hoyrani

চাঁদপুর বিষ্ণুপুরে মামলা দিয়ে এক পরিবারকে হয়রানি করার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার  :

চাঁদপুর সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের মনোহরখাদী গ্রামের দুই প্রতিবেশীর পূর্ব শত্রুুতার জেরে তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিবেশী একটি পরিবার কে স্পর্শ কাতর মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চাঁদপুর সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের মনোহরদী গ্রামের বরকন্দাজ বাড়ির মফিজ বরকন্দাজদের সাথে পাশ্ববর্তী বাড়ির মৃত দেলোয়ার বেপারীর পূর্ব শত্রুুতা ছিলো। দুই পরিবারের অজান্তেই মফিজ বরকন্দাজের নাতনীর সাথে মৃত দেলোয়ার হোসেন বেপারীর ছেলে রাজন বেপারী মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক হয়ে গভীরতায় রুপ নেয়। কিন্তু উভয়ই অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় আবেগের ছলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়।

এই খবর মৃত দেলোয়ার বেপারীর পরিবারের সদস্য শুনার সাথে সাথেই ছেলে এবং মেয়ে উদ্ধার করে স্হানীয় গণ্যমান্য বেশকজনের উপস্থিতিতে এবং উভয় পরিবারের সদস্য ও স্হানীয় সালিশিদের স্বাক্ষরে একটি আপোষ নামা কাগজ করে মেয়ের বাবা, নানার কাছে হস্তান্তর করা হয়।

উক্ত আপোষ নামা কাগজে উল্লেখ ছিলো উভয়ই অপ্রাপ্ত বয়স্ক তাই তাদের কে সংশোধনের সুযোগ দিয়ে উভয়ই একে অপরের সাথে কোনো ধরনের যোগাযোগ করবে না এবং ভবিষ্যতে আর কোনো ভুল করবে না মর্মে কাগজে স্বাক্ষর করা হয়।

শুধু তাই নয়, উভয়ই অভিবাবক গুরু দায়িত্ব পালন করবেন। শুধু তাই নয়, এ বিষয়ে কোনো পক্ষই বিশেষ করে মেয়ে পক্ষ কোনো ধরনের আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে না এবং গ্রহণ করবে না, মর্মে মুচলেকা দেয়া হয়।

শুধু তাই নয়, ঐ কিশোরী মেয়েটি নিজেই স্বেচ্ছায় স্বাক্ষরিত অঙ্গীকার নামা দেয়। তাতে উল্লেখ রয়েছে এই ঘটনার জন্য তাঁর মা বাবা দায়ী এবং তাদের কারণে সে রাজনের থেকে বিয়ের উদ্দেশ্যে বের হয় ।

বিষয়টি সামাজিক ভাবে অত্যান্ত সৌহার্দ্যপূর্ন পরিবেশে উভয় পরিবারের শান্তির লক্ষ্যে সমাধান হলেও রাজনদের পরিবারের সাথে পূর্ব শত্রুুতার কারণে মফিজ বরকন্দাজ শুধু মাএ হয়রানির এবং সামাজিক ভাবে হেয় করার উদ্দেশ্যে নিরীহ এই পরিবারটির বিরুদ্ধে কিশোরীর মা মাহমুদা বেগম বাদী হয়ে চাঁদপুর কোর্টে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গত ২৫ মে একটি মামলা করেন। যার নং- ১৭১।

শুধু তাই নয়, কোনো ইস্যু বা ঘটনা ছাড়াই কিশোরীর নানা মফিজ বরকন্দাজের ইঙ্গিতে রাজনের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর এবং রাজনকে আহত করে ও লুটপাট করে। এমতাবস্থায় এই ধরনের হয়রানি ও অন্যায়ের হাত থেকে রক্ষা পেতে রাজনের পরিবার সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

87 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন