রিপোর্ট দোহারে হলুদের অনুষ্ঠানে যাওয়া নিয়ে

গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে যাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৬

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকার দোহার উপজেলার সুতারপাড়া গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সোহান বিশ্বাস(২৩)সহ উভয় পক্ষের ৬ জন আহত হয়েছে। সোহান বিশ্বাসসহ তার পরিবারের তিনজনকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে।

৩ জনকে দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং ৩ জনকে ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা যায়, ২রা সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সুতারপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি দুলাল খানের ভাতিজির গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান ছিলো। গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে মেয়ের বাসা থেকে ছেলের বাসায় যাওয়ার সময়, অতিরিক্ত লোক হওয়াতে বয়োজ্যেষ্ঠদের নেমে যেতে বলা হয়। এতে তর্ক-বিতর্ক সৃষ্টি হয়। বিতর্কের এক পর্যায়ে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে উভয়পক্ষের লোক ই হতাহত হয় বলে জানা যায়।

আরো পড়ুন : শ্বেতির সাদা দাগ দূর করার সহজ কিছু উপায়

আক্রমণের শুরুর জন্য দুলাল খান, সোহানদেরকে অভিযুক্ত করেছেন। আর রাজা বিশ্বাসের পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের পরিবারের সদস্যদের অপমান, হেনস্থা ও আক্রমণের অভিযোগ করা হয়েছে।

দোহার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার সুতারপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব সুতারপাড়া গ্রামে প্রতিবেশির মেয়ের বিয়ের হলুদের অনুষ্ঠান চলছিল। অনুষ্ঠানে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই গ্রামের বাসিন্দা আওয়ামীলীগ নেতা রাজা বিশ্বাস, তার ছেলে দোহার উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহান বিশ্বাস (২৩) ও ভাতিজা রকেট বিশ্বাসকে কুপিয়ে জখম করে মেয়ে পক্ষের লোকজন।

আরো পড়ুন : জেনে নিন যৌন রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার

রাত ৮টার দিকে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক বাবা ছেলেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠা। রকেটকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে ছাত্রলীগ নেতা আমিনুল আরও বলেন, হামলাকারীদের অতিদ্রুত গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

দোহার থানার ওসি তদন্ত মাসুদুর রহমান জানান, এ ঘটনায় আহত রাজার ভাই প্রিন্স বিশ্বাস বাদী হয়ে শুক্রবার সকালে থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলায় এজাহার নামীয় ৭জনহ অজ্ঞাতনামা আরও ৪/৫ জনকে আসামি করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আরো পড়ুন : গেজ, অশ্ব,পাইলসের সহজ চিকিৎসা

তিনি আরো জানান, সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। আসামিরা পলাতক থাকায় এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে গ্রেপ্তারে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

43 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন