প্রতারণা

চাঁদপুরে এ আজব অভিনব প্রতারণা বন্ধ হোক

বিশেষ সম্পাদকীয় :

এ এক আজব অভিনব প্রতারণা। যা আমরা আর পূর্বে কখনও শুনিনি। মানুষ যে কত প্রকার প্রতারণার আশ্রয় নিতে পারে, বিষয়টি সরেজমিনে না জানলে কেউ বিশ্বাস করবে না। আর এ প্রতারণার শিকার হয়ে চাঁদপুরের শিলন্দিয়া গ্রামে অনেক মানুষই হারিয়েছেন তাদের অনেক কষ্টে লালিত প্রিয় পশুটি।

ঘটনাটি আমাদেরকে হতবাক করে, অশ্রুসিক্ত করে এ মহাদুর্যোগসম করোনাকালীন সময়ে।

চাঁদপুরের প্রথমসারির দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, গত ১৩ জুলাই মঙ্গলবার সদর উপজেলার শিলন্দিয়া গ্রাম থেকে সোহেল (৩৮) নামে এক প্রতারককে আটক করে এলাকাবাসী।

এই প্রতারকের বাড়ি সিলেটের হবিগঞ্জে। প্রতারণার সুযোগ খোঁজার জন্যে চাঁদপুর সদর উপজেলার শিলন্দিয়া গ্রামে বিয়ে করে। এরপর এই সুচতুর প্রতারক ওই এলাকার ক’টি গরু ও ছাগলকে তেলাপোকার ঔষধ খাইয়ে মেরে রাখে। পরদিন এলাকার লোকজন তাদের গরু-ছাগল মৃত দেখে হায়-হুতাশ করাকালে ওই সুচতুর প্রতারক সোহেল কৌশলে মরা গরু ও ছাগল কমদামে ক্রয় করে গোপনে জবেহ করে মাংস বিক্রি করে কমপক্ষে ৫ লাখ টাকা লাভবান হচ্ছিল।

কিন্তু বিধিবাম, সর্বশেষ ১৩ জুলাই ২০২১ খ্রি. আবারও ওই একই ঘটনা ঘটানোর সময় তাকে এলাকাবাসী আটক করে চেয়ারম্যানের মাধ্যমে পুলিশে সোপর্দ করে।

আপাতত এ ঘটনার অবসান মনে হলেও মূলত এগুলো এক দুষ্টচক্রের কাজ। এদের দলে আরো গ্যাং রয়েছে। যারা একজনের সাময়িক অবসানে অন্যরা কাজ চালিয়ে যেতে পারে। তাই এ ধরনের প্রতারকদের সমূলে গ্রেপ্তার করতে হবে।

আমরা চাই এহেন প্রতারণা বন্ধ হোক। মানুষ করোনাকালীন সময়ে এক ভয়াবহ দুশ্চিন্তায় রয়েছে। এ সময় অনেক মানুষই সহায়-সম্বলহীন ভাবে সংসারে অভাবের মধ্যে রয়েছে। এসব প্রতারক এই অভাবী মানুষদেরকে সর্বস্বান্ত করছে এক জঘণ্য কূট কৌশলে। বন্ধ হোক এসব প্রতারণা, বন্ধ হোক এসব প্রতারকদের ঘৃণিত কাজ-কারবার।

শেয়ার করুন