করোনায় চেয়েও টিবি রোগে মৃত্যু বেশি : কুমিল্লায় স্বাস্থ্য’র- ডিজি

জাহাঙ্গীর আলম ইমরুল, কুমিল্লা ব্যুরো চীফ :
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল বাশার খুরশীদ আলম বলেছেন, বাংলাদেশে কোভিড-১৯এর চাইতেও টিবি রোগের ভয়াবহতা কোনো অংশেই কম নয়। টিবি রোগের ভয়বহতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সারাদেশে দুইবছরে কোভিড-১৯ এ মারা গেছেন ১২ হাজার আর শুধু টিবি রোগে আক্রান্ত হয়ে গত একবছরেই মারা গেছেন ২৮ হাজার মানুষ।

সোমবার (৭ জুন) বিকেলে কুমিল্লায় ব্র্যাক কার্যালয়ে আায়োজিত কোভিড-১৯ পরবর্তী সংক্রমণ রোগ টিবি, এইচআইবি ও ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্ত ঝুঁকি এড়াতে স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ক সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল বাশার খুরশীদ আলম এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, এতে আতংকিত না হয়ে টিবি রোগ প্রতিরোধে আমাদের সচেতনতার বিকল্প নেই। কারণ বর্তমান সরকার এই রোগের চিকিৎসায় বিভিন্ন আধুনিক যন্ত্রপাতিসহ তা প্রতিরোধে সকল ব্যবস্থা নিচ্ছেন। শুধু সঠিকভাবে চিকিৎসা নিলে এবং সচেতনতায় এই রোগ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাসের নমুনা পরিক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজে আরও একটি উন্নতমানের পিসিআর ল্যাব দেয়া হবে। যেটি দিয়ে একসাথে ৩০৭টি রিপোর্ট পাওয়া যাবে। তবে এ জন্যে প্রয়োজনীয় দক্ষ জনবল লাগবে। যত দ্রুত দক্ষ জনবল নিয়োগ দিতে পারা যাবে, তত তাড়াতাড়ি নমুনা পরীক্ষার মেশিনটি দেয়া যাবে।

জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির আওতায় জেলা সিভিল সার্জন অফিসের প্রকল্প বাস্তবায়ন সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন, কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। বিশেষ অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক হাসান শাহরিয়ার কবির, কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ মীর মোবারক হোসাইন, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. আবুল কালাম আজাদ, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, (টিবি) ব্র্যাক এরিয়া সুপারভাইজার সিনিয়র মোহাম্মদ জাফরুল আলম।

এই সেমিনারে কুমিল্লাসহ চট্টগ্রাম বিভাগের সকল জেলার সিভিল সার্জন গণ, বেসরকারি মেডিকেল কলেজের পরিচালক বৃন্দ, বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, এনজিও প্রতিনিধি, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, বিভিন্ন শ্রেনী পেশার প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

25 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন