1 faridgonj

ফরিদগঞ্জে এক সপ্তাহে ৫ লাশ উদ্ধার

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
সামাজিক ও নৈতিক অবক্ষয়, সাংসারিক টানাপোড়েন ও ধর্মীয় মূল্য বোধের অভাব থেকে ফরিদগঞ্জে হঠাৎ করেই আত্মহননের প্রবনতা বৃদ্ধি হয়েছে।

সর্বশেষ গত এক সপ্তাহে ৫টি অপমৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে উঠতি বয়সের কিশোর- কিশোরী ও গৃহবধূদের মধ্যেই এই প্রবণতাটা বেশি দেখা যায়।

৫টি আত্মহত্যার ঘটনার মধ্যে দুইজন কিশোর, কিশোরী ও তিনজন গৃহবধূ। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার গভীর রতে প্রবাসী স্বামীর সাথে মুঠোফোনে কথোপকথনের একপর্যায়ে অভিমানে শারমীন আক্তার(২২) নামে এক গৃহবধু গলায় ফাঁস দেয়।

এর আগে প্রেমে ব্যর্থ হয়ে ফেস বুকে স্টেটাস দিয়ে ৩ ফেব্রæয়ারী বুধবার রাতে ফরিদগঞ্জ পৌরসভাধীন পশ্চিম বড়ালি গ্রামের আবুল বাসারের ছেলে শামীম হোসেন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

একই দিন বিকালে চরদু:খিয়া পুর্ব ইউনিয়নের সন্তোষপুর গ্রামের রাঢ়ি বাড়ির রাকিব হোসেনের স্ত্রী ও দুই সন্তানের জননী সুইটি আক্তার গলায় ফাঁস দিয়ে আহনন করে।

৩১ জানুয়ারী বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়নের সোসাইরচর গ্রামের বাইশ্যা বাড়ির দেলোয়ার হোসেনের ছেলে ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী হাবিবুর রহমান(১৯) গলায় ফাঁস দিয়ে এবং গত ২৮ জানুয়ারী গোবিন্দপুর গ্রামে হাসি আক্তার ঝর্না(১৬) নামে এক কিশোরী গৃহবধূ বিষপানে আত্মহনন করে।

এব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনাচর্জ মোহাম্মদ শহিদ হোসেন বলেন, সামাজিক মূল্যবোধের অভাব, পারিবারিক বন্ধন হ্রাস পাওয়া এবং সন্তানদের প্রতি অভিভাবকদের তদারকির অভাব এবং দাম্পত্য জীবনে স্বামী ও স্ত্রীর পরস্পরের প্রতি আস্থাহীনতাই দায়ী। আমি নিজে এসব বিষয়ে কাজ করার চেষ্টা করছি।

শেয়ার করুন