ্বীনি শিক্ষা পবিত্র কোরআন শিক্ষায় প্রতিষ্ঠানটির গুরুত্ব অপরিসীম। প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে যাদের অবদান রয়েছে তারা হচ্ছেন,সাবেক সংদস সদস্য ড. শামছুল হক ভূঁইয়া, বর্তমান শিক্ষা মন্ত্রী ডা.দীপু মনি, সংসদ সদস্য ও প্রখ্যাত সাংবাদিক মুহাম্মদ শফিকুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল খায়ের পাটওয়ারীসহ আরোও অনেকে।

প্রতিষ্ঠানটি সুনামের সাথে চলে আসলেও গত এক বছর পূর্বে প্রতিষ্ঠাতার সহোদর মো: মহিউদ্দিন পারিবারিক কলহের জের ধরে এতিম খানার বিরুদ্ধে সমাজ সেবা দপ্তরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে করোনা পূর্ব সময়কাল থেকে এ পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে ক্যাপিটেশন গ্রান্ড। ফলে শিক্ষার্থী ধরে রাখতে বেকায়দায় পড়তে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষকে।

এ বিষয়ে এতিম খানার অধ্যক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধা, আলহাজ¦ মাও. তোজাম্মল হোসেন জানান, আমার অক্লান্ত পরিশ্রমে ও এলাকাবাসীর সহযোগীতায় এতিম খানাটি সুদির্ঘকাল সুন্দর ভাবে চলে আসছে। সাম্প্রতিককালে আমার ভাই একটি মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে এতিম শিশুদের কোরান শিক্ষা প্রদানে বিঘœতার সৃস্টি করছে। তাছাড়া আমার বিরুদ্ধে ও আমার ছেলেদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানী করে চলছে। আমি প্রতিষ্ঠানটিকে টিকিয়ে রাখার স্বার্থে উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা করছি। তাছাড়া মিথ্যা ভানোয়াট অভিযোগকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে অভিযোগকারী মো. মহিউদ্দিন জানান, আমার ভাই ওয়াকফ সম্পত্তি বিক্রির পায়তারা করছে। তাছাড়া আমার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। আমিও আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে একটি মামলা দিয়েছি। আমি শান্তিপূর্ণ সমাধান চাই। তাছাড়া আমাকে হয়রানীর জন্য বিচার চাই।

এ বিষয়ে সমাজ সেবা কর্মকর্তা মো. শাহাদাৎ হোসেন জানান, এতিম খানাটির বিরুদ্ধে তারই ভাই একটি লিখিত অভিযোগ করেছে সে আলোকে সরে জমিন গিয়ে তদন্ত করেছি। সন্তোষজনক অবস্থা পাওয়া যায়নি। তাছাড়া তিনি আরোও জানান, ক্যাপিটেশন গ্রান্ড হেল্ড আপ রয়েছে। বন্ধ নহে। শিক্ষার্থী ও পরিবেশ সন্তোষজনক হলে ও কমিটি গঠন করা হলে ক্যাপিটেশন গ্রান্ড চালু করা হবে।

শেয়ার করুন