চাঁদপুর সদর ও হাইমচরে জাটকা ধরায় ২৫ জেলে আটক, ১৮জনের বিরুদ্ধে মামলা

মোঃ সাদ্দাম হোসেন ॥ চাঁদপুর পদ্মা-মেঘনা নদীর অভয়াশ্রম এলাকায় সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশের পোনা জাটকা ধরায় ২৫ জেলেকে আটক করেছে নৌ-পুলিশ ও টাস্কফোর্সের নিয়মিত টহল দল। এর মধ্যে ৭ জনকে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা এবং ১৮জনের বিরুদ্ধে মৎস্য আইনে নিয়মিত মামলা করা হয়েছে।

১২ মার্চ শুক্রবার দুপুরে চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়ের কন্ট্রোল রুম থেকে এসব তথ্য জানানো হয়।

হাইমচর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত চাঁদপুর সদর উপজেলার হরিণা, আলু বাজার ও হাইমচর উপজেলার কাটাখালী, ইশানবালা, মধ্যচরও গাজীপুরের চরে যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে আখনের ঘাট এলাকা থেকে ৭ জন জেলেসহ একটি ৩৪ ঘোড়া ইঞ্জিন চালিত নৌকা জব্দ করা হয়।

আটক ৭ জেলের প্রত্যেককে হাইমচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিগ্যান চাকমা ৫ হাজার টাকা করে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

অর্থদন্ড প্রাপ্ত জেলেরা হলেন : চাঁদপুর সদর উপজেলার গোবিন্দিয়া গ্রামের বিল্লাল, মোবারক, আসমাদুল্লাহ শেখ, জসিম পাটওয়ারী, মনোয়ার রাঢ়ী, মো. জাকির ও আরিফ খান।

চাঁদপুর সদর উপজেলার হরিণা নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ নাসিম হোসেন বলেন, শুক্রবার ভোর থেকে সকাল ১১টা পর্যন্ত মেঘনা নদীর বহরিয়া ও শ্রীরামপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১১ জন জেলেকে আটক করা হয়। একই সময় ৫০ হাজার মিটার কারেন্টজাল ও দু’টি ইঞ্জিন চালিত নৌকা জব্দ করা হয়। আটককৃত জেলেদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

হাইমচর উপজেলার নীল কমল পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ আবদুল জলিল বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত মেঘনা নদীতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানের সময় ঈশানবালা নামক স্থান থেকে জাটকা ধরা অবস্থায় ৭ জেলেকে আটক করেন। তাদের বিরুদ্ধে শুক্রবার সকালে থানায় নিয়মিত মামলা হয়েছে।

আটক জেলেরা হলেন, শরীয়তপুর জেলার সখিপুর থানার ভেড়া চাকি গ্রামের মানিক জমাদার, মনির মাল, আলকেস মাঝি, রিয়াদ জমাদার, স্বপন মিজি, আক্তার মাঝি ও আরিফ ছৈয়াল।

শেয়ার করুন