arrest গ্রেপ্তার 1

কচুয়ায় ধর্ষণ আলামত বিনষ্ট করার অভিযাগে এক সালিশিকে গ্রেফতার

ওমর ফারুক সাইম, কচুয়া প্রতিনিধি :
চাঁদপুরর কচুয়া উপজলার কাদলা ইউনিয়নর কাদলা গ্রামের সরদার বাড়িতে ৯ বছরর এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধর্ষকের পক্ষে অবলম্বন করে পরিকল্পিত ভাবে ধর্ষণরের আলামত নষ্ট করার অভিযোগ জাহাঙ্গীর আলম (৬০) কে গ্রেফতার করা হয়েছে ।

স্থানীয় অধিবাসি ও পুলিশ সূত্র জানা যায়, গত ১৬ মে দুপুর ১ টার দিকে ধর্ষণের শিকার শিশুটি ওই বাড়ির শাহিন সরদারের ঘরের পাশে দিয়ে বাড়ির পুকুরে গোসল করতে যাওয়ার সময় শাহীন সরদার শিশুটির মুখে চাপে ধরে তার নিজ লোকশূন্য ঘরে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। শিশুটি পরে ঘটনাটি তার মাকে জানায়। রক্তক্ষরন বন্ধ করার জন্য শিশুটির মা শিশুটিকে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসকের নিকট নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করায়।

বিষয়টি শিশুর পরিবারের পক্ষ থেকে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তি তথা সালিশিদেরকে অবগত করে ও সুষ্ঠ বিচারের দাবী করে। সালিশিরা বিচারের আশ্বাস দেয়। এরপর চলে সালিশ বৈঠক। কাদলা গ্রামের কয়েকজন সালিশি ধর্ষকের পক্ষে অবলম্বন করে সালিশ বৈঠকের নামে কালক্ষপন করতে থাকে যাতে এই সময় ধর্ষনের আলামত নষ্ট হয় যায়।

এ অবস্থায় নিরুপায় হয়ে শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে ৩০ মে কচুয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইন (৯/১ ধারায়) মামলা দায়ের করে। মামলা নং ৩১। এ মামলায় ধর্ষককে আসামী করা ছাড়াও ধর্ষণর আলামত বিনষ্ট করার অভিযোগ ৩ সালিশিকে আসামী করা হয়। মামলা দায়ের দিনই ওই তিন আসামীর মধ্য সালিশি জাহাঙ্গীর আলম (৬০) কে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে ।

কচুয়া থানার ওসি মহিউদ্দিন শিশু ধর্ষনের অভিযোগ মামলা দায়ের ও ওই মামলার আসামী হিসাবে জাহাঙ্গীর আলম নামের এক সালিশিকে গ্রেফতার করার সত্যতা স্বীকার করে জানান, মামলার মূল আসামী (ধর্ষক) সহ অপর আসামীদর গ্রেফতারের পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে ।

32 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন