chandpur report 1779

চার দশক পর নির্মাণ হলো পূর্ব বিষ্ণুপুর বরদিয়া মতলব সড়কের দেড় কিলোমিটার রাস্তা

চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন শামীমের মহতী উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক  ধ প্রায় চার দশক পর চাঁদপুর সদর উপজেলার ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ নাছির উদ্দীন শামীম খানের উদ্যোগে পূর্ব বিষ্ণুপুর বরদিয়া মতলব সড়কের দেড় কিলো মিটার কাঁচা রাস্তা।

জানাযায়, সদর উপজেলার ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের পূর্ব বিষ্ণুপুর গ্রাম বাসীর মতলব ও চাঁদপুরে দ্রুত যোগাযোগের মাধ্যম হচ্ছে পূর্ব বিষ্ণুপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে মতলব বরদিয়া মতলব সড়কটি যা দেড় কিলো মিটার হবে । এলাকাবাসীর স্বার্থে আশির দশকে তৎকালীন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ সড়কটি নির্মাণ করতে গেলে সড়কের পাশে সম্পওি থাকা এক ব্যক্তি ইনজেকশন জারি করায় শেষ পর্যন্ত সড়কটি নির্মাণ করা আর সম্ভব হয়নি।

ফলে ঐ এলাকার প্রায় ৪ হাজার জনগণের যাতায়াতের জন্য দীর্ঘ ৪ দশক ধরে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এনিয়ে আশির দশকের পর থেকে এ পর্যন্ত উক্ত ইউনিয়নের নির্বাচিত সকল চেয়ারম্যানগনই চেষ্টা করেও রাস্তাটি নির্মাণে সফল হতে পারেনি।

অবশেষে বর্তমান চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন খান শামীম নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই এ রাস্তাটি নির্মাণ করার জন্য ছিলেন তৎপর।

এদিকে চলতি অর্থ বছরে উক্ত ইউনিয়নের উন্নয়ন কাজের জন্য সরকারের টিআর প্রকল্পের প্রায় সাড়ে ৪ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়। অপরদিকে চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন খান শামীম ইতিমধ্যে রাস্তাটি নির্মাণের লক্ষ্য নিয়ে সকল আইনিজটিলতা সমাপ্ত করেন।

এমতাবস্থায় সরকারি বরাদ্দ কৃত টিআর প্রকল্পের অর্থ সহায়তা পাওয়ার সাথে সাথেই ঐ অর্থ দিয়ে প্রায় ৪ হাজার জনগণের যাতায়াত জন্য দেড় কিলো মিটার এ সড়কটি নির্মাণ করে দেন।

ফলে পূর্ব বিষ্ণুপুর গ্রামবাসী সহ আশপাশের গ্রামের জনগণের সড়ক পথে চাঁদপুর ও মতলবে যোগাযোগ ব্যবস্থার প্রধান সড়ক পূর্ব বিষ্ণুপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বরদিয়া মতলব সড়কটি নির্মাণের মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ৪ দশকপর তাদের যাতায়াতের দূভোর্গ লাঘব হয়েছে।

এ রাস্তাটি নির্মাণের কারণে এলাকাবাসী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন খান শামীমের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ নাছির উদ্দীন খান শামীম বলেন, জনগণের কল্যাণে কাজ করতে হলে একটি সঠিক পরিকল্পনা ও মন থাকতে হয়। তাহলে তিনি তাঁর সঠিক স্থানে পৌঁছাতে পারে। তাছাড়া আমি এ রাস্তাটি নির্মাণ করার জন্য দীর্ঘ যাবত চেষ্টা চালিয়ে সকলের সহযোগিতায় সফল হই। ইনশাআল্লাহ আমি যত দিন বেঁচে আছি আমৃত্যু ইউনিয়ন বাসীর কল্যাণে কাজ করে যাবো।

শেয়ার করুন