খুন

টাকা-স্বর্ণালংকার লুটের জন্যই ঠাণ্ডা মাথায় ভয়ঙ্কর জোড়া খুনের মিশন

ঘরে থাকা টাকা আর স্বর্ণালংকার লুটের জন্যই নারায়ণগঞ্জে হত্যা করা হয় বাড়িওয়ালি হোসনে আরা বেগমকে।

স্বামীকে অচেতন করে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ভাড়াটিয়া দম্পতি। উদ্দেশ্য বাড়িওয়ালার টাকা-পয়সা লুট করা। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। ঘটনার ৪ দিন পর হত্যায় জড়িত ভাড়াটিয়া দম্পতিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার ঝাউচর গ্রামের আজিম উদ্দিনের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন হারুন অর রশিদ ও সুলতানা বেগম নামে এক দম্পতি। দীর্ঘদিন ভাড়া থাকার কারণে বাড়ির মালিকের সঙ্গে একটা সময় পারিবারিক সম্পর্ক তৈরি হয় তাদের। ছিল অবাধ যাতায়াত। এই সুযোগে হারুন অর রশিদ ও সুলতানা বেগম দম্পতির চোখ পড়ে মালিকের টাকা-পয়সা গয়নার ওপর।

পরিকল্পনা মোতাবেক ৮ মে রাতে হারুন অর রশিদ ও তার স্ত্রী মিলে আজিম উদ্দিনকে ঘুমের ওষুধ সেবন করিয়ে অচেতন করেন। বিষয়টি টের পেলে তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও জিনিসপত্র নিয়ে রাতের আঁধারে পালিয়ে যান তারা।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি হত্যায় জড়িত ভাড়াটিয়া দম্পতিকে গাজীপুর থেকে গ্রেপ্তার করে।

সাংবাদিকদের সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুক্তাধর বলেন, তারা এ রকম একটি কাজ ঠাণ্ডা মাথায় করেছে। তারা দুবার পরিকল্পনা করেছে। প্রথমবার তাদের পরিকল্পনা ভেস্তে গেছে বাড়িওয়ালা অসুস্থ হয়ে পড়ায়। দ্বিতীয়বারে তারা সফল হয়।

ভাড়াটিয়া নিবন্ধন ফরম পূরণ না করে বাড়ি ভাড়া না দেয়ার পরামর্শ পুলিশের।

শেয়ার করুন