1 faridgonj

ফরিদগঞ্জের খাজুরিয়া বাজারসহ এলাকায় একাধিক চুরির ঘটনায় শঙ্কিত ব্যবসায়ীরা

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি  :  চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৬নং গুপ্টি পশ্চিম ইউনিয়নের খাজুরিয়া বাজারে একাধিক চুরির ঘটনায় শঙ্কিত ব্যবসায়ীরা।  জানা গেছে বাড়ীতে ও দোকানে দিনেদুপুরে ঘটে চলেছে দুঃসাহসিক চুরি ।

কোন কিছুতেই রোধ করা যাচ্ছে না চুরির ঘটনা। এদিকে গত (০১ মার্চ সোমবার) রাতে খাজুরিয়া বাজারের পাশের এক বাড়ি ও দোকানে চুরি, একই রাতে ৫ টি চুরির ঘটনায় ঠিক মতো ঘুমাতে পারছে না এলাকাবাসী।

খাজুরিয়া বাজারে নৈস প্রহরী না থাকার কারনেই বাজারে একের পর এক চুরির ঘটনা ঘটছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

কেননা এক মাসে প্রায় ১০/১৫ টা চুরির ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন ও ইউপি চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে শান্তনার বানী ছাড়া কাউকে আটক কিংবা চুরি হয়ে যাওয়া মালামাল উদ্ধারে ব্যার্থ হয়েছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

গত কয়েক দিন আগে রাত ১২ টায় খাজুরিয়া গ্রামের দিঘির পারের বাড়িতে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটে। এই রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো একেই বাড়িতে গত রাতে ঘটে গেল আরেক বাসা বাড়িসহ ৫ টি চুরির ঘটনা।

জানা গেছে ,সোমবার রাতে মোঃ ভূট্রো মিয়ার ঘরে ঢুকে স্বর্ণালংকার টাকাসহ প্রায় লক্ষধিক টাকার মালামাল নিয়ে যায় চোরের দল।

আব্দুল মান্নানের দোকান থেকে প্রায় ৫০হাজার টাকার ব্যাটারি ও মাসুদের বেকারির গাড়ি থেকে চারটা ব্যাটারি চুরি হয়,ঔষুধের দোকান মুদি দোকানসহ একাদিক বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটেছে।গত দুই মাস পূর্বে মনিরের চার দোকানে কয়েক দিনের মধ্যে দুই বারে প্রায় লাখ টাকার মালামাল চুরি হয়, মোঃ বাবু দেওয়ানের দোকানে দুইবারে প্রায় নগদ ২লক্ষ টাকাসহ মালামাল নিয়ে যায় চোরের দল।
আসলামের দোকানে দুই বার প্রায় লাখ টাকার ব্যাটারিসহ বিভিন্ন দোকানে চুরি হয়।
এর আগে মোঃসোহেল হোসেনর বাড়িতে গভীর রাতে পিছনের দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে গলায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে স্বর্ণালংকার টাকাসহ প্রায় দেড় লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়।

এদিকে সি এন জি চালক কবিরের ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে আলমিরা শো-কেস ওয়ারড্রব তছনছ করে ঘর থেকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে যায় চোরের দল।

বিষয়টি ফরিদগঞ্জ থানা কে অবগত করা হলে তদন্ত করে গেলেও আজও মালামাল উদ্ধার কিংবা ঘটনার সাথে জড়িতদের কাউকে আটক করতে পারিনি থানা পুলিশ। অপরদিকে একের পর এক চুরিকে কেন্দ্র করে ভীতির সৃষ্টি হয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

সাধারণ মানুষের দাবি আইনশৃঙ্খলার ব্যাপক অবনতির কারনেই এই এলাকাতে একের পর এক একাধিক চুরির ঘটনা ঘটেছে।

এলাকাবাসীদের অভিযোগ, মাদক সেবীরা সন্ধ্যার পর থেকে সারারাত বেপরোয়া হয়ে ওঠে। যার ফলে দিনের পর দিন চুরির ঘটনা ঘটে চলেছে।

গত মাসেই ৬ নং গুপ্টি পশ্চিম ইয়নিয়নের হোগলী,খাজুরিয়া এলাকায় প্রায় ১০ টি চুরির ঘটনা ঘটে। এতে এখন ইউনিয়নে চোরের আতংকে দিনাতিপাত করছে এলাকাবাসী।

এই চোরচক্র কে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী খুঁজে বের করতে না পারলে আরও বড় ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন সচেতন মহল। এদেরকে খুঁজে বের করে প্রকাশ্যে হাত-পা ভেঙে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়ার দাবীও জানান অনেকে। চোরকে এমন শাস্তি দিতে হবে যেন অন্যচোররা চুরি করতে আর সাহস না পাই। আর যারা মাদক সেবক করে দেশকে মায়ের ভোগে পাঠাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া অতি জরুরী হয়ে পড়েছে বলে মনে করছেন সচেতন মহল ।

এই বিষয়ে বাজার ব্যাবসায়ী কমিটির সাথে কথা বলতে গেলে জানা,যায় এই বাজারে কোন কমিটি নাই সাবেক কমিটি মেয়াদ শেষ আজ প্রায় ৩/৪ বছর তবে কেন এত দিনে নির্বাচন বা কোন কমিটি দিতে পারে নাই সংলিষ্ট কতৃপক্ষ এই নিয়ে ব্যাবসায়ীদের মধ্যে চরম খোভ বিরাজ করেছে। ব্যাবসায়ীরা বলেন যেন অতি দুরুত নির্বাচনে মাধ্যে বাজার ব্যাবসায়ী কমিটি গঠন ও বাজারে নৈস প্রহরীর ব্যাবস্থা করা হয়।

এই বিষয়ে কথা বলার জন্য ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শহিদ হোসেন বলেন, থানা পুলিশ প্রতিনিয়ত অভিযান আব্যাহত রেখেছি। আমাদের কাছে সুনিদ্রিষ্ট অভিযোগ পেলে আরো দ্রুত কার্যকরী ভূমিকা গ্রহন করবো।

শেয়ার করুন