chandpur report 2068

ফরিদগঞ্জে পৈত্রিক ভিটা মাটি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি:
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে দিনে-দুপুরে ঘর ভেঙ্গে নিয়ে খান্তহয়নি উল্টো পৈত্রিক ভিটে মাটি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ৭নং পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নের বিষেরবন্দ গ্রামে।

উপায়ন্ত না পেয়ে হতদরিদ্র দিন মজুর আবুল বাশারের ছেলে ফয়েজ আহম্মেদ বাদী হয়ে বিজ্ঞ আদালতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়েছে। ঘটনার বিবরনে জানা যায় পৈত্রিক ৯ শতক জমিতে দির্ঘ দিন যাবৎ বসবাস করে আসছে আবুল বাশারের স্ত্রী ফাতেমা বেগম কিন্তু হটাৎ করে আবুল বাশারের ভাই কাদের আলী অবৈধ ভাবে কিছু ভুয়া দলিল সৃজন করে আবুল বাশারের পৈত্রিক জমি দখলের চেষ্টা করে।

বাঁধা দিয়ে বহুবার রক্ষা করেন আবুল বাশারের ছেলে ফয়েজ আহম্মেদ কিন্তু কর্মের তাগিদে ঢাকা অবস্থান করার কারণে গত ১০ এপ্রিল ২০২১ইং তারিখে সুযোগ পেয়ে আবুল বাশারের বসত ঘর থেকে জোর পূর্বক সন্ত্রাসী কায়দায় তাদেরকে ঘর থেকে বের করে মালামাল সহ ঘর ভেঙ্গে নিয়ে যায়।

সাথে সাথে ঘর ভিটিতে গোখাদ্য এনে স্তুপ দিয়ে রাখে। এসময় আবুল বাশারের ছেলে ফয়েজ আহম্মদের অন্তসত্তা স্ত্রী শিউলি আক্তার বাধা দিলে তাকে বেদম মারধর করে গুরুতর আহত করে ফেলে রাখে। পরে তাকে পাশবর্তী বাড়ীর লোকজন উদ্ধার করে চাঁদপুর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ বিষয়ে আবুল বাশার বলেন, কাদের আলীর ভয়ে এলাকার কোন লোক মুখ খুলতে পারছেনা কাদর আলী বিজ্ঞ আদালতে ৬ অক্টোবর ২০২০ইং তারিখে ১৪৫ ধারা জারী করে নিজেই আদালতের স্থিতি অবস্থা অমান্য করে আমাদের ঘরের মালামাল সহ ঘর ভেঙ্গে নিয়ে যায়।
এবং বার বার আমাদেরকে উল্টো মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। এ বিষয়ে আবুল বাশারের ছেলে ফয়েজ আহম্মেদ বলেন, আমার স্ত্রী শিউলী বেগম বিগত ১৩/০৩/২০০৭ইং তারিখে ১৪৬৬ নং দলিলমূলে জেঠা আবুল হাশেম হতে খোশ খরিদ সূত্রে ৫ শতক ও ০১/১০/২০০৯ইং তারিখে ৫৯২৪ দলিল মূলে ৪ শতক মোঃ আবুল বাশার হতে খরিদ সূত্রে মালিক থাকিয়া উভয় দলিলে ৯ শতক সম্পত্তির উপর ঘর দরজা করে অদ্যাবধি ভোগ দখল করিয়া আসিতেছি। মৌজা- বিষুরবন্দ, জে এল নং- সি.এস ৩০৬, খতিয়ান নং- সি.এস ১১১, আর.এস ১০০ খারিজি খতিয়ান নং- ৪০৩, দাগ নং- সিএস ১২৯৭, দাগ নং- বিএস ৩০৪৬, নাল ৩০৪৫ দাগ ভিটা। উক্ত খতিয়ানে ৫ জেএল নং- ৩০৬, বিএস ১৫১। সিএস ১১১ আরএস ১০০ বিএস (বুজরাত) ৩১০ নং খারিজী খতিয়ান ৪০২ দাগ নং- সি.এস ১২৯৭ দাগ নাল বিএস ৩০৪৬ ও ৩০৪৫ নং দাগ। ৪ শতক। বর্তমানে আমাদের খরিদা সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদ করার পায়তারা করিতেছে। আমরা হতদরিদ্র হওয়ায় আইনের কাছে গিয়ে তেমন কোন সহযোগিতা পাচ্ছিনা। তিনি আর বলেন স্থানীয় মামলা বাজ মৃত হাবীব উল্যার ছেলে সিরাজ মিজি মামলার সকল পরিকল্পনা কারী এবং আমাদের জায়গা দখলের বিষয়ে পাশ^বর্তী রামগঞ্জ উপজেলা থেকে ভাড়া করে সন্ত্রাসী নিয়ে এসে জায়গা দখল করেছে। কাদের আলী অবৈধ ভাবে টাকা পয়সা দিয়ে সকলকে ম্যানেজ করে নিচ্ছে, আমরা এর প্রতিকার চাই।

এ বিষয়ে কাদের আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই জায়গায় আসলে ফয়েজ ও তার বাবার হাত কেটে রেখে দেওয়া হবে। আমার সকল কাগজ পত্র বৈধ। তারা আদালতের স্বরণাপন্য হয়েছে। আমি আদালতের মাধ্যমে তাহা জবাব দেব।

এ বিষয়ে ভোক্তভুগী ফয়েজ আহমেদের জেঠা আবুল হাশেমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিগত ১৩/০৩/২০০৭ইং তারিখ ১৪৬৬ দলিলে ফয়েজের স্ত্রী শিউলি বেগমের নিকট সাবকাওলা করে দখল হস্তান্তর করি। বর্তমানে সে ঐ সম্পত্তির উপর বিদ্যমান রয়েছে এবং বিভিন্ন সময় কাদের আলী ফয়েজের পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা হয়রানী মূলক মামলা করে আসছে।

এ বিষয়ে ৯ ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ মজিবুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে স্থানীয়ভাবে বহু বার মীমাংসা করার চেষ্টা করলে কাদের আলীর ঘরিমষি ও টালবাহানা করে বার বার শালিশ বৈঠক থেকে উঠে যায়। বর্তমানে এ নালিশী ভূমি নিয়ে পক্ষ প্রতিপক্ষ বিজ্ঞ আদালতে মামলা করেন।

শেয়ার করুন