tamanna setu

আমার পুরো জীবনটাকে এই কুত্তা ছাড়খার করে দিছে : তামান্না সেতু

তামান্না সেতু : বিয়ে করেন। আজই করেন। এই যন্ত্রণা আমার ঘাড় থেকে নামা দরকার।

আপনি বিশ্বাস করবেন না, কী ভীষণ ভাবে আমি অপেক্ষায় আছি আরাফ কাউকে নিয়ে পালায়া গেছে এটা শোনার জন্য।

আমার পুরো জীবনটাকে এই কুত্তা ছাড়খার করে দিছে।

ঘুম থেকে উঠে দুপুর ২ টায়। উঠেই গোছালো বাড়িটার প্রতি ইঞ্চি আউলায়।

কোনো স্বাভাবিক খাবার খায় না। তিন রকমের সস আছে তার কাছে, আমার অতি যত্নে রান্না সব খাবারে সে সেসব সস মিশায় আবার রান্না করে। তরকারির চেহারা যখন ‘গু’র মতো হয় তখন একলা একলা সেইসব খায়।

রাত ৪ টার আগে ঘুমায় না। সারারাত পাবজি খেলে।

সারারাত আমাদের বাসায় ‘মার সাজিদ, মার মার মার’ চলতে থাকে।

এই কুত্তাকে আপনি বিয়ে করতে চাইলে আমি অবশ্যই সর্বাত্মক সহযোগিতা করব। প্লিজ এরে নিয়ে পালায় যান। একটাই অনুরোধ, পালায়া অনেক দূরে যাবেন। ২/৪ বছরের ভেতর ফেরত আসবেন না।

খালামনি হয়ে তার কাছে যাওয়া সহজ। আপনি ধ্রুবর খেলাঘরে সস্তা কিছু অর্ডার করে দিন। তারপর সেটা নিয়ে প্যাচাল-আচাল পারুন, পারুন, পারতেই থাকুন৷
তারপর তাকে বিরিয়ানি খাওয়াতে চান। খুব বড় ঝামেলা ফিল না করলে সে বিরিয়ানির অফার এভোয়েড করে না।
এরপর আবার বিরিয়ানি খাওয়ান, আবার খাওয়ান, আবারও।
২য় টিপস হলো, তার সাথে এক টিমে পাবজি খেলেন। সারাদিন কথা বলার সুযোগ পাবেন।
এরপর ‘আল্লাহ ভরসা’ বলে বুকে ফুঁ দিয়ে আপনার মনের কথা ওকে বলেন। ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা অবশ্য তখনও ৪%। এই হারামজাদারা খালি খায়, প্রেম ট্রেমে জড়ায় না। এদের সব প্রেম আমার প্রতি।

পৃথিবীর সক্কল মানুষ বড় ভালো মনের।
এরা কখনো কাউকে ঠকায় না। খালি ঠকে আর ঠকে।
আমি খালি ভাবি, এদের ঠকায়টা কে??
আমি নিউ মার্কেটে যাচ্ছি, সেখানে হুট করে ওর সাথে দেখা হয়ে যাচ্ছে না। দুপুরের পরপর মেয়েকে ঘুম পাড়িয়ে ও আমাকে ফোন দিয়ে বলছে না ‘বিকেলে বের হবি? চল আজ নিউ মার্কেটে যাই’!
আমরা সবাই রান্নাবান্না করে কিছু খাবো তাকে ফোন দিয়েছি রাত আটটায়, সে ফোন ধরেই বলছে না ‘আমি তো নিউ মার্কেটে আপুনি, তুই পরে ফোন দে তো’!
নিউ মার্কেট তার বড় পছন্দের জায়গা ছিলো। ফরিদপুর নিয় মার্কেট।
আমিও ইদানীং খুব যাই৷ ঘুরে ফিরে যাই৷ অলিতে গলিতে তারে খুঁজি। আড়াই গজের বড় সুতির ওরনা পরা মেয়ে দেখলেই বুকটা ধক করে ওঠে ‘বাঁধুনি না তো’!
বাঁধুনি না। বাঁধুনি হয় না কেউ।
বাঁধুনি কোথাও নেই। আমার বাঁধন আর আসবে না। তার প্রিয় শহর, রাস্তা, মার্কেটে আমি একা হাঁটি তার গন্ধ গায়ে মেখে।
শেয়ার করুন