ডেড dead

ঘরে নববধূর লাশ, নাকফুল নিয়ে উধাও স্বামী

জেলা প্রতিনিধি :
ঘরে নববধূর লাশ ফেলে রেখে নাকফুল নিয়ে পালিয়েছেন তার স্বামী। সোমবার (১৯ এপ্রিল) সকালে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার রামখানা ইউনিয়নের পূর্ব রামখানা দোলারপাড় গ্রামে এমন এক ঘটনা ঘটেছে।

নিহত ওই নারীর নাম তারা মনি (১৮)। তিনি ভূরুঙ্গামারী উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের গছিডাঙ্গা গ্রামের আব্দুছ সালামের মেয়ে। অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম হাফিজুর রহমান হাবু (৩০)। তিনি ওই এলাকার আবদার আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, একমাস আগে হাফিজুর রহমান হাবুর সঙ্গে তারা মনির বিয়ে হয়। এরমধ্যেই লাশ হতে হলো তারামনিকে।

নিহত তারা মনির বাবা আব্দুছ ছালাম ও তার ভাবি আফরোজা বেগম জানান, সোমবার সকালে মোবাইলে খবর পান তাদের তারামণি বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। খবর পেয়ে মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে এসে দেখেন তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ফোলা ও ক্ষতের চিহ্ন এবং বালিশের খোলে রক্তের দাগ। গায়ে বিষের গন্ধও ছিল না। পরে দেখা যায় নাকে নাকফুলও নেই। নাকফুল নিয়ে উধাও হয়েছেন জামাতা হাফিজুর রহমান হাবু।

তবে ছেলের মা হাছনা বেগমের দাবি, সাহরির সময় ছেলে ও ছেলের বউকে তিনি সাহরি খাওয়ার জন্য ডাকাডাকি করেন। কিন্তু রোজা থাকবেন না বলে তারা ওঠেননি। সকালে ছেলের বউকে ডাকতে গেলে কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে ঘরে গিয়ে দেখেন, কম্বল দিয়ে মোড়ানো পুত্রবধূ। ছেলেও ঘরে নেই। কোথায় গেছেন জানেন না।

একই কথা বলে হাফিজুরের ছোটভাই হাসান আলী (১৩)। হাফিজুর রহমানের এর আগে আরও দুই স্ত্রী ছিল বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে নাগেশ্বরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন কবীর বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। আপাতত একটি অপমৃত্যু মামলা (ইউডি) নেয়া হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে আসল ঘটনা জানা যাবে।

9 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন