matlab uttar jo bag

মতলব উত্তরে বেড়িবাঁধ রক্ষায় জিও ব্যাগ প্লেসিং প্রস্তুতির কাজ চলছে দ্রæত গতিতে

মতলব উত্তর প্রতিনিধি :
চাঁদপুরের মতলব উত্তরের মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্প ভাঙ্গন রোধে জিও ব্যাগ প্রস্তুতির কাজ চলছে দ্রæত গতিতে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে জিও ব্যাগ ডাম্পিং কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। প্রতিদিন ৫০-৬০ জন শ্রমিক করছেন ভাঙ্গন কবলিত স্থানে। মেঘনায় জিও ব্যাগ প্রস্তুতির খবরে আনন্দ উচ্ছ¡াসে দিন কাটাচ্ছেন বেড়িবাঁধের আশপাশের বাসিন্দারা।

বেড়িবাঁধের ভাঙ্গন রোধ প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ায় এলাকার মানুষের মাঝে খুশির আমেজ লক্ষ্য করা গেছে। ভিটেবাড়ি’সহ বেঁচে থাকার শেষ অবলম্বনটুুকু রক্ষায় সরকারের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন মতলব উত্তরের হাজারো মানুষ। প্রতিদিন কাজ দেখার জন্য শত শত মানুষ নদীর পাড়ে ভীড় করেন। আগামী বর্ষার আগেই স্থায়ী ভাঙ্গনরোধে সিসি বøাক স্থাপনের দাবি জানিয়েছন তারা।

সরেজমিনে ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের জনতা বাজার সংলগ্ন এলাকায় গিয়ে দেখা যায় মেঘনা ধনাগোদা বেড়িবাঁধ রক্ষার্থে ৫০-৬০ জন শ্রমিক কাজ করছে। কেই বালু দিয়ে জিও ব্যাগে ভরছে, কেউ ব্যাগ সেলাই করছে। কেই ওজন ঠিক করছেন। আর এই কাজের তদারকি করছেন চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাগণ। এছাড়াও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের টাস্কফোর্স এর সদস্যরাও নিয়মিত কাজের গুনগত মান ঠিক রাখতে তদারকি করছেন।

মঙ্গলবার (২৫মে) সকালে জিও ব্যাগে বালু ভরে জিও ব্যাগ প্লেসিং প্রস্তুতির কাজ পরিদর্শনে আসেন মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের সহকারী প্রকৌশলী মো. আতিকুল ইসলাম, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. সালাউদ্দিন।

পরিদর্শন শেষে মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের সহকারী প্রকৌশলী মো. আতিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, নিয়ম অনুযায়ী কাজ হচ্ছে। এখানে কোন অনিয়ম হচ্ছেনা। প্রতিটি ব্যাগে ১৭৫ কেজি বালু থাকবে। জিও ব্যাগে ১৭৫ কেজির কম বালু থাকলে, তা পুনরায় বালু দিয়ে পুরণ করে দেই। এখানে ফাঁকি দিয়ে কাজ করা যাবেনা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান যাতে কোন রকম ফাঁকি দিতে না পারে সে জন্য সবসময়ের জন্য আমার প্রতিনিধি, স্থানীয় জনগন ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের টাস্কফোর্স এর সদস্যগণ সবসময় খেয়াল রাখছে। নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান কাজের গুণগত মান বজায় রেখে কাজ করছে।

ভাঙ্গন কবলিত এলাকার কাজ সম্পর্কে স্থানীয় আব্দুর রব প্রধান বলেন, চলতি অর্থ বছরে পানি উন্নয়ন বোর্ড মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের জনতা বাজার এলাকয় কাজ করছে। দ্রæত গতিতে কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। কাজের গুনগতমানও ভাল। তবে অন্য সব ভাঙ্গন কবলিত এলাকায়ও নদী ভাঙ্গন রোধে কাজ করতে হবে।

এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা মো. মনির হোসেন বেপারী, মতলব উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক আহŸায়ক আ. রব প্রধান, যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম বাবলু, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আ. রহিম প্রধান, যুবলীগ নেতা জুয়েল মীর, তাঁতীলীগ নেতা ইব্রাহিম’সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

11 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন