chandpur report 1928

‘হেফাজতের ধর্ম ব্যবসা আর চলতে দেয়া হবে না’

হেফাজতের ধর্ম ব্যবসা আর চলতে দেয়া হবে না জানিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বলছে, আইনি ও রাজনৈতিকভাবে তাদের প্রতিহত করা হবে। সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে দলটির বিক্ষুব্ধ কর্মীরা যে জানমাল নষ্ট করেছেন, তার বিচার করার দৃঢ় প্রত্যয় জানিয়ে আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, প্রয়োজনে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করে তাদের বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

বুধবার (০৭ এপ্রিল) সকালে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলা পরিদর্শন করে জ্যেষ্ঠ নেতারা এসব কথা বলেন।

গেল ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রয়্যাল রিসোর্টে নারীসহ বেড়াতে গিয়ে স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়েন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক।

ওইদিন তাকে ওই রিসোর্ট থেকে অযাচিতভাবে বের করে নিয়ে যান ক্ষুব্ধ হেফাজত কর্মীরা। এ সময় রিসোর্ট ও আশপাশের এলাকায় ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে তারা ভাঙচুর করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এমনকি বাড়ি-ঘর পর্যন্ত।

ঘটনার চারদিনের মাথায়, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতারা সরেজমিন পরিদর্শনে গেলেন নারায়ণগঞ্জে। সোনারগাঁও উপজেলার রয়্যাল রিসোর্টসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় হেফাজতের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি-ঘর পরিদর্শন করেন শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা।

পরিদর্শন শেষে তারা তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, তাণ্ডবে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। দাবি ওঠে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করে হেফাজতের বিচারেরও।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, যারা ধর্মের নামে তাণ্ডব চালায় তাদের আর বরদাশত করা হবে না। আঘাতের পাল্টা আঘাত করা হবে। মামুনুল হকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে যারা আওয়ামী লীগের কার্যালয়সহ বিভিন্ন স্থানে হামলা ভাঙচুর চালিয়েছে তাদের রেহাই নাই। হামলাকারীদের প্রত্যেকের তালিকা করে আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তি দেয়া হবে। এসময় তিনি হামলাকারীদের তালিকা করার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন।

আওয়ামী লীগের সংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহা উদ্দিন নাছিম বলেন, ‘বিশেষ আইনের ব্যবস্থায় স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল করে এই ধর্ম ব্যবসায়ীদেরকে যারা জীবন-মাল এবং সম্পদের হানি ঘটিয়ে দেশ বিরোধী কর্মকাণ্ড করে তাদেরকে বিচারের আওতায় আনতে হবে।’

এদিকে, নিজ বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি মোকাবিলা করা হবে রাজনৈতিকভাবেই। যারা দেশব্যাপী তাণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে তাদেরকে হুঁশিয়ার করে বলে দিতে চাই। দেশের জনগণের সহনশীলতার একটা সীমা আছে। সীমা অতিক্রম করলে তার পরিণতি হবে ভয়াবহ।’

ধর্মাশ্রয়ী এসব দলের কর্মকাণ্ড সামাজিকভাবে প্রতিহত করতে গণমানুষকেও সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান আওয়ামী লীগ নেতারা।

 

শেয়ার করুন