805

শাহরাস্তিতে বিয়ের ৫ দিনের মাথায় নববধুর আত্মহত্যা

মোঃ কামরুজ্জামান সেন্টুঃ
চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে বিয়ের ৫ দিনের মাথায় গলায় ফাঁস দিয়ে এক নববধূ আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় সোমবার (২৬ এপ্রিল) বিকেলে স্বামী পরিবারের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছে ভিকটিমের নানা মোঃ শহিদ মিয়া (৬৫)।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, কুমিল্লার কোতয়ালী মডেল থানাধীন সালধর গ্রামের মনির হোসেনের কন্যা ভিকটিম মীম (১৮) শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামের স্বর্ণকার পাড়ায় তার নানার বাড়িতে থাকতো। সেখানে একই গ্রামের নজরুল ইসলামের পুত্র ফাহিমের (২১) সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক সৃষ্টি হয়। গত ২১ এপ্রিল রাত ৮ টার সময় ফাহিম ও মীমকে একত্রে পেয়ে বাড়ীর লোকজন আটক করে। এসময় উভয় পক্ষের অভিভাবকের সম্মতিক্রমে সামাজিক রীতিনীতি মেনে বিবাহ সম্পন্ন করা হয়। বিবাহের পর নববধুকে স্বামীর বাড়ীতে না নিয়ে তার নানার বাড়িতে রাখা হয়।
তার নানা মোঃ শহিদ মিয়ার অভিযোগ মীমকে স্বামীর বাড়িতে উঠিয়ে নেয়ার বিষয়ে স্বামীর বাড়ির লোকজনের সাথে বনিবনা না হওয়ায় ২৫ এপ্রিল সন্ধ্যা সাড়ে ৭ ঘটিকার সময় মীম তার নানা বাড়ি দালান ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় গামছা লাগিয়ে ফাঁস দিয়া আত্মহত্যা করে। বাড়ীর লোকজন দেখতে পেয়ে ফাঁস নামিয়ে শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়া গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।
খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম মিন্টু জানান, ভিকটিম তার নানার বাড়িতেই ছিল। ঈদের পর তাকে স্বামীর বাড়িতে উঠিয়ে নেয়ার কথা ছিল। বিয়ের ৫ দিনের মাথায় মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে।
এ ঘটনায় নিহতের নানা মোঃ শহিদ মিয়া বর ফাহিম, তার পিতা নজরুল ইসলাম, মাতা সুবর্ণা বেগম (৪০), চাচা নুরুল আলম(৩০) ও দাদী মাজেদা বেগমের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে শাহরাস্তি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবদুল মান্নান জানান, নিহতের নানা আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে থানায় মামলা দায়ের করেছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। ভিকটিমের লাশ ময়না তদন্ত শেষে সোমবার রাতে দাফন করা হয়েছে।

10 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন