সারোয়ার konok sarwer

ইতিহাসে সবচেয়ে নিকৃষ্ট একজন ব্যক্তির নাম কনক সারোয়ার

নিউজ ডেস্ক :

বাংলাদেশের সাংবাদিকতার ইতিহাসে সবচেয়ে নিকৃষ্ট একজন ব্যক্তির নাম কনক সারোয়ার। তাকে সাংবাদিক না বলে বরং নিম্নমানের সোশ্যাল মিডিয়া এক্টিভিস্ট বলা যেতে পারে। সম্প্রতি তারেক জিয়ার সহকারী একজন বিএনপি নেতার সাথে চুক্তি অনুযায়ী প্রতিশ্রুত টাকার বনিবনা না হওয়ায় একটি অডিও রেকর্ড ফাঁস হয়। কী ছিল তাদের দুজনের কথায়?

কী গুজব রটাতে চেয়েছিলেন কনক সারোয়ার টাকার বিনিময়ে? পাঠকদের জন্য সেটি বিস্তারিতভাবে এবার তুলে ধরা হলো:

তারেকের সহকারীর বক্তব্যে পাওয়া যায় প্রথমে-

আরো পড়ুন : শ্বেতির সাদা দাগ দূর করার সহজ কিছু উপায়

‘টাকার দরকার, টাকা পাবেন। গত মাসেও তো আপনার একাউন্টে টাকাগুলো পাঠানো হয়েছে। পেয়েছেন না টাকাগুলো? টাকা নিয়ে টেনশনের কী দরকার? আপনারা সবসময় টাকা, টাকা করেন। ফান্ড তো আপনাদের জন্য রেডি থাকে। বাংলাদেশ থেকে পাঠানোও তো একটা সমস্যা। সরকার আমাদের দিকে সবসময় নজর দিয়ে রেখেছে। এদিকে টাকা যে পাঠাবো, ব্যাংক একাউন্টের দিকেও তো নজর দিয়ে রেখেছে। কীভাবে? আপনারা যদি প্রতিটা ভিডিও, প্রতিটা স্টেটমেন্টের জন্য আলাদা আলাদা করে টাকা নেন, তাহলে কীভাবে হবে? আপনি কী ভাবেন, আপনাদের টাকা না দিয়ে বসে থাকব আমরা?’

কনক সারোয়ার এমন সময় আমতা আমতা করে বলেন, ব্যাপার তো মনে হয় ওদিকেই যাচ্ছে।

আরো পড়ুন : জেনে নিন যৌন রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার

তারেকের সহকারী কিছুটা চটে গিয়ে বলেন, আরে ওদিকেই তো যাচ্ছে মানে কী? টাকা আপনারা পাচ্ছেন। গত সপ্তাহ আগে ১২০০ ডলার আপনার একাউন্টে জমা করেছিলাম। ১২০০ ডলার দুটো ভিডিওর জন্য। এবারও আপনাদের বলেছি যে বাকি যা আছে, তা দিয়ে দেয়া হবে। বাংলাদেশ থেকে আপনাদের একাউন্টে হুন্ডি করে টাকা পাঠানো জানেন কতটা ঝামেলার কাজ? তারেক ভাই বলে সবসময় যেন আপনাদের টাকা যেন কোনোভাবে মার না যায়, আপনারা টাকা যেন সবসময় পান। টাকা দেবার জন্য সবাই খুব আন্তরিক, আমরাও খুব আন্তরিক। টাকার প্রশ্ন আসলে একটু উনিশ-বিশ তো হতেই পারে, তাই না? কয়েকদিন আগে আপনাকে একটা ভিডিও বানাতে বলেছিলাম। আপনি সেটা বানাননি। বলার পর আবার আপনি আমতা আমতা করে বানিয়েছেন।

কনক বলেন, ওটাও নামানো হয়েছে।

আরো পড়ুন : যৌন রোগের কারণ ও প্রতিকার

তারেকের সহকারী বলেন, কী নামানো হয়েছে? কী নামিয়েছেন আপনি? আপনাকে বলেছিলাম আমরা যে জয়কে নিয়ে কয়েকটা স্ক্যান্ডাল বানাতে। সে স্ক্যান্ডাল বানানোর জন্য কিছু স্ক্রিনশটও আপনাকে পাঠিয়েছিলাম। পাঁচ-ছয়দিন ধরে অনেক কষ্ট করে সেগুলো বানানো হয়েছিল। আপনাকে বলেছিলাম যে ওটা দিয়ে জয়কে একটু ধরেন। জয়কে নিয়ে একটা স্ক্যান্ডাল ভিডিও বানান। আপনি করেছেন? করেননি। আপনি নিজের মতো করে মনগড়া কিছু কথা বললেন, এরপর এটাকে ছেড়ে দিলেন। এগুলোর জন্যও কিন্তু আপনাকে পে করা হচ্ছে। কোনো অবজেকশন দেয়া হয়নি। এমনকি যেটা আপনাকে করতে বলা হয়নি, সেটার জন্যও আপনাকে পে করা হবে।

কনক তখন বলেন, এবার কিন্তু একটু অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি…

আরো পড়ুন : মেহ প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের কার্যকরী সমাধানসমূহ

তারেকের সহকারী তাকে থামিয়ে দিয়ে বলেন, অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি মানে? বাড়াবাড়ি আমরা করছি না বাড়াবাড়ি আপনারা করছেন? আপনি এখন বাড়াবাড়ি করছেন না টাকার জন্য?

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকার ও প্রতিরোধে শক্তিশালী ঔষধ

211 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন