maxsulin ing

ফরিদগঞ্জে ইনসেপটা’র ম্যাক্সসুলিন নিয়ে রোগীদের অভিযোগ

ফরিদগঞ্জ (চাঁদপুর) সংবাদদাতা :
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে ইনসেপটা ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড কোম্পানীর প্রস্তুুতকৃত ডায়াবেটিকস্ রোগীদের জন্য ম্যাক্সসুলিন নামক ইনস্যুলিনের বিষয়ে অভিযোগ তুলেছে ব্যবহারকারীরা।

রোগীরা বলছে, পূর্বের চেয়ে ৩ ভাগের এক ভাগ ঔষধ কম দিয়েই একই মূল্য নির্ধারণ করে বিক্রি করা হচ্ছে। ফলে আমাদের পূর্বে যেখানে এক বোতল ম্যাক্সসুলিনে ১৫ দিন যেতো সেখানে বর্তমানে পরিমাণ কম দেওয়ায় মাত্র ১০দিন যাচ্ছে। এমন অভিযোগ তোলছেন উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ব্যবহারকারিরা।

সোমবার ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে হাছিনা আক্তার (৪০) নামের রোগী জানান, আমি ২০১৯ইং হতে ইনসেপটা কোম্পানীর ম্যাক্সসুলিন ব্যবহার করে আসছি বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের চিকিৎসকের পরার্মশ মতে। আমি ২০১৯ইং এ একই মূল্যের ১০ মিলির একটি বোতল ৩৭০ টাকায় ক্রয় করে ১৫ দিন সেবন করতাম। বর্তমানে মোড়কে একই পরিমাণ লিখা থাকলেও ঔষধের পরিমাণ ৩ ভাগের এক ভাগ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও ঔষধ প্রশাসনের নজরদারীতে আনয়নের দাবী জানান। আমরা এভাবেই প্রতারিত হচ্ছি প্রতিনিয়ত।

একই অভিযোগ উপজেলার ফরিদগঞ্জ সদর, রুপসা, কালির বাজার, চান্দ্রা, মুন্সিরহাট, গৃদকালিন্দিয়াসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের রোগীদের।

এ বিষয়ে ইনসেপটার এরিয়া ম্যানেজার সিফাত হাসান ও প্রোডাক্ট ম্যানেজার মোজাহারুল ইসলামের মুঠোফোনে জানতে চাইলে পরিস্কার ভাবে কিছু বলতে না পারায় ইনসেপটার প্রধান কার্যালয়ের ডেপুটি ম্যানেজার মোঃ হেদায়েত উল্যাহ মুঠো ফোনে বলেন, আমাদের স্থনীয় রিপ্রেজেন্টটেটিভ দিয়ে অভিযোগ কারীর ম্যাক্সসুলিনের বোতলটি সংগ্রহ করে অন্য একটি প্রদান করবো। তাছাড়া ওঁই বোতলটি আমাদের হেড অফিসে সংরক্ষণ করাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

43 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন