মাদক ব্যবসায়ী অসামাজিক

হাজীগঞ্জে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে পরকীয়া প্রেমিকের সাথে বসবাস

হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি : হাজীগঞ্জে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে স্থানীয় এক মাদক ব্যবসায়ীকে সঙ্গী করে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ উঠেছে। ইতোমধ্য মাদক ব্যবসায়ী প্রেমিক ও পরকিয়াকে প্রেমিকাকে স্থানীয় লোকজন হাতে নাতে ধরে পেলেন। তারা তাদের ভাড়া বাসায় এই অবৈধ কার্যকলাপ বেশ কয়েকদিন ধরে করে আসছেন বলে স্থানীয় বাসিন্দারা এমন অভিযোগ তুলেছেন। এছাড়া তারা বিভিন্ন স্থান থেকে মহিলা বা মেয়ে এনে দেহ ব্যবসা করে আসছে। ঘটনার দিন ওই মহিলাকে পুরুষসহ তাদের রুমে পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। ঘটনাটি গত ৩ মে সোমবার রাতে পৌর এলাকার আলীগঞ্জ মোল্লা সড়কের জাহাঙ্গীরের ভগ্নিপতি মালিকানাধীন ভবনের নিচতলায় ঘটে।

জানা যায়, ফরিদগঞ্জ উপজেলার চরনবনিয়া গ্রামের দেলোয়ার পাটওয়ারীর ছেলে গিয়াস উদ্দিন পাটওয়ারীর সাথে শাহরাস্তি উপজেলার টামটা দক্ষিন ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের শাহ আলমের মেয়ে নাছিমা আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে নাছিমা তার স্বামীকে মানসিক ভাবে যন্ত্রনা দিয়ে আসতো। হঠাৎ নাছিমা তার বাবার বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে স্বামীর বাসা থেকে চলে যায়। পরে নাছিমা পৌর এলাকার টোরাগড় গ্রামের ফজর আলীর ছেলে মাদক ব্যবসায়ী মহসিনকে সঙ্গী করে বা স্বামী পরিচয় দিয়ে আলীগঞ্জের মোল্লা সড়কের জাহাঙ্গীর আলমের ভগ্নিপতির মালিকানাধীন ভবনে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করেন। তারা ওই বাসা ভাড়া নিয়ে অবৈধভাবে বেশ কয়েকদিন বসবাস করে আসছেন। এমনকি তারা ওইখানে থেকে মাদক ব্যবসা এবং জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে মহিলা এবং মেয়ে এনে দেহ ব্যবসা করছেন বলে আশপাশের স্থানীয়দের অভিযোগ। তাদের দুই জনের চলা ফেরায় স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তারা পাহারা দিয়ে ঘটনার দিন মাদক ব্যবসায়ী মহসিন, তাঁর পরকিয়া প্রেমিকা নাছিমা এবং দুই কপোত-কপোতীকে হাতে নাতে ধরে পেলে। পরে স্থানীয় লোকজন বাড়ির মালিকের শ্যালকের জিম্মায় তুলে দেয়। এরই মধ্য নাছিমা তার স্বামীর বিরুদ্ধে চাঁদপুর আদালতে মামলা দায়ের করেন। যায় মোকাদ্দমা নং১০১।

স্থানীয় শিপন, ফারুক জানান, তারা এখানে বাসা ভাড়া নিয়ে মাদক ব্যবসা ও দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছে। বিষয়টি আমরা জানতে পেরে কয়েকদিন পাহারা দেওয়ার পর হাতে নাতে ধরেছি। পরে আমরা বাড়ির মালিকের শ্যালকের জিম্মায় তুলে দেই।

ছবি : পরকীয়া প্রেমিক মহসিন ও নাছিমা আক্তার।

শেয়ার করুন