নিউচর সম্প্রসারণ

হাইমচরে নিউচর আশ্রায়ন প্রকল্পের চাবি হস্তান্তর

সাহেদ হোসেন দিপু :
হাইমচরে নিউচর (সম্প্রাসারন) আশ্রায়ন প্রকল্প এর চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২টায় উপজেলা নির্বাহি অফিসারের কার্যালয়ে উপজেলা প্রশাসনের নিকট এ প্রকল্পের চাবি হস্তান্তর করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কুমিল্লা সেনানিবাসের মেজর তাসনিম ফারহান ও ক্যাপ্টেন মেহেদি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারী, উপজেলা নির্বাহি অফিসার চাই থোয়াইহলা চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন বেপারী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহনাজ বেগম, প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আমিনুর রশিদ, প্রেসক্লাব সভাপতি মো. খুরশিদ আলম প্রমুখ।

সেনাবাহিনী সূত্রে জানা যায়, হাইমচর উপজেলার নীলকমল ইউনিয়নের নিউচরে নদীভাঙ্গন কবলিত এলাকার গৃহহীন পরিবারের আশ্রায়ন প্রদানের জন্য গত ১ এপ্রিল ২০২১ তারিখে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ৩৩ পদাতিক ডিভিশনের অধীনস্থ ৪৪ প্রদাতিক ব্রিগেডের ৩ বীর এর তত্বাবধানে আশ্রয়ন -২ প্রকল্পের আওতায় ৫ ইউনিট বিশিষ্ট ২৮ টি সিআইসিট ব্যারাক হাউজ নির্মানের কাজ শুরু হয়। গত ২২ মে কাজ সম্পন্ন হয়।

এই আশ্রায়ন প্রকল্পে ১৪০ টি পরিবার বসবাস করতে পারবে। প্রকল্পটির দৈর্ঘ্য ৪৫ ফুট প্রস্থ ২৯ ফুট। ৫ ইউনিট বিশিষ্ট শেড গুলো প্রতিটির মেঝে পাঁকা ও সম্পূর্ন টিন দ্বারা নির্মিত। আশ্রায়নে বসবাসকারীদের সুবিধার্থে ৮৪ টি টয়লেট ও বিশুদ্ধ পানির জন্য ২৮ টি অগভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়েছে। ৯ জুন বুধবার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, নির্বাহি অফিসার, ভাইস চেয়ারম্যান, প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও প্রেসক্লাব সভাপতির উপস্থিতিতে সেনাবাহিনী প্রতিনিধি কর্তৃক উপজেলা প্রশাসেনর নিকট হস্তান্তর করা হয়।

এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারী বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক নির্মিত আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর হস্তান্তর করেছে সেনাবাহিনীর প্রতিনিধি দল। আমরা হত দরিদ্র, নদী ভাংতি মানুষ, সুবিধা ভোগীদের তালিকা অনুযায়ী তাদেরকে আমরা ঘর গুলি বুঝিয়ে দিব। তারা প্রধানমন্ত্রীর দেয়া এ ঘরে পরিবার পরিজন নিয়ে সুন্দর ভাবে থাকবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর যে স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলা গড়ার আজকে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন হচ্ছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তত্বাবধায়নে সুন্দর ভাবে ঘর গুলো নির্মান করায় তিনি হাইমচরবাসীর পক্ষ থেকে সেনাবাহিনীকে অভিনন্দন জানান।

কুমিল্লা সেনানিবাসের মেজর তাসনিম ফারহান বলেন, আশ্রায়নের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার। এ মূল মন্ত্রকে সামনে রেখে আশ্রায়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় হাইমচরের নদী ভাঙ্গনকবলিত এলাকার গৃহহীন পরিবারের জন্য আশ্রায়ন প্রকল্প প্রশাসনের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহন করার পর থেকে ঘূনিঝড়ে আক্রান্ত মানুষজনের দুর্দশা দেখে গৃহহীন মানুষের পুনর্বাসনের নির্দেশনা প্রদান করেন। তার নির্দেশনা মোতাবেক শুরু হয় আশ্রায়ন প্রকল্প।

তারই ধারাবাহিকতায় আজ আমাদের তত্বাবধায়নে নির্মিত আশ্রায়ন প্রকল্প হস্তান্তর করা হয়। এ আশ্রায়ন প্রকল্পের মাধ্যামে ১৪০ টি পরিবার খুজে পাবে স্বপ্নের ঠিকানা। এ কাজের সাথে জড়িত হতে পেরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী আন্তরিক ভাবে গর্বিত।

শেয়ার করুন