ইলিশ Chandpur hilsha report 2

চাঁদপুর মাছঘাট ইলিশে ভরপুর, তবুও কমছে না দাম

নিউজ ডেস্ক :

ইলিশের ভরা মৌসুম চলছে এখন। চাঁদপুর মাছঘাটও এখন ইলিশে ভরপুর। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) থেকে মাছের আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে চাঁদপুরের এ মাছঘাটে।

এতে হাসি ফুটেছে ঘাটের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে আড়তদারদের মুখে। তবে এখনও আশানুরূপ ইলিশের দেখা মেলেনি বলে দাবি তাদের। মঙ্গলবার ঘাটে দুই হাজার মণের কিছু বেশি ইলিশের আমদানি হয়েছে বলে জানান মৎস্য বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শবেবরাত সরকার।

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ, লক্ষ্মণ ও চিকিৎসা

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে সরেজমিন চাঁদপুর মাছঘাট ঘুরে দেখা যায়, পুরো আড়তজুড়ে শুধু ইলিশ আর ইলিশ। ক্রেতা এবং বিক্রেতার সমাগমে ভরপুর ঘাট। তবে চাঁদপুরের স্থানীয় ইলিশের পরিমাণ ছিল অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক কম। ঘাটে যা মাছ আসছে তার বেশিরভাগই নোয়াখালী, হাতিয়া, সন্দ্বীপ, ভোলা থেকে আসা। তবে আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় খুশি ব্যবসায়ীরা।

চাঁদপুর মাছঘাটের আড়তদার ইমরান হোসেন ফয়সাল বলেন, পূর্ণিমার কারণে চলতি মৌসুমে মঙ্গলবার এবং আজ ঘাটে সবচেয়ে বেশি ইলিশ এসেছে। যার বেশিরভাগ দক্ষিণাঞ্চল থেকে আসা। তবে দাম আগের মতোই রয়েছে।

আরো পড়ুন : যৌন রোগের কারণ ও প্রতিকার

ব্যবসায়ীদের দেওয়া তথ্যমতে, মঙ্গলবার চাঁদপুর মাছঘাটে ইলিশের আমদানি হয়েছিল আনুমানিক দুই হাজার থেকে আড়াই হাজার মণ। বুধবারও একই পরিমাণ ইলিশ আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

বুধবার সকালে ঘাটে ইলিশের দাম নিম্নরূপ-

পদ্মা-মেঘনার (লোকাল ইলিশ) ইলিশ: ৭০০ থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের ৯০০-৯৫০ টাকা; ৯০০ গ্রাম থেকে এককেজি ওজনের ১১৫০-১২০০ টাকা; এককেজি থেকে ১৩০০ গ্রাম ওজনের ১২৫০-১৩৫০ টাকা।

দক্ষিণাঞ্চল থেকে আসা ইলিশ: ৭০০ থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের দাম ৮০০-৯০০ টাকা; ৯০০ থেকে ১২০০ গ্রাম ওজনের দাম ১০০০-১১০০ টাকা এবং ১২০০ থেকে ১৫০০ গ্রাম ওজনের দাম ১১০০-১৪০০ টাকা।

আরো পড়ুন : মেহ প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের কার্যকরী সমাধানসমূহ

সাগর থেকে বড় ট্রলার নিয়ে ঘাটে আসা জেলে জুয়েল রানা ও মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, সাগরে পর্যাপ্ত ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না। মাত্র ২০ থেকে ৩০ মণ ইলিশ নিয়েই ঘাটের আড়তে ফিরে আসতে হচ্ছে। তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার বেশি ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে বলে দাবি তাদের।

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকার ও প্রতিরোধে শক্তিশালী ঔষধ

চাঁদপুর মৎস্য বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শবেবরাত সরকার বলেন, মঙ্গলবার দুই হাজার মণ ইলিশ ঘাটে আসে। আজ কী পরিমাণ আসে তা আরও পরে বোঝা যাবে। তবে পূর্ণিমায় যে পরিমাণ ইলিশ আমদানির কথা ছিল সে পরিমাণ হয়নি।

মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের নদীকেন্দ্র চাঁদপুরের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও ইলিশ গবেষক আনিছুর রহমান বলেন, ইলিশ পরিভ্রমণশীল মাছ। চলতি মৌসুমে জেলেদের জালে ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে। আগামী অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ পাওয়া যাবে। তবে অমাবস্যা ও পূর্ণিমায় ইলিশ সাগর মোহনা থেকে মিঠাপানির পদ্মা-মেঘনায় বিচরণ শুরু করে। তারা খাদ্য সংগ্রহের পাশাপাশি ডিম ছাড়ার জন্য নদী অঞ্চলে যাতায়াত করে। তাই নদীতে এখন মাছ ধরা পড়বে বলে আশা করা যায়।

আরো পড়ুন : গেজ, অশ্ব,পাইলসের সহজ চিকিৎসা

86 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন