rape logo ধর্ষণ

মতলব দক্ষিণে ধর্ষণচেষ্টা : মোটা অংকের টাকায় ধামাচাপা

মতলব প্রতিনিধিঃ মতলব দক্ষিণ উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের সরকার বাড়ীতে নানার বাড়ী বেড়াতে আসা শরীফ হোসেনের ১০ বছরের কন্যাকে একই বাড়ীর মুমিন সরকারের ছেলে বিবাহিত ইসমাইল হোসেন (৩২) জুসের প্রলোভন দেখিয়ে ঐ বাড়ীর একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা করে। ঘটনাটি ঘটে গত ৪ এপ্রিল রোববার সকালে।

সরো জমিনে যানা যায়, মেয়েটি ডাক-চিৎকার দিয়ে তার নানী মাহফুজা কে ঘটনাটি জানায়। এ দিকে খবর পেয়ে মেয়েটির মা কুহিনুর ও পিতা শরীফ ঢাকা থেকে কালিকা পুরে চলে আসে এবং এর উপযুক্ত বিচারের জন্য স্থানীয় মাতাবরদেরকে জানায়। পরের দিন ৫ এপ্রিল সোমবার কুহিনুর ও শরীফ মেয়েটিকে ধর্ষনের অভিযোগে মামলা করার জন্য মতলব দক্ষিণ থানায় চলে আসে। পরে স্থানীয় এলাকার টাউট বাটপাররা এ বিষয়টিকে আপোষ মিমাংশা করে দিবে বলে মেয়েটি ও তার বাবা মাকে বাড়ীতে নিয়ে যায়।

স্থানীয় মাতাবর আবুল বাশারসহ বেশ কয়েকজন সন্ধ্যায় এক শালিশী বৈঠকের ব্যবস্থা করেন। এতে ধর্ষণের চেষ্টাকারী ইসমাইল হোসেনকে নগদ ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে মুচলিকা এবং স্টাম্পে সই রাখা হয়। এ সময় ইসমাঈলকে খোঁজ করে তাকে পাওয়া যায় নি।

অপর দিকে মেয়েটির মা কুহিনুর বেগম ও তার নানী মাহফুজা বেগম বলেন, বিষয়টি আমরা স্থানীয় ভাবে আপোষ হয়েছি। বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি এবং পত্রিকায় দেওয়ার কি দরকার। স্থানীয় জানান, তারা সত্য ঘটনাটি মোটা অংকের টাকা পেয়ে থানা পর্যন্ত গিয়েও মামলা না করে বাড়ীতে চলে আসে।

মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ মহিউদ্দিন মিয়া বলেন, মেয়েটিকে নিয়ে মেয়েটির মা এবং নানি থানা পর্যন্ত এসেছিল। কিন্তু আমাকে না বলেই তারা বাড়ীতে চলে গেছে। তারপরও আমি বিষয়টি খতিয়ে দেখব।

এইচআর/এমআরআর

7 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন