chandpur report 1879

ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানায় হামলার ঘটনায় অজ্ঞাত ৩০০ জনকে আসামি করে মামলা

নিউজ ডেস্ক : ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানায় হামলার ঘটনায় অজ্ঞাত ৩০০ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। রোববার (২৮ মার্চ) দুপুরে ভাঙ্গা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. শহীদুল্লাহ বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ লুৎফর রহমান জানান, পরিকল্পিতভাবে থানায় এ হামলা চালানো হয়েছে। হামলার ঘটনায় ৩০০ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। এরই মধ্যে হামলার সঙ্গে জড়িত ওসমান ব্যাপারী, সালমান হুসাইন, সুয়াইব মোল্লা, আমজাদ মিয়া, আশরাফুজ্জামান, সৈয়দ আমিরুজ্জামান ও রফিকুল আসলাম নামের সাতজনকে আটক করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবার (২৭ মার্চ) জোহরের নামাজের পর ভাঙ্গা থানা সংলগ্ন জামিয়া ইসলামিয়া কাসেমুল উলুম ঈদগাহ মাদরাসা থেকে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি ভাঙ্গা বাজার ঘুরে বিশ্বরোড এলাকায় যায়। পরে বিশ্বরোড থেকে ফিরে মিছিলটি ভাঙ্গা থানার কাছে ঈদগাহ মাদরাসা মাঠে থামে। মিছিলকারীরা ওই মাঠ থেকে লাঠি ও কাঠের বাটাম সংগ্রহ করে দুপুর সোয়া ২টার দিকে ভাঙ্গা থানায় হামলা করে। দুই থেকে আড়াইশ মানুষ অতর্কিত এ হামলা চালায়।

এতে আহত হন ভাঙ্গা থানার এসআই মো. শহীদুল্লাহ (৪৭), আবুল কালাম আজাদ (৩৪), এএসআই আজিজুল রহমান (৩২), কনস্টেবল জয়নাল আবেদিন (৩৫), শাহ জালাল (২৭) ও মতিউর রহমান (৪৬)। তাদের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন মাদরাসায় আগে থেকেই যোগাযোগ করেছিলাম। তারা কথা দিয়েছিল কোনো ঝামেলা করবে না। কিন্তু কথার বরখেলাপ করে অতর্কিত এ হামলা চালিয়েছে তারা। আমরা জানতে পেরেছি, হেফাজতে ইসলাম ও চরমোনাই পীরের অনুসারীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’

শেয়ার করুন