chandpur report 1826

চাঁদপুরে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে অভিযান, ৪ গাড়ির মালিককে অর্থদণ্ড

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

শব্দদূষণের ফলে শ্রবণ শক্তি হ্রাস ও স্থায়ীভাবে নষ্ট হয়, হৃদরোগসহ মস্তিষ্ক বিকৃতি ঘটে, উচ্চ রক্তচাপ ও ফুসফুসজনিত জটিলতা দেখা দেয়, ক্ষুদামন্দা ও মানসিক চাপসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টি হয়, অনিদ্রা ও স্মরণ শক্তি হ্রাস পায়।

শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা, ২০০৬ অনুসারে নির্ধারিত শব্দ মানের অধিক শব্দ সৃষ্টি, হাসপাতাল, সরকারি অফিস, আবাসিক এলাকায় অহেতুক হর্ণ বাজানো এবং উচ্চস্বরে হর্ণ বাজানো নিষেধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।

আজ ১১ মার্চ ২০২১ খ্রিঃ তারিখে পরিবেশ অধিদপ্তরের “শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত অংশিদারিত্বমূলক প্রকল্প”-এর আওতায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ছামিউল ইসলাম এর নেতৃত্বে চাঁদপুর জেলার সদর উপজেলায় পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা, ২০০৬ এর বিধান অনুসারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়।

পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে অহেতুক হর্ণ না বাজানো বা উচ্চ শব্দ তৈরি থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্টদের মাঝে প্রচারণা চালানো হয়। একই সাথে শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা, ২০০৬ এর বিধান লংঘনের জন্য ০৪ টি গাড়িকে ৫ হাজার ৫শত টাকা মাত্র অর্থ জরিমানা ধার্যপূর্বক আদায় করা হয়।

উক্ত মোবাইল কোর্টে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর, চাঁদপুর জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নাজিম হোসেন শেখ, চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবযানী কর ও বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব রিক্তা খাতুন। মোবাইল কোর্টে প্রসিকিউশন প্রদান করেন পরিবেশ অধিদপ্তর, চাঁদপুর জেলা কার্যালয়ের পরিদর্শক উত্তম কুমার।

অভিযানে চাঁদপুর জেলা পুলিশ এর একটি টিম সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। চাঁদপুরে শব্দদূষণের বিরুদ্ধে এ ধরনের মোবাইল কোর্ট অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন পরিবেশ অধিদপ্তর, চাঁদপুর জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নাজিম হোসেন শেখ।

শেয়ার করুন