chandpur report 1997

চাঁদপুরের আশিকাটিতে প্রতিবন্ধীকে যুবককে বলৎকারের চেষ্টা! আটক ১

নিজস্ব প্রতিবেদক :

চাঁদপুর সদর উপজেলার ২নং আশিকাটি ইউনিয়নে অসহায় প্রতিবন্ধী যুবককে বলৎকার করার অভিযোগ উঠেছে। গত ১৪ এপ্রিল রাত সাড়ে ৭টায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে অাশিকাটি ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী পরিবার।

জানা যায়, আশিকাটির ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ পাইকস্তা গ্রামের সাতকুড়ি মিয়াজী বাড়ির জাকির মিজি ওরফে টাইগার জাকির ছেলে মোঃ সাব্বির মিজির(১৮) একই গ্রামের মুন্সী বাড়ির আফিয়া বেগমের ছেলে প্রতিবন্ধী মেহেদী হাসান(১৯) কে বলৎকারের চেষ্টা করে। এসময় একই বাড়ির কামাল মিজি ঘটনা দেখে ফেলে এবং বাড়ির লোকজনকে খবর পাঠিয়ে প্রতিবন্ধী মেহেদী হাসানকে উলঙ্গ অবস্থায় উদ্ধার করে। বিষয়টি নিয়ে ইউপি সদস্যসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা কয়েক দফা মিমাংসা করার চেষ্টা করলে অভিযুক্ত সাব্বির মিজির পিতা জাকির মিজি তা অস্বীকৃতি জানান।

এদিকে ভুক্তভোগী আফিয়া বেগম বলেন অভিযোক্ত সাব্বির মিজির পিতা জাকির মিজি (টাইগার জাকির) এলাকার দুষ্ট প্রকৃতির লোক। জাকির মিজি ঘটানার পর থেকে আমাদের কে গালমন্দ করে দেখে নেওয়ার হুমকি ধমকি দিয়ে আমাকে ও আমার প্রতিবন্ধী ছেলেকে মারতে তেড়ে আসছে। আমি অসহায় মানুষ, আমার স্বামী নেই, আমার প্রতিবন্ধী ছেলেকে নিয়ে কোনরকম জীবন যাপন করে আসছে। আমি অভিযোক্ত সাব্বির মিজি ও তার পিতা জাকির মিজির বিচার ও শাস্তি কামনা করছি।

এ নিয়ে গতকাল ২৮ এপ্রিল বুধবার দুপুরে আশিকাটি ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে পরিষদের ইউপি সদস্য সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের উপস্থিতিতে শালীস বসে। শালীসিতে অভিযোক্ত সাব্বির মিজি ঘটনার দায় স্বীকার করে।
পরে ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন পাটওয়ারী এলাকার শান্তির লক্ষে বিষয়টি মিমাংসা করার চেষ্টা করে। কিন্তু অভিযোক্ত সাব্বিরের পিতা জাকির মিজি(টাইগার জাকির) শালীসিদের অমান্য করে গালমন্দ করে চলে যায়। তিনি ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদেরকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন।

এ বিষয়ে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আবদুর রশিদকে বিষয়টি জানানো হয়। তাৎক্ষণিক চাঁদপুর মডেল থানার এস আই ফারুক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযোক্ত সাব্বির মিজিকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

শেয়ার করুন